সকালবেলা অফিসে যাবার জন্য রেডি হচ্ছি।আলমারি থেকে গত জন্মদিনে নিশাতের গিফট করা শার্ট আর প্যান্টটা বের করলাম।কিন্তু প্যান্ট পড়তে গিয়েই বিপদ।প্যান্টের কোমর ছোট হয়ে গেছে।একটু কসরত করে প্যান্টটা পরার চেষ্টা করতে লাগলাম।কিন্তু কিছুতেই প্যান্টের বোতাম আটকানো গেল না।
-“নিশু, এই নিশু।”
-“কি ব্যাপার, কি হয়েছে?” পাশের ঘর থেকে নিশাত এসে বলল।
-“আর বলো না।লাস্ট বার্থডেতে যে প্যান্টটা গিফট করেছিলে, ওটা আর ফিট করছে না।শখের প্যান্টটা বুঝি ছোট হয়ে গেল।” আফসোসের সুরে বললাম।
-“প্যান্ট ছোট হয়নি জনাব।বরং আপনার ভূড়ির আয়তন বেড়েছে।বুঝলেন?” এই বলে নিশাত আমার পেটে আঙ্গুল দিয়ে গুতো দিল।
-“আউচ! এই এত জোরে কেউ গুতো দেয় নাকি?” অভিমানি সুরে বললাম।
-“হু।সারাদিন অফিসে বসে থেকে থেকে এইরকম ভূড়ি বানালে কিছুদিন পর যখন রাস্তায় বের হবা, অল্প বয়সী ছেলে-মেয়েরা তোমাকে ভূড়ি ওয়ালা বলে ডাকবে।আর আমাকে বলবে ভূড়ি ওয়ালার স্ত্রী।”
-“আর, আমারদের ছোট্ট বাবুটাকে বলবে ভূড়ি ওয়ালার ছেলে।”
-“এহহ। গাছে কাঠাল গোফে তেল।সে অনেক দেরি আছে।এখন তোমার এই আংকেল টাইপ ভূড়ির ব্যবস্থা কর।”
-“কিভাবে করবো?”
-“বিয়েব আগে না জিম-টিম করতে? এখন আবার শুরু করে দাও।”
-“সেটা তো যখন ভার্সিটিতে পরতাম তখনকার কথা।এখন যে আমার জিম করার সময় নেই সেটা তো তুমি ভাল করেই জানোই।”
-“আমি কিছু জানি না।জুন মাসে আমার বান্ধবীর বিয়ে।আমাদের বিয়ের সময় তোমাকে দেখে ও খুবই জেলাস করেছিল।কিন্তু এখন যদি ও তোমাকে দেখে তো হাসতে হাসতে মরেই যাবে।”
-“কেন? হাসবে কেন?”
-“হাসবে কেন? আয়নায় দেখেছো্? এখনই এ অবস্থা, বিয়ের দিন সেখানে গেলে তো তোমার আগে তোমার ভূড়ি হাটবে।আমি এভাবে তোমাকে নিয়ে যেতে পারবো না, ব্যাস।”
-“ঠিক আছে তাহলে আমার বদলে আর একজনকে স্বামী বানিয়ে নিয়ে যেও।” হাসতে হাসতে বললাম।
-“ফাজলামো করবে না বলে দিচ্ছি। ”ধমক দিয়ে বলল নিশাত।
-“ওকে বাবা।কিন্তু এখন কি আর জিম করার সময় আছে আমার?সেই সকাল আটটায় বের হই আর ফিরি রাত দশটায়।এরপর কিভাবে জিম করব?”
-“আমি এসব কিছু বুঝি না।দরকার হলে প্রতিদিন সকাল ছটায় উঠবে।নিচের রাস্তায় ঘড়ি ধরে একঘন্টা জগিং করবে।তবুও এই আংকেল টাইপ বূড়ি কমাবে।
-“মধুর রাতের পরও সকালে উঠতে হবে?” ভ্রু নাচিয়ে বললাম।
-“জাহিদ!!!” এই বলে নিশাত আমার দিকে তেড়ে আসল…..
——————————–
—সোহেল মাহামুদ(অতি ক্ষুদ্র একজন)

৯১৪জন ৯১৪জন
0 Shares

৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য