রাত্রির ঝুল-বারান্দা

ছাইরাছ হেলাল ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৫, সোমবার, ০২:৪৪:০৯অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৪৬ মন্তব্য

বৈভব আর বিত্তে অহংকারী মন মন্দিরের সুউচ্চ ঝুল-বারান্দায় ঠাঁই পেয়ে ঠাঁই নেয় নীল রাত্রি। রাতের আকাশে চোখ পাতে, নীলিমার নক্ষত্রবীথিতে খুঁজে ফেরে স্বপ্ন জোনাকি। জীবনের ঘন উপত্যকায় চোখ ফেলে রাত্রি, দেখে জীবনের মৃত্যু, ভালোর মন্দ, সুখের দুঃখ, ন্যায়ের অন্যায়; পাশাপাশি চলছে নীরবে উৎপাতহীন ভাবে সারিবদ্ধ করোটীর মিছিল।

নূপুরের ধ্বনি তুলে নিক্বণ পায়ে নীরবে রাত্রি আসে রাতের শেষ প্রহরে।
হে সতী রাত্রি, চলো ডানায় কাঁপন তুলি, উড়ে যাই ঐ দূর নীলের আকাশে, কুড়াই মুঠো মুঠো পূর্ণিমা, তোমায় পরাব বলে। হে যাযাবর রাত্রি, রাতের গোলবারান্দার গোলচক্করে বেপথু হয়ে চক্কর কাটছি কাটছি, নিত্য হাঁটাহাঁটির ব্যস্ত পায়ে। ছিদ্র দু’চোখ পিপাসা মেলে ধরে, কমন্ডুলুর ঝর্ণা আসে না ছুটে।
হে রাতের আকাশ, তুমি যতই রং মাখনা কেন জ্যোৎস্না কিন্তু একটাই।

স্তব্ধ নীরবতায় অকস্মাৎ খুলে গেল মন্দিরের সিংহ দ্বার, ঝলমলে আকাশ, এলো ঝড়ো বাতাস, উষ্ণ বৃষ্টি, অজস্র পূর্ণিমার প্রচ্ছন্ন আহ্বান।

সময়ের রাই কে,

৩৪১জন ৩৪০জন
0 Shares

৪৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ