শুভ সকাল – প্রাপক ফাগুন

সাবিনা ইয়াসমিন ২১ এপ্রিল ২০২০, মঙ্গলবার, ০৫:১৫:৩৮পূর্বাহ্ন চিঠি ২৫ মন্তব্য

ফাগুন!

শুভ সকাল জাদু। কেমন আছো তুমি? ভালো আছো? রাতে তোমার পাঠানো চিঠি পেয়েছি। তারপর সারারাত্রি কেটে গেলো তোমার চিঠি পড়ে। কত কিছু লিখেছো তুমি! শত জনমের সহস্র স্মৃতি নিয়ে লেখা চিঠি খানা আমায় যেন নতুন করে আরেকটা জনম উপহার দিলো! কেমন করে বুঝেছিলে আমি কষ্ট পাচ্ছি? তোমার অপেক্ষায় আছি? অপেক্ষায় থাকি?

আমি কেমন আছি জানতে চেয়েছো। এর উত্তর কি এক লাইনে বলা যায়? তবু্ও বলছি, শোনো-আমার একটা একটা দিন কেটে যাচ্ছে তোমায় জড়িয়ে। ভোর হতে সন্ধ্যা, আবার রাত থেকে ভোর, তুমিময় সারাবেলা। আমি  ভালো আছি, এমনটি আবার বুঝে নিও না। আমার অপেক্ষার প্রহর গুলো তুমিময়, কিন্তু তুমিহীন দিন শুধুই যাতনার। এভাবেই অনুভবেরা কখনো তোমার উপস্থিতিকে ছাড়িয়ে যাচ্ছে, আবার অনুপস্থিতির বিষাদেরা অনুভবকে গ্রাস করে নিচ্ছে। আমি আসলে    কেমন আছি নিজেই জানি না জাদু।

চিঠির উত্তরে কি লিখবো ভাবছি। তোমার মতো করে আমি লিখতে পারিনা। তুমি কেমন করে যেন কিছু না বলতেই সব বুঝে যাও! যত অব্যাক্ত কথা, অফুরান  অভিযোগ, নিরব অভিমান, এমনকি অকারণে বাঁধিয়ে রাখা ঝগড়া গুলোও! আমি তেমন করে একটুও বুঝতে পারি না। এই জন্যেই হয়তো এত এত ভুল করি। আর তুমি স্থির পর্বতসম দৃঢ়তায় অবিচল থাকো। আরও নিবিড় বন্ধনে আগলে রাখো আমায়। অবিরাম উপচে পড়া ভুল গুলো তোমার হাতে গেলেই ফুঁটে উঠে নানা রঙের ফুলে। আদরে-প্রশ্রয়ে-স্নেহে- আমি তোমার মাঝে শান্তির হিমালয় দেখেছি জাদু।

জান, আজ আমাদের এক জনমের কথা খুব মনে পড়ছে। আমাদের দুজনকে নিয়ে একটা ট্রেন ছুটে যাচ্ছিলো অজানা গন্তব্যের উদ্দেশে। অন্ধকারের মধ্যে, আরও অন্ধকারে। মাঝে মাঝে একেকটা স্টেশনে অল্প সময় নিয়ে থামছিলো। পরক্ষণেই আবার ছুটেছিলো এক শহর থেকে আরেক শহরের দিকে। আমি ভয় পাচ্ছিলাম অন্ধকার দেখে। চারদিক থেকে ঘিরে আসা অন্ধকার আমায় বিচলিত করে দিচ্ছিলো। তুমি কাছে এলে। বললে,
-ভয় পেওনা জানু, অন্ধকার কেটে যাবে। আলোকিত দিন আসবেই।

আমার শংকা ছিলো, জিজ্ঞেস করেছিলাম,
– কেমন করে আসবে জাদু? এত অন্ধকার কেমন করে কাটবে?
= কেটে যাবে। তুমি আমার পাশে থেকো। আমি তোমায় প্রত্যাশিত ভোর এনে দিবো…

তুমি তোমার কথা রেখেছো ফাগুন। ঐ রাতের পর আমি আর কোনো অন্ধকার দেখিনি। যখনই কোনো অন্ধকার আমায় গ্রাস করতে চেয়েছে, তুমি তাড়িয়ে দিয়েছো তোমার অপ্রতিরোধ্য আলো দিয়ে। একাকী রাখনি, একা হতে  দাওনি। চিরকাল তুমি আমার সাথে ছিলে, আমিই সঙ্গী হয়ে থাকতে পারিনি।

জাদুউউ, আমাদের জনম ফুরিয়ে যাবে। জনমের স্মৃতি গুলো আরও জমতে থাকবে কালের ভাঁজে-ভাঁজে। সমুদ্রের বুকে বেড়ে উঠা প্রবাল গুলোর মতোই অভেদ্য হয়ে থাকবে আর-জনমেও।

আমরা আমাদের ভালোবেসেছি জন্ম জন্মান্তরে
ফি জনমে- আর জনমের দূরত্ব মেনে,
নিষেধের চুঁড়া সাক্ষী রেখে
শপথের অগ্নিতে পুড়িয়েছি প্রাপ্তির দলিল।
অনুমোদনের প্রত্যাশায় সমর্পণ করেছি পরীক্ষিত প্রেম,
হয়তো একদিন তুলে দেয়া হবে সকল নিষেধাজ্ঞা
বিরহী-আকুল প্রার্থনায় জেগে উঠবেন অদৃশ্যমান,
প্রসন্ন সর্বদ্রষ্টার সীমাহীন অবদানে দেখা হবে আবার;
ভালোবাসার বিনিময়ে- মিতালীর বিপরীতে…

ভালোবাসি জাদুজান। ভালো থেকো, হৃদয়ে রেখো।
*নদী*

৬১৯জন ৩২১জন
85 Shares

২৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য