রাজকন্যার স্বপ্নে রাজপুত্র (পর্ব-২)

আপনারা দুজন দুজনকে কত ভালোবাসেন সম্মান করেন,শ্রদ্ধা করেন এগুলো সহজে দেখা যায় না। আপনার সাথে আপনার শ্বাশুড়ীর এত মিষ্টি মধুর সম্পর্কে আমি প্রথম ভাবছিলাম আপনারা মা মেয়ে। পরে জানলাম আপনারা শ্বাশুড়ী বউমা, অথচ ব্যবহার মা মেয়ের মতো।কলিংবেল বেজে ওঠল জামান বাজারে গিয়েছে নার্স আপনি একটু কষ্ট করে দেখুন প্লীজ কে আসছে।অবশ্যই মেম আপনি বসুন আমি যাচ্ছি বলেই নার্স দরজা খুলে দিল, আন্টি কেমন আছেন?ভালো মা,তুমি কেমন আছো.? বলেই ভিতরে ঢুকল জামান সাহেবের মা।মা বলেই জান্নাত ওঠে গিয়ে জামানের মাকে জড়িয়ে ধরল মা আসতে কোন সমস্যা হয়নি?

নাহ্! বউমা কাজের ছেলেটাকে নিয়ে আসছি তো। মা কতদিন বলছি বাড়িতে একা থাকতে হবে না আমাদের সাথে থাকুন।বউমা সেই ৭ বছর বয়সে তোমার শ্বশুড়ের সাথে এ বাড়িতে আসি এখন প্রায় ৪০ বছর চলছে।তোমার শ্বশুড় মারা গিয়েছে তার ভিটা মাটিটা ছাড়তে কষ্ট হয় বলে আঁচলে মুখ ঢাকলেন।সমস্যা নেই মা নতুন মেহমান আসুক দেখি কতদিন গ্রামে থাকতে পারেন বলে হি হি হি হি করে হাসলো জান্নাত।

বউমা মনে হয় আর গ্রামে থাকা হবে না বলেই মুসকি হাসলেন জামানের মা। বউমা জামান কোথায়? কাল তো ক্লিনিকে চলে যাব তাই কিছু জিনিস কিনতে বাজারে গিয়েছে।রাত গড়িয়ে সন্ধ্যা নামল রাতে জামান,জান্নাত,শ্বাশুড়ী মা গল্প করছিলো হঠাৎ জান্নাত বললো আমার শরীর খারাপ লাগছে। কয়েক ঘন্টার মধ্যে জান্নাতকে ক্লিনিকে ভর্তি করালো জামান পাশে বসে আছে। স্যালাইন চলছে বউমা বলেই শ্বাশুড়ী মা জান্নাতের কপালে হাত বুলিয়ে দিচ্ছে ভয় পেও না বউমা। দূরের মসজিদে আজানের সুমধুর ধ্বনি ভেসে আসছে জান্নাত ঘুমাচ্ছে মা তুমি অজু করে নামাজ পড়ে নাও। আমি পাশের মসজিদে গেলাম,নার্স আপনি জান্নাতের কাছে থাকুন আমি পরে আসবো বলেই জামান সাহেব বের হয়ে গেলেন।

সকাল ৮টা জান্নাতকে ওটিতে নেওয়া হবে জামানের চোখে পানি হয়ত এদেখাই শেষ দেখা হতে পারে। বউমা বলেই শ্বাশুড়ী মায়ের কান্না শুরু তোমরা দুজনেই সুস্থ ভাবে ফিরে আসবে আল্লাহ্ ভরসা।আসছি মা যদি ফিরে না আসি, আমাকে ক্ষমা করে দিবেন জান্নাতকে নিয়ে দুজন নার্স ডাক্তার চলে গেল।১৭ আগস্ট, সকাল ৮.২০মিনিট ডাক্তার  হাসতে হাসতে বের হয়ে আসলো জামান স্যার আপনি কন্যা সন্তানের বাবা হয়েছেন।

আলহামদুলিল্লাহ্ মা মেয়ে দুজনেই সুস্থ আছেন, ভাবীর জ্ঞান ফিরতে কয়েক ঘন্টা সময় লাগবে। কিছুক্ষনের মধ্যেই কেবিনে দেওয়া হবে,জামান আল্লাহর কাছে শুকরিয়ে আদায় করে নার্স বাচ্চা নিয়ে বাইরে আসে।স্যার আগে কিছু বকসিস দেন,জামান প্যান্টের পকেটে হাত দেয় ১০০০ হাজার টাকা দেয়।আল্লাহ্ আপনাদের মঙ্গল করুন বলেই নার্স হাসি দিয়ে মনে মনে ভাবে মানুষ এতটা ভালো হয় কি করে আমার জানা নেই। জামান তার সদ্য জন্মানো শিশুকে কোলে নেয় মা আমি জান্নাত পেয়ে গেছি বলেই বাচ্চার কপালে চুমু দেয়।

জামানের মা মেয়ে দেখেই আলহামদুলিল্লাহ্ এ দেখি আমার থেকে বেশি সুন্দর হয়েছে বলেই কোলে তুলে নেয়।মা তোমাকে আর মা ডাকতে হবে না আমার মা চলে আসছে বলেই হা হা হা করে হেসে দেয় জামান।আমাদের কয়েক গ্রামে আমি সুন্দরী বলে একটা সুনাম আছে আজ সেটা বাতিল হয়ে গেল আমার নাতনী আরো বেশি সুন্দর হয়েছে।জামানের মোবাইলটা বেজে ওঠল অফিস থেকে পিয়ন ফোন করেছে, স্যার আপনার নামে একটা চিঠি এসেছে ডিপিও অফিস থেকে।আচ্ছা বিকালে আমার বাসায় দিয়ে যেও তোমার ভাতিজি জন্ম হয়েছে দোয়া করো। জ্বী স্যার মিষ্টি খাব,অবশ্যই কাল আমি অফিসে আসবো খবরটা সবাইকে জানিও।

জান্নাতের জ্ঞান ফিরছে বাবুকে কোলে দেওয়া হয়েছে বউমা আমাকে আর দরকার নেই তোমার নতুন মা এসে পড়েছেন। না মা আপনার জায়গা শুধু আপনার জন্য ওর জন্য আলাদা ভালোবাসা আসবে আপনি আমার মা। আর ওর মা আমি সেটাই বড় পরিচয়, মা আপনার নাতনী দেখতে আপনার কপি হয়েছে বলেই সবাই হাসলো।জামানও হাসিতে যোগ দিল ডাক্তার,নার্স সবাই পরিচিত অভিনন্দন জানালো বাচ্চার কি নাম রাখবেন স্যার? বাচ্চার মা রাখবে। না শ্বাশুড়ী মা রাখবেন বললো জান্নাত। আমি ওর নাম রাখলাম “ফারিন” ওকে ফাইনাল বলতেই জামান সাহেব এর মোবাইল আবার বেজে ওঠল ডিপিও স্যার কল করেছে।স্যার বলেই জামান সাহেব সালাম দিলেন।

অভিনন্দন জামান সাহেব, ধন্যবাদ স্যার।কিন্তু স্যার আমার মেয়ে হয়েছে আপনি জানলেন কি করে.?হা হা হা তাই নাকি! আমি তো অন্য কারনে অভিনন্দন জানালাম।।মানে কি স্যার?মানে আপনার প্রমোশন হয়েছে আপনি আগামী ২০শে আগস্ট ইউ.এন.ও হিসাবে দায়িত্ব পালন করবেন।স্যার তাহলে আজ যে অফিসে চিঠি আসলো সেটা কি এই বিষয়ে.? হ্যাঁ জামান সাহেব আপনি মানসিক ভাবে প্রস্তুত থাকুন।

তারপর আপনার মেয়ে কেমন আছে.? আলহামদুলিল্লাহ্ মা,মেয়ে দুজনেই ভালো আছেন, আমার মেয়ের জন্য দোয়া করবেন স্যার।বেবির নাম কি রাখছো.?জ্বী স্যার ফারিন।অবশ্যই দোয়া রইল “ফারিন আজ তুমি তোমার বাবার পরিচয়ে পরিচিত, দোয়া রইল পড়াশোনা করে জীবনে প্রতিষ্ঠিত হও এমন কিছু করো যাতে লোকে একদিন বলে ওই যে যায় ফারিন এর বাবা ইউ.এন.ও জামান সাহব।জামান খুশি হয়ে বললো ”

……চলবে।

১০১জন ৮জন
0 Shares

৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য