সময় যখন যেমন

বন্যা লিপি ৭ মে ২০২২, শনিবার, ০২:০১:৪৯পূর্বাহ্ন অন্যান্য ১২ মন্তব্য

মানুষের রাগ পরিমাপ করার জন্য হলেও বাসে চড়া উচিৎ। আপনি যদি নিজেকে চরম রকম শান্ত রাখতে পারেন!  আপনি তখন এটা শুধু মৃদু ঠোঁট বাঁকা করে, পরিমিত হাসি ফিরিয়ে দিয়ে দারুন প্রশান্ত চিত্তে উপভোগ করবেন।

নিজেকে অনেক বোঝাতে বোঝাতে অবশেষে আপনি জয় উপভোগ করবেন ঠান্ডা কলিজায়।

ঈদ পরবর্তী সময়টাতে হুজুগে মূল্য বর্ধিত সকল ক্ষেত্রে পকেটটা আপনাকে দরকারের বেশি ভারী করে বিনোদন অথবা আত্মীয় স্বজনের নিমন্ত্রন রক্ষার্থে পথে বেড়োতে হবে। নইলে আপনি কুপোকাৎ,,,খাইছেন ধরা।

উদরে বোঝাই বিদ্যের বহর ঝর ঝর করে বেহাত হয়ে যাবে, সে আপনি বুঝেও বুঝবেন না। তখন রাগ কিংবা মেজাজের পারদ কোন মাত্রায় পৌঁছবে! তার হুঁশ জ্ঞান কি আর যথাসময়ে কোনো কাজে দেয়? দ্যায়না রে ব্রাদার! দ্যায়না।

 

কানে তুলো আর পিঠে কুলো বাঁধার কথা শুধু প্রবাদ বাক্য হয়ে পাঠ্য পুস্তকেই শোভা বর্ধন করে গেলো যুগ যুগ ধরে।  সময়োপযোগী  সময়ে সে বাক্য বড় ঘোমটার আড়ালেই পর্দা বজায় রেখে চলে। বাস কন্ডাক্টর আর ড্রাইভারের দৌড়াত্বে আপনি অসহায়,,,,বড়জোড় রাগ বা মেজাজের তার ছিঁড়ে গেলে  ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় কিছুদিন রগরগা সংবাদের রসদ জুটে যায়,,,,’যাত্রী এবং বাস হেল্পারের সাথে ভাড়া নিয়ে বচসায় সংঘর্ষ,,,  আহত এত –  নিহত এত’ বলে।

গেটলক বলে কোনো কথা নেই বাস সার্ভিসে। গেটলক মানে হলো, যে ক’টা সিট সে ক’টা যাত্রী বোঝাই হয়ে যাবার পরে গেট লক করে দেয়ার কথা,, হেল্পার, ড্রাইভারের উপরি উপার্জনের খায়েশে তা উপর্যুপরি যাত্রী ওঠানো বাসে অনিয়মে নিয়ম হয়ে গেছে। প্রতিবাদ করতে যাবেন? ওই যে বললাম আগেই!!! সংঘর্ষ এড়াবেন কি করে? আপনার বিদ্যে, আইন জ্ঞান সব ভেস্তে যাবে এই জাতীয় লোকেদের সাথে প্রতিবাদে জড়ালে। এরপর তো আরো আছে,,, এদের সিন্ডিকেট বলে যে বিশাল ব্যাপার আছে! কাজেই আপনাকে পিঠে কুলো আর আর কানে তুলো দেওয়া ছাড়া উপায় কী? আর যদি আপনি তাও না পারেন তো রেডি হয়ে যান সংঘর্ষে জড়াতে।

 

গাজিপুর থেকে ফেরার পথে বাসের সামনের সিটে বসে পড়েছি তড়িঘড়ি ধাক্কাধাক্কি খাওয়ার ভয়ে। ক’জনার সিট তা খেয়াল করিনি। কিছুক্ষন বাদে নাঃগঞ্জের নারী যাত্রী উঠলেন আমার ঠিক সামনেই। ব্যাটারী রাখা কাভারের উপর বসেছেন তিনি। আরো কিছু সময় বাদে আমার দিকে তাকিয়ে বেজায় নাখোশ আর তীব্র ঝাঁঝের সাথে বলে উঠলেন,,,” তিনজনার সিটে বইছেন খালি দুইজনে?” ভ্যাবাচ্যাকা খেয়ে সিটের দিকে তাকিয়ে দেখি – হ্যাঁ,,, সাহেব আর আমার মাঝে যতুটুকু দূরত্ব আছে, আমি চেপে বসলে আরেকজন চেপেচুপে যায়গা নিয়ে বসতে পারবেন। আমি ধীর এবং অতিশয় শীতল গলায় বললাম,,,, আপনি বসবেন?

উনি পাছা ঘুরাইয়া ধপ করে এসে আমার ডান পাশে বসে গেলেন- আপনে কই যাইবেন? ঘাড় ঘুরিয়ে এবার তাঁকে একটু দেখে নিলাম,,, আমার খুব কাছ ঘেসে বসা এই মানুষটাও আমার মতই একজন নারী। হয়ত বিভেদটা অন্য কোনোখানে। ঘাড় সোজা সামনের কাঁচের দিকে তাকিয়ে বললাম— রামপুরা…..

১৪৩জন ২জন
0 Shares

১২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য