হঠাৎ জেগে উঠি রাম-চিমটির ভেদ করা অসহ্য যন্ত্রণা নিয়ে,জো নেই উহু আহা’র চিৎকার চেঁচামেচি, হাত চাপা মুখে। ঝুলে পড়া বেঢপ ভুঁড়িতে হাত বুলাতে বুলাতে খুঁজি, খুঁজি ইতিউতি নাহ্,কোথাও কেউ নেই, টু শব্দটিও টের পাচ্ছি না,ভাঁড়ার ঘরে উঁকি দিয়ে ছানাবড়া চোখ নিয়ে দেখি—- নিপাট-গোছানো-দুঃখেরা আড়মোড়া ভেঙ্গে পাশ ফিরে শুচ্ছে!!
চোখে আগুন-পুষে ভাবি, দেব নাকি অগ্নি-বাণে ছারখার করে নিমিষে!

দুঃখ নিবারক শিরনি খেয়ে সবাই হেঁকেছিল সোল্লাশে, কেটে যাবে সমুদয় ব্যথা-যন্ত্রণা ,এবার থেকে।কত্থক নাচের তা ধিন ধিন তুলে-টুলে ফিরে আসি অকৃত্রিম ডেরায়!কী আনন্দ এবার আকাশে-বাতাসে! বজ্রাহত হয়ে দেখি দুঃখেরা গোল হয়ে বসে ঠোঁটের এক কোনে হাসি ঝুলিয়ে কোরাসে গান ধরেছে… মোরা আর জনমে হংস–মিথুন ছিলাম নদীর চরে যুগলরূপে এসেছি গো আবার মাটির ঘরে……………
বুকফাটা আর্ত-চিৎকার বুকেই চাপা দিলাম।

ভাবলাম,ধনুর্ভাঙ্গপণ নিয়ে আড়ি মিটিয়ে মিটিয়ে মিশে যাব গলায় গলায় দুঃখ-দৈত্যদের সাথে! ভেসে বেড়াব নিসর্গের নীলাকাশের নীলে, অশোভন যাওয়াযাওয়ির নিষিদ্ধ যুদ্ধযুদ্ধ এলাকায়,ভালোবাসা-হীন প্রহসনপরাঙ্গমতার নিশ্চিত অভয় নিলয়ে।

ফেলে আসা মৃদু মায়াময় নিগুঢ় জ্যোৎস্নার শেষে,অকস্মাৎ কোন এক নৈমিত্তিক কাক-ভোরে স্নিগ্ধতা-হীন দৃষ্টিতে জানলার সুখ-শার্শিতে পাথর ছুড়ে জানতে চাইব,নির্ভুল সংলাপে,এ-বেলায় কেমন আছ সুখ-পাখি? সব ঠিক চলছে তো? যেমন চলার কথা ছিল?

সোনেলা,আমি/আমরা তোমার সঙ্গে যাই

১৫০জন ২৮জন
9 Shares

১৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য