শুভবুদ্ধির উদয় হোক!!!

মারজানা ফেরদৌস রুবা ৭ জানুয়ারী ২০১৬, বৃহস্পতিবার, ০৯:২৫:১৯পূর্বাহ্ন এদেশ, সমসাময়িক ২০ মন্তব্য

“দেশটাকে আর ধ্বংস করবেন না। আসুন সংলাপ করে সমাধানের পথ বের করে আনি, নির্দলীয় সরকারের অধীনে সুষ্ঠু জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ব্যবস্থা করে দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনি। কারও প্রতি আমাদের রাগ-ক্ষোভ নেই। তবে যা করেছেন ভুল করেছেন, মনে মনে তা স্বীকার করুন। ভারতকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আমরা ক্ষমতায় গেলে জঙ্গিবাদকে প্রশ্রয় দেব না, দেশের মাটি ব্যবহার করে কাউকে অন্য দেশের ওপর হামলা করতে দেব না।”— খালেদা জিয়া

গত ৫ই জানুয়ারি খালেদা জিয়ার ভাষনের পরিপ্রেক্ষিতে কিছু জবাব চাই-

১। ”দেশটাকে আর ধ্বংস করবেন না!”
★কাকে বলছেন ম্যাডাম? অবরোধ ঘোষনার মাধ্যমে শ’য়ে শ’য়ে মানুষ পোড়ানোর হোলিখেলা কার নির্দেশে শুরু হয়েছিলো? হাজার হাজার গাছ (প্রায় ৪০ হাজার গাছ) কার নির্দেশে কাটা পড়েছিলো? ক্যামনে পারেন এমন ফাঁকা বুলি আওড়াতে?

২। ”আসুন সংলাপ করে সমাধানের পথ বের করে আনি!”
★আপনাদের টেলিফোনিক সংলাপ তো জাতি শুনেছে! আপনার অভিব্যক্তির প্রকাশও জাতি অবলোকন করেছে! উদ্দেশ্য যদি সৎ থাকতো তো সেদিনই সুযোগটি গ্রহন করতেন।

৩। ”কারও প্রতি আমাদের রাগ-ক্ষোভ নেই!”
★রাজনীতি করতে এসে ব্যক্তিগত ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটানোর কোন সুযোগ নেই। কিন্তু প্রতিপক্ষের প্রতি সেই ব্যক্তিগত ক্ষোভ ঝাড়তে গিয়ে আপনি ক্রোধান্ধ হয়ে জনতার প্রতি প্রতিশোধ পরায়ণ হয়ে উঠেছিলেন। প্রত্যন্ত এলাকায় আঞ্চলিক একটা প্রবাদ আছে-”হরি মাইরা বউ রাগ” (শ্বাশুড়ীকে মেরে বউয়ের উল্টো গুসসা)। আপনাদের রাগ আবার কার প্রতি? মসকরা করছেন ম্যাডাম! রাজনীতিতে নেমেছেন জনতার সেবা করতে আর আপনি বলছেন “কারও প্রতি আমাদের রাগ-ক্ষোভ নেই!” শ’য়ে শ’য়ে মানুষ পুড়িয়ে যে অন্যায় করেছেন, আগে তো তার জন্য জাতির কাছে মাফ চেয়ে নিন। তারপর না হয় আবদার করবেন।

৪। “তবে যা করেছেন ভুল করেছেন, মনে মনে তা স্বীকার করুন।”
★নিজের দোষ অন্যের ঘাড়ে চাপিয়ে দিয়ে আর কতো ধোঁকা দেবেন আমজনতাকে? সে সুযোগ এখন আর নেই যে ম্যাডাম। দিন এখন সত্যিই অনেক পাল্টে গেছে। গলাবাজি আর ধোঁকাবাজি করে খেয়া পার হওয়ার দিন এখন আর নেই। এখন মানুষ অনেক সচেতন। এখন মানুষ আপনার কথার অন্তর্নিহিত উদ্দেশ্য ধরে ফেলে। কাজেই মানুষকে সঙ্গে পেতে গেলে তাদের অন্তরে জায়গা করে নিতে হয়। মাত্র ১ বছর আগে আগুন নিয়ে খেলতে গিয়ে যে নিরপরাধ এত্তোগুলো মানুষ পুড়িয়ে মেরেছেন, আগে তাদের কাছে করজোরে মাফ চান। গলাবাজি, ধোঁকাবাজি না করে ভুল স্বীকার করুন। আপনি শেখ হাসিনাকে মনে মনে ভুল স্বীকার করতে বলেছেন (জানি না, আপনার ভাষায় শেখ হাসিনা কি ভুল করেছেন। আপনার হয়ে কেউ যদি এর ব্যাখ্যা দেয়, তবে কৃতার্থ হবো)। কিন্তু আগামী নির্বাচনে দলের প্রধান হয়ে ভোট চাইতে গেলে আপনাকে আগে জাতির কাছে আগুন সন্ত্রাসের জন্য প্রকাশ্যে মাফ চাইতে হবে।

★★আরো একটি কারনে আপনাকে জাতির কাছে মাফ চাইতে হবে। গত ২১ ডিসেম্বর রাজধানীতে এক আলোচনা সভায় অংশ নিয়ে আপনি মুক্তিযুদ্ধে শহীদের সংখ্যা নিয়ে যে সংশয় প্রকাশ করেছেন, সেজন্য।
আপনার ভাষ্য ছিলো, “আজকে বলা হয়, এতো লক্ষ লোক শহীদ হয়েছেন। এটা নিয়েও অনেক বিতর্ক আছে যে আসলে কত লক্ষ লোক মুক্তিযুদ্ধে শহীদ হয়েছেন। নানা বই-কিতাবে নানারকম তথ্য আছে।” (দেশের সবকটি জাতীয় পত্রিকায় তাই এসেছে)।

পাকিস্তানের সংসদে আলোচনার মাত্র তিনদিনের মাথায় ঠিক তাদের মতো করেই একই রকম বক্তব্য আপনি সেদিন দিয়েছিলেন। আপনি তো দু’বার পূর্ণ মেয়াদে আর একবার মাত্র অল্প ক’দিন (জনরোষে টিকতে না পেরে মাত্র ১৫ দিনের মাথায় পদত্যাগ করেছিলেন।) মোট তিনবার প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। একবার মনে করে দেখুন তো, স্বাধীনতা দিবস ও বিজয় দিবসের বাণীগুলোতে ‘৩০ লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে এই স্বাধীনতা’ কথাটি ছিলো কি না? তাহলে তখন কেনো আপনি প্রশ্ন তুললেন না?
তর্কের খাতিরে যদি ধরেও নেই যে তথ্য সঠিক নেই, তো আপনার কি তখন কোন প্রকার দায়িত্বই ছিলো না তা সংশোধনের?

শুনুন ম্যাডাম, আমরা চাই না আপনি রাজনীতির মাঠে বিরূপ পর্যায়ে পতিত হোন। এখনো সময় আছে, দলকে দাঁড় করিয়ে রাখতে গেলে দলনেত্রী হিসাবে আপনাকে জাতির কাছে মাফ চাইতেই হবে।

১। আপনি প্রতিপক্ষের উপর প্রতিশোধ নিতে গিয়ে সাধারণ নাগরিকদের পুড়িয়ে মেরেছেন! যারা নেতা (দেশ পরিচালক) নির্বাচন করবে, তাদেরই তো আপনি আঘাত করেছেন। তাও আবার স্মরণকালের ইতিহাসে এমন ঢালাওভাবে(শ’য়ে শ’য়ে) মানুষকে আগুনে পোড়ানোর ইতিহাস নেই।

২। আপনি পাকিপ্রেম দেখাতে গিয়ে আমাদের সবচেয়ে দুর্বল জায়গা শহীদদের সংখ্যাতত্ত্ব নিয়ে সংশয় প্রকাশ করে জাতির অহংকারে আঘাত হেনেছেন, যা রক্ত দিয়ে অর্জিত ইতিহাসের অবমাননাস্বরুপ। মুক্তিযুদ্ধকে অবমাননা, শহীদদের অবমাননা, বীরাঙ্গনাদের অপমান করে কথা জাতি সহ্য করবে না। অন্যদের কথা আর না বলি কারন নেতা যেমন পথ দেখাবেন, পাতি নেতারাও সে পথেই হাঁটবেন। দেশের জন্মলগ্নের মীমাংসিত ইতিহাসকে প্রশ্নবিদ্ধ করে আবার সে দেশেরই সরকার পরিচালনার দাবী আপনি করতে পারেন না। কাজেই সময় থাকতে নিজেকে সংশোধন করে ফেলুন।

দু’দুটো গুরুতর অপরাধ আপনি জাতির সাথে করেছেন। সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবী নিযে জনতার দুয়ারে যাবার আগে তার সুরাহা করুন। যদি সত্যিই দেশ এবং জাতির স্বার্থে আপনার রাজনীতি হয়ে থাকে, বিশ্বাস করি আপনি তা করবেন। আবেগপ্রবণ জাতি নিশ্চয় আপনাকে মুখ ফেরাবে না।

শুভবুদ্ধির উদয় হোক।

৩৬৬জন ৩৬৬জন
0 Shares

২০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ