রোদপরাগের ডাইনি

ছাইরাছ হেলাল ২ মার্চ ২০১৭, বৃহস্পতিবার, ০৭:২৬:২২পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ২৮ মন্তব্য

অকস্মাৎ ছুটে এলো দেখভালডাইনি
তড়িঘড়ি পড়িমরি, তলব পাঠিয়েছেন ডাইনিরানী,
ভয়ে হাতজোড় কাঁচুমাচু!
কাঠগড়ায় দাঁড়ানো সাক্ষাৎ চোর, কলা-কচু;

খোশগল্পে মত্ত কুলরানী
নূতন এসেছে বিদগ্ধ ইয়ার-দোস্ত ভারী ভারী,
হুকুম এলো, নূতন কবিতা বল এই মুহূর্তে এখুনি
নচেৎ ঘাড় মটকে দেবে জল্লাদডাইনি,
কী করি কী করি ভেবে মরি
ভেবেই মরি,
যাবে নাকি প্রাণ এবারই!

সভয়ে বলি, হঠাৎ দাঁড়াবে কবিতা?
যদিবা দাঁড়ায় বেরোবে কী প্রাণগাথা?

## কী বেরোবে
কী বেরোবে না তাই নিয়ে কিসের এত মাথাব্যথা?
চুপ, চুপ, একদম চুপ,
শুরু কর এখুনি, টাউক্কা ব্যাটার টেকোমাথা।

মাফি মাফি
সভয়ে প্রণামি রানীজির মোক্ষমূল
যদি হয়ে যায় ব্যাপক চুলবুল ভুলটুল,

** জল পড়ে পাতা নড়ে, জল পড়ে পাতা নড়ে না, পাতা নড়ে জল পড়ে না,
নড়ে না কিছুই, পাতাজল জলপাতা, পড়েও না, তবুও জল চাই-ই, চাই পাতাও।
অকাতরে প্রাণমন হয়েছে ম্রিয়মান প্রহরে প্রহরে, জিঘাংসু দুর্বৃত্তের অজ্ঞান হাতে,
মৃতের মিছিলে লুকিয়ে খুঁজি আঁধারের ঠিকানা;

—————————————————————————————

কী জানি কী হয় শুরু
ভয়ে বুক দুরুদুরু,
পাশে এসে দাঁড়িয়েছে
দাঁতাল এক ডাইনিগুরু,

যা বোঝার গেছি বুঝে
গেল বুঝি ঘাড় এবার ঝুলে,
কুট্টিডাইনি ছুটে এলো
এখুনি এখুনি
অন্যকিছু, ভাল কিছু বলে ফেলো।

—————————————————————————————–

** উন্মত্ত ষাঁড়ের চোখে লাল বেঁধাতে আসিনি
বৈরী হাওয়ার কৃষ্ণবাদুড়ও হইনি,
ভালোবাসার অনাবৃষ্টির বিরাণ ভূমিতে
দাঁড়িয়ে আছি গন্ধহৃদয়ে শিউলি মেখে।
মায়াবী স্নান হয়েছে দলছুট তেপান্তরের মাঠে
হিংসুটে বারোয়ারী সময়ের উৎকট চিৎকারে,
জলকাদা আর অসুস্থ অস্থির ঘূর্ণাবর্তে
রুদ্ধ আজ ;
স্পর্শকাতরতার ক্লান্তিতে ক্ষয়ে ক্ষয়ে
মরে যেতে যেতে ডাকি প্রাণপণে;
সাড়া দাও সাড়া দাও,
ছুঁড়ে দাও বুকসুগন্ধরুমাল, রানী;

শেকলবেঁধা জমাটবদ্ধ শীতের শীতে একটু উষ্ণ উষ্ণতা চাই,
দেবেনা? নিম নিম ক্ষতে মাখবে-না চাঁদপরাগ?

——————————————————————————————-

সহসাই সবুজাভ চোখ গাঢ়তম সবুজ হলো
টেবিল চাপড়ে সবাই হৈ হৈ করলো,
ভয়ে চুপসে এদিক ওদিক তাকাই
গেল কোথায় ডাইনি সই?

ছুটে এসে ফিরিয়ে নিয়ে গেলো,
আবার হাওয়াও হলো;

এলো এবার নূতন এক ডাইনি
হাতে তার সুসজ্জিত কয়েক ভাণ্ড পাগলাপানি,
নয় আর দেরি
ঢেলে দেই খটখটে গলায় নির্জলা অনেকখানি,
ঘাড়ে বসাবে দাঁত, একটু পরে তাও বিলক্ষণ জানি,

এবারে ছুটে-ফুটে এলো সেই কুট্টি দেখভালডাইনি।
দুরু বুকে ভাবি, কী জানি কী শুনি!
ডেকেছে ভোজে ডাইনিরানী !!!!!!!!!!!!!

**********************************************************************

পার্মানেন্ট রেসিডেন্সির আবেদন
রেখেছে ঝুলিয়ে বহুদিন!!

৩৩৩জন ৩৩৩জন
0 Shares

২৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ