প্রিয় অনিন্দ্য,

জানি না তুমি কেমন আছো? তবে আমি যে ভালো নেই সে তুমি অবশ্যই জানো। কেমন আছি কেমন আছো তা নিয়ে কথা বলার অধিকার নেই আমার। যা হোক যে কারণে তোমাকে লিখতে বসা, সেটা নিয়েই বরং শুরু করি কথা। আমি জানি এই মুহূর্তে তুমি আমাকে প্রচণ্ড ঘৃণা করো, ঘৃণা করার মতো যথেষ্ট কারণ আছে। তোমাকে প্রথম দেওয়া কথা রাখতে না পারার যন্ত্রণায়
ছটফট করেছি কতোদিন সে হিসাব এখন আর নাইবা করলাম। সে থাক না হয় তোমার অগোচরে চিরদিন, চরিত্রে তোমার দাগ লাগনো উদ্দেশ্য ছিলো না কোনোদিন। ইচ্ছায় বা অনিচ্ছায় যে অন্যায় আমি করেছি তার ক্ষমার অযোগ্য। তাই ক্ষমা চাওয়ার অধিকার নেই আমার। কিন্তু যা করেছি তার কারণ তুমি জানো।

মমতাজের গানটা শুনেছো নিশ্চয়ই
(আমি কারো হলে তোমার,,,,,,)

“তুমি কারো হলে আমার কেনো জ্বলেরে বন্ধু, আমার কেনো জ্বলে”

প্রেমিক তুমি তাই  জানার কথা তোমার আমার কেনো জ্বলে? নিজের প্রেম অন্যের হতে দেখলে বা তুমি অন্য কারো হলে আমারই তো জ্বলবে! তাই ঈর্ষায় জ্বলে পুড়ে আমি পারিনি তোমাকে দেওয়া কথা রাখতে।

আজ সনু নিগমের সেই গানটা মনে পড়ছে খুব
“একটু সহজ হতে ছিলো না তো দোষ
কি এমন দোষ হতো করলে আপোষ “

ভালোবাসায় অভিমান জমতে দিতে নেই, টুকরো টুকরো অভিমান ক্রমে ক্রমে জমে জমে তা বিশাল পাহাড় হয়ে আমাদের সামনে দাঁড়িয়েছে। যে পাহাড় টপকানোর ক্ষমতা এখন আর আমার বা তোমার কারোই নেই।
সেদিন যদি আমরা হতে পারতাম একটু সহজ অথবা মিটিয়ে নিতে পারতাম আমাদের  সব অভিমান,
তবে আজ তুমি আমার আর আমি তোমারই থাকতাম।
আমরা দু’জনেই ছিলাম প্রচণ্ড জেদি আর অহংকারী,
না তুমি, না আমি কেউ কাউকে দিইনি একচুল ছাড়! তাই তো আজ ধোঁয়াশায় ঢাকা পড়েছে প্রেম, মরীচা ধরেছে ভালোবাসায়। তুমি অন্যের হলে আর আমার কাছে রয়ে গেলে অধরায়। সে যা হোক, যা হবার তা হয়ে গেছে। ললাটে যা ছিলো তা খণ্ডানোর সাধ্য নেই আমার। কিন্তু দ্বিতীয় বার যে কথা দিয়েছি, সে কথা আমৃত্যু আগলে রাখবো। তোমাকে ভুলে থাকার চেষ্টা করবো, না কেবলই ভুলে থাকা নয় একেবারেই ভুলে যাওয়া। দেখো তুমি এই কথাটার নড়চড় হবে না কোনদিন! ভালোবাসা ভরিয়ে দিয়ে করেছিলে আমায় ঋণী। সে ঋণ জানি শোধ হবে না কোনো দিন, তবুও চেষ্টা করবো তোমাকে দেওয়া কথা রেখে তোমার ঋণ শোধ করতে।

ইতি
তোমার সুনয়না

নাহ্ আমি সুনয়না নই। তোমার সুনয়না এখন অন্য কেউ

৩৭৮জন ২৬৮জন
3 Shares

২১টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য