গৃহবন্দিত্বের আজ ষোল দিন পার হলো। কেমন কাটছে সময়টা আপনাদের?

আমার মন্দ কাটেনি। এখন পর্যন্ত বন্দিত্বের অস্থিরতা কাজ করছে না। তবে এই কয়েকদিন যাবত প্রায় দিনই ঘুমুতে যাওয়ার সময় মনে হচ্ছে খাওয়া আর ঘুমানো ছাড়া যেন কোনো কাজই করা হচ্ছে না। কেমন বেকার জীবন কাটছে।

মাঝে মাঝে অনলাইনে অফিসের কিছু কাজ সেরেছি। আর এরমধ্যে একদিন মাত্র দু’জনে ২০ মিনিটের জন্য বেরিয়েছিলাম খাদ্যদ্রব্য সংগ্রহের জন্য। খুবই সাবধানে নিরাপদ দুরত্ব বজায় রেখে। এসেই শপিং যা করেছিলাম, সব প্যাকেটসমেত ২৪ ঘন্টার জন্য এক জায়গায় জড়ো করে ফেলে রেখে সোজা গোসলে। আর সেন্ডেল ওয়াশরুমে ব্লিচিং পানিতে ধুয়ে নিয়েছি। ৩৫/৩৬ ঘন্টা পর শপিং করা জিনিসগুলো খুলে গুছিয়ে রেখেছি।

আজ সন্ধ্যার পর পাড়ার রাস্তাটা খাঁ খাঁ করছে। সন্ধ্যা ৬টার পর নিষেধাজ্ঞাটা এদিকে ভালোই পালিত হচ্ছে।
কয়েকটি কুকুর সুনসান নীরবতা পেয়ে দখলদারিত্বের লড়াইয়ে নেমেছিল। এছাড়া চারপাশটা নীরব নিস্তব্ধ।

ভালো কাটবে, ভালো কাটাতে হবে। সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করেই নিজেকে ঝুঁকিমুক্ত রাখতে হবে।
যারা সেবাকাজে নিয়োজিত আছেন নিজেরা ঘরে থেকে তাদেরকে ফাঁকা পরিবেশে কাজ করার সুযোগ করে দিতে হবে। তারা আমাদের জন্য মাঠে আছেন, আমরা ঘরে থেকে তাদেরকে সহযোগিতা করি।

করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধজয়ে সামনের কাতারের সৈনিক হচ্ছেন ডাক্তার। প্রার্থনা করি সম্মুখ যুদ্ধে যারা ময়দানে যুদ্ধরত তারা নিরাপদে থাকুন। সুস্থ থেকে যুদ্ধে জয়ী হোন।
শুভকামনা…..

৯৬জন ২৮জন
0 Shares

৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য