রিক্সা এবং প্রেম

মাছুম হাবিবী ১২ জুলাই ২০২০, রবিবার, ০১:৩৯:১৩পূর্বাহ্ন অণুগল্প ১৭ মন্তব্য

অফিস থেকে বাসায় এসে রান্না করে প্রতিদিন ছাদে যাই। প্রতিদিনের মত কেউ একজন আজও ছাদে আমার জন্য অপেক্ষা করছে! মেয়েটি পাশের বিল্ডিং এ থাকে। ছোট একটি বেসরকারী কম্পানিতে চাকরী করে অনেক দিন ধরে। তার অফিস শেষ হয় আমার থেকে এক দেড় ঘন্টা আগে। আজ ছাদে আসতেই তার মায়াবী চেহারায় কেমন একটা অভিমানী ছাপ। হয়তো দেরিতে ছাদে আসছি বলে অভিমান করে আছে। ঢাকা শহরের মানুষদের অভিমান বেশি, তারা ঝটপট অভিমান করে! অন্যদিনের তুলনায় আজ তার অভিমানী মুখটা দেখতে একদম মেঘেঢাকা চাঁদের মত!

প্রতিদিন ছাদে এসে কারো রাগ ভাঙানোর ফিলিংসটা আমার কাছে পৃথিবীর সবচে সুন্দর মূর্হুত। মৃদু পায়ে ছাদের গ্রিল ঘেষে দাঁড়াতেই ‘সে অভিমানে মুখ ফিরিয়ে নেয়! বুঝতে পারছিলাম নাহ কি কারণে এত রাগ। অনেক্ষণ চুপচাপ থাকার পর ‘ওপাশ থেকে কর্কশ কণ্ঠে প্রশ্নঃ-

অফিস থেকে আসার সময় ‘রিক্সায় যে মেয়েটি ছিল সে কে? আমি কিছুটা হতবম্ভ হয়ে উত্তর দেই ‘সে অফিসের কলিগ। রিক্সা পাচ্ছিলো নাহ, তাই আমার কাছে হেল্প চাইলো। ওপাশ থেকে রাগান্বিত কন্ঠে ‘হেল্প চাইলো আর আপনি হেল্প করলেন বাহ্! কত মহান আপনি! আমি একটু মুচকি হেসে বলি ‘আচ্ছা স্যরি আর হবে নাহ। তারপর, ওপাশ থেকে ‘হবেনা মানে? আপনি সব সময় কষ্ট দেন! আপনার কিছু কর্মকান্ডে আজ আমি খুব বিরক্ত। তাই সিদ্ধান্ত নিলাম কাল থেকে…..

আমি কথা থামিয়ে বলি ‘কাল থেকে কী?ওপাশ থেকে মৃদু কণ্ঠে উত্তর এলো ‘কাল থেকে প্রতিদিন আমি রিক্সা নিয়ে আপনার অফিসের সামনে অপেক্ষা করবো। তারপর, আপনি আর আমি এক সাথে রিক্সা করে বাসায় আসবো। কথাটা মনে থাকবে?

আমি এবার হেসেই বললাম ‘আচ্ছা ম্যাডাম মনে থাকবে। তবে আমার একটা শর্ত আছে? আমার হাত ধরে চেপে বসতে হবে। আমি ঠিক এভাবেই আপনার হাত ধরে প্রতিদিন অফিস থেকে বাসায় আসবো!

এবার সে হুহুহু করে হেসে বললো ‘আচ্ছা স্যার তাই হবে। এবার রুমে যান, তারপর খাওয়া দাওয়া করে ঘুমান। কাল তো অফিস যেতে হবে!

১৬২জন ৫০জন
0 Shares

১৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য