রিকশা ভাড়া টিপস …

ব্লগার রাজু ১৫ এপ্রিল ২০১৪, মঙ্গলবার, ০১:৩২:৪৮অপরাহ্ন গল্প, রম্য ৮ মন্তব্য

দেখলাম আমার এক রোমিও বন্ধু পাঞ্জাবী পরে চোখে একটা সানগ্লাস দিয়ে রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাচ্ছে। তো ভাবলাম একটা ডাক দেই, দেখি কোথায় যায় এতো ফ্যাশন দিয়ে!?

এই রোহান যাচ্ছিস কোথায়?
-আরে রাজু, কি খবর তোর? শুভ নববর্ষ।
হুম শুভ নববর্ষ, তো যাচ্ছিস কোথায়?
-এইতো দোস্ত গার্লফ্রেন্ডের সাথে দেখা করতে।
ও আচ্ছা, হুম তোর গেটআপ দেখেই বুঝতে পারছিলাম
ঘুরবি কোথায় কোথায়? বাজেট কত?
-এইতো রিকশায় ঘুরবো আর পরে মেলায় থেকে সিএনজি করে ওর বাসায় পৌঁছে দিব।

এই কথা বলেই সে তার মানিব্যাগ টা পকেট থেকে একটান দিয়ে বের করে ফেলল।
দেখলাম একটা চকচকে পাঁচশত টাকার নোট আর কিছু খুচরা দশ-বিশ টাকার নোট।
আমিঃ ভালোই তো প্রস্তুতি, যা তাহলে ঘুরে আস…
রোহানঃ তুই কি ভাবছিস আমি এই পাঁচশত টাকা খরচ করব?
(বলেই হি হি হি করে সবগুলো দাঁত বের করে হাসল)
আমিঃ কিরে এখানে হাসার কি হল? আর খরচ করবি না মানে?
(অপ্রস্তুত হয়ে জিগ্যেস করলাম)
রোহানঃ তুই বুঝবি না দোস্ত। হুম ওয়েট আমি বুঝিয়ে দিচ্ছি; এই যে খুচরা টাকা গুলো দেখছিস আমি শুধু এগুলোই খরচ করব, আর পাঁচশত টাকার নোট ওভাবেই থেকে যাবে।
(আবার হি হি হি করে হাসল)
আমিঃ তাহলে রিকশা ভাড়া সিএনজি ভাড়া, খাওয়াদাওয়ার টাকা কি তোর শ্বশুর দিবে?
রোহানঃ না আমার বউ মানে গার্লফ্রেন্ড দিবে। মনে কর রিকশা থেকে নামলাম, আমি পকেট থেকে আমার মানিব্যাগ টা বের করতে হাত দিব, কিন্তু অনেক দেরিতেই বের করব। আর ততক্ষণে ও ভাড়ার টাকা দিয়ে দিবে।
আমিঃ আর যদি ও তোর মত দেরি করে???
রোহানঃ তাহলে আমি পাঁচশত টাকার নোট বের করব, রিকশাওয়ালা ভাংতি দিতে পারবে না, পরে আমার গার্লফ্রেন্ড কেই দিতে হবে।
আমিঃ এতো বুদ্ধি রাখিস কই?
রোহানঃ দোস্ত, রিলেশন করলে এইটুকু চালাকি করতে হয়, নাইলে রাস্তার ফকির আর বয়ফ্রেন্ডের মধ্যে কোন পার্থক্য থাকে না বুঝলি? তুই বুঝবি না, তোর তো গার্লফ্রেন্ড নাই, যেদিন হবে সেদিন বুঝবি ঠেলার নাম বাবাজী।
আমিঃ আচ্ছা যা, তোর দেরি হয়ে যাচ্ছে, ঐ দিকে আবার তোর গার্লফ্রেন্ড না অন্য ছেলের সাথে ঘুরতে চলে যায়।
রোহানঃ হাহাহা ওকে দোস্ত বাই, বিকেলে আড্ডায় দেখা হবে…

 

২৫৪জন ২৫৪জন
0 Shares

৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ