সোনেলা দিগন্তে জলসিড়ির ধারে

বিশ্বের সবচেয়ে বেশী জনসংখ্যার দেশ চীনে গিয়েছি সারে তিনবার। তিনবার ভিসা নিয়ে, একবার ভিসা ছাড়া। দুই হাজার নয় এবং দুই হাজার এগারো সনে ভ্রমনের উদ্দেশ্যে দুইবার। দুই হাজার আঠারো সনে ব্যবসা এবং ভ্রমনের জন্য। দুই হাজার ষোল সনে দক্ষিন কোরিয়া যাবার সময় চায়না ইস্টার্ন এয়ারলাইনসের ফ্লাইট বিলম্ব জটিলতায় গুয়াংজু তে ট্রানজিট নিতে হয়েছিল ২৬ ঘন্টা। চায়না ইস্টার্নের ব্যাবস্থাপনায়ই গুয়াংজু তে হোটেলে কাটিয়েছি প্রায় কুড়ি ঘন্টা। তখন পোর্ট এন্ট্রি ভিসায় গুয়াংজু দেখেছি কিছুটা।

এই ছবিটা ২০০৯ সনে প্রথম চীন ভ্রমনের সময়ের ছবি। চীন ভ্রমনে যাবো আর সপ্তম আশ্চর্যের এক আশ্চর্য দেখবো না, তা কি হয়?
প্রথমদিন ভ্রমন ক্লান্তি দুর করে হোটেলে কাটিয়ে পরদিন সকালেই গ্রেট ওয়ালের উদ্দেশ্য ছুটলাম।

গ্রেট ওয়াল পৌছে এর বিশালত্ব দেখে স্থবির হয়ে গেলাম। কিভাবে এই বিশাল অবকাঠামো নির্মান করা সম্ভব হলো তা ভেবেই বেদিশা আমি। মাইলের পর মাইল উচু নীচু পাহাড় এর উপর দিয়ে সাপের মত একেবেকে দৃষ্টি সীমার বাইরে চলে গিয়েছে গ্রেট ওয়াল। সর্বোচ্চ উচ্চতায় আমার পক্ষে হেটে ওঠা সম্ভব নয়।

ছবিটার স্মৃতি:
ভ্রমন সঙ্গী মশিউর ভাই হাতে ক্যামেরা দিলাম আমার কিছু ছবি তুলে দেয়ার জন্য। তখন ডিজিটাল ক্যামেরা আমার। ছবি তোলার পরে ক্যামেরায় তা দেখে পছন্দ হচ্ছিল না। কয়েকবার তোলালাম ছবি, কিন্তু আমার মনমত হচ্ছিল না।
প্রচুর পর্যটক থাকে সবসময় ওখানে। ক্যামেরা স্টান্ডে ফিট করে আমাদের পাশে দাড়িয়ে গ্রেট ওয়ালের ছবি তুলছিলেন এক কাপল। আমার হতাশ মুখ দেখে তাদের মধ্যে মেয়েটি মুখে হাসি দিয়ে আমার ক্যামেরাটি চেয়ে নিল। আলাপ করে জানলাম তারা এসেছেন নিউজিল্যান্ড থেকে।
আমার ছবি তুলে দেবে মেয়েটি। জেনুইন ফটোগ্রাফারের হাতে ছবি তুলব, আমি খুশী হয়ে ক্যামেরার দিকে মুখ করে দাড়ালাম। কিন্তু সে এমন ছবি তুলবে না। বললো ‘ গ্রেট ওয়ালের দিকে হেটে যাও, আমি তোমার হেটে যাবার ছবি তুলবো। ‘ কি আর করা হেটে গেলাম কিছুটা পথ। থামতে বলার পরে ফিরে এলাম তাদের কাছে। এরপর এই ছবিটা দেখিয়ে বললো যে এটি বেস্ট।
এখনো তার কথা মনে আছে। ” তুমি এসেছো গ্রেট ওয়াল দেখতে, কি দেখতে এসেছো এটিই সাবজেক্ট, তুমি সাবজেক্ট নও। সাবজেক্টের দিকে হেটে যাচ্ছো তুমি। এটিই হচ্ছে এই ছবির মর্ম। ”

এরপর যখনি কোথাও ভ্রমনে যাই, তার কথা ভেবে নিজের ছবি তোলাই ভ্রমন সঙ্গীদের দিয়ে।

যে সমস্ত ছবিতে বন্দী আমি : পর্ব এক

৩৮৯জন ২৩৫জন
0 Shares

৩৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য