রাষ্ট্রের হৃৎপিন্ড//

বন্যা লিপি ২৫ জুন ২০২০, বৃহস্পতিবার, ০২:০১:৪০পূর্বাহ্ন কবিতা ৩৩ মন্তব্য

ন্যানো সেকেন্ড হাতে পেয়ে তুই থমকে গেলি!
তোর চোখের সামনে এসে দাঁড়ালো
তোর গোপন রাখা প্রিয়তমার কাঠামো।

দুর্দান্ত বক্তৃতার মাঝখানে
আচমকা বুকের বা’পাশ স্পন্দন পরে গেলো ট্রাফিকের বাঁশির লাল সিগনাল!
মঞ্চে উপবিষ্ট সভার প্রধান অতিথি তোকে দেখে ভড়কে গেলেন, চোখে তোর জোনাক জ্বলছে।

ডায়াসে পরে থাকা স্ক্রিপ্টের বানান গুলো আচমকা নেচে বেড়াচ্ছে প্রজাপতির পাখায় ভর করে।
তোর সামনে তোর গোপন প্রিয়তমা এসে দাঁড়িয়েছে তোকে সাহসী দেখতে।
অথচ তুই ভুলে গেলি- বক্তৃতার শ্লোক।

প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলি;
ক্ষুধা, জরা, অধিকার ছিনিয়ে এনে দিবি।
তোর অবসাদ তুই ফেরি করিস না কারো দুয়ারে।
রাত্রির অন্ধকারে শুকাতে দিস কাপড় ঝোলানো রশিতে দুঃখের রুমাল।

শূন্য বিছানায় ঝরতেই থাকে তোর হৃৎপিণ্ডের তাজা লাল রক্ত।
তোর কাছে সময়ের কাছে নিজেই হয়ে উঠিস এক ব্যর্থ প্রেমিক।
বুক কাঁদে তোর না খেতে পাওয়া পেটের কান্নার শব্দে!

পকেটের কপর্দক খালি করে দিস যখন তখন-
তবু তোকে অজ্ঞ ভেবে অন্ধকার নিয়েছে মুখ ফিরিয়ে।
আগুনপোকা তোকে কুঁড়ে কুঁড়ে খায় রাত্রিদিন।
মুষ্ঠিতে বজ্র রেখে সোচ্চার হোস আক্রোশে-আপনমনে;

ন্যানো সেকেন্ড হাতে পেলে
তুই ভুলে যাস কেউ তোর চোখের দিকে তাকিয়ে আছে- কবে তুই সেঁটে দিবি রাষ্ট্রের দেয়ালে ভালবাসার পোস্টার।

২৪০জন ৭৮জন
23 Shares

৩৩টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য