যেখানে নাস্তিক আসিফ মহিউদ্দীন ও আস্তিক Tanvir Ahmad Arjel এক…………।। পর্ব—১

আমি এই দুই ফেসবুক সেলিব্রেটির ফলোয়ার।এদের কে কি বলছে পড়ি শুধু। কি আশ্চর্য একটি বিষয়ে এদের লিখনিতে উঠে এসেছে একই মতামত। একজন নাস্তিক(আসিফ মহিউদ্দীন) এবং একজন আস্তিক( Tanvir Ahmad Arjel )। একজন তার দৃষ্টি ভঙ্গি দিয়ে মানবতাকে বর্ণানা করেছে। অন্য জন তার বিশ্বাস আস্তিকতা( ইসলামি আকিদা) দিয়ে মানবতাকে দিক নির্দেশ করেছেন।
দুজনের কথা কিন্তু এক, প্রকাশ ভঙ্গি ভিন্ন। এতে আরজেল বা আসিফ দুজনেই একটি ঘটনাতে মানবতার কথা, ভাতৃত্বের কথা তুলে ধরেছে ভিন্ন ভাবে। কিন্তু কথা ঐ একই।
এদের এই লিখা পড়ে কিছু কথা না বলে থাকতে পারলাম না।
#আসিফ নিজে নিজেকে বলে ও প্রচার করে আমি নাস্তিক। এতে আমাদের কিছু যায় আসে না। একজনের ধর্ম সম্পর্কে ভিন্ন মতামত থকতেই পারে। সেটি তার আল্লাহ প্রদত্ত ক্ষমতা। এখনে আমার আপনার বা ইসলামের বলার কিছু নেই।
কিন্তু কথা তখনই আসবে বা ইসলাম তখনই কথা বলবে যখন তুমি ইসলামের নামে কুৎসা রটনা করবে। মুসলিম জনতা (ইসলামের তরবারি) তখনই তোমার মুণ্ডু ছেদ করবে যখন ইসলামের প্রচারক আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (স) সম্পর্কে বেয়াদবি পূর্ণ কথা বলবে এবং তা প্রচার করবে।
তুমি ইসলাম সম্পর্কে জানলেনা। কোরআনের একটা আয়াত পড়লে না বা তার অর্থ বুজতে চেষ্টা করলে না। ইসলামের ইতিহাস জানলেনা, নবীর জীবনী পড়লে না। পড়লে না সাহাবাদের জীবনী। পড়লে না হাদিসের গ্রন্থ গুলি।
অথচ আমাদের মত নামে মুসলিম কিছু কুলাঙ্গারের চরিত্র ও ওদের কাজকর্ম দেখে তুমি ইসলাম কে গালি দিবে , নবী সম্পর্কে বেয়াদবি পূর্ণ কথা লিখবে, এ কেমন কথা ।আর এ কেমন তোমার আধুনিক শিক্ষা।
একজন মুসলিমের অপরাধের শাস্তি কেন ইসলাম বহন করবে। যেমন তুমি তোমার বাবার ঘুষের, খুনের বা অন্য কোন অপরাধের শাস্তি কি তুমি বহন করবে?
তেমনি মুসলিম হিসেবে আমার অপরাধ শুধু আমার। এজন্য কোন ভাবেই ইসলাম দায়ি নয়। অথচ তোমরা ভাঙ্গা চোরা কিছু মুসলিমের দোষের জন্য ইসলামকে গালি দিচ্ছ। তা তোমরা (যারা নাস্তিক বল নিজেদের কে) দিতে পার না।
তুমি নিজেকে মানবতা বাদি বল এবং তোমার লিখায় মানবতা সম্পর্কে চিল্লা ফাল্লা কর। অথচ সবচেয়ে মানবতা বাদি ও মানবতার রক্ষক ইসলাম ও নবী (স) সম্পর্কে বাজে কথা বল।এ কেমন তোমাদের নীতি, মানবতা বোধ, শিক্ষা ও চরিত্র।

( ইসলামের প্রথম দিকের ইতিহাস গুলি একটু পড়ে দেখার অনুরধ করছি। মুসলিম কোন ইতিহাসবিদের বই না পড়ে অমুসলিম ইতিহাস বিদদের আরবের উপর লিখিত ইতিহাস গুলি পড়ুন, এতে নিরপেক্ষতা বজায় থাকবে )

তুমি মানবতা বাদি , প্রচারক, রক্ষক ওকে , তাতে আমাদের বিশ্বাসী মুসলিমদের সাথে তুমি নাস্তিক বলে , আমাদের কোন শত্রুতা নেই। তোমরা আজ ঘোষণা দাও তোমরা যা ইসলাম সম্পর্কে বলছ বা লিখছ এগুলি ভুল। দেখ কাল আমরা তোমাদেরকে বুকে জড়িয়ে ধরব।
অথবা ইসলাম সম্পর্কে তোমরা বাজে কথা বলা ও লিখা বন্ধ কর আমরা তোমাদের কে একটা ফুলের টোকাও দিবনা।
তোমাদের কোন বিষয়ে সন্দেহ থাকতেই পারে, কোন বিষয়ে খটকা লাগতেই পারে……… আমাদের মত কম যানা মুসলিমদের আচার আচরণ ও কাজ হতে। এজন্য তুমি প্রশ্ন করতে পার ভাল একজন ইসলামি স্কলার এর কাছে।
এদের কাজের জন্য তোমরা ইসলামকে দোষ দিতে পার না বা পারনা ইসলামের কুৎসা রটনা করতে , পারনা প্রিয় নবীর সম্পর্কে খারাপ কথা বলতে। আমরা সাধারণ ১০-২০ জন মুসলিম ইসলাম নই। তাই আমাদের ভুলের জন্য তোমরা ইসলামকে গালি দিবে তা বিশ্বাসী এক মুসলিমও মেনে নেবে না।
আমাদের ভুলের জন্য তোমরা আমাদের সমালোচনা কর, আমাদের কুৎসা রটাও, আমাদের চরিত্র নিয়ে কথা বল। নো প্রব্লেম।

তোমরা মানবতার কথা বলছ, ভাল কথা বলছ সকলে আমরা তোমাদের পাশে আছি। আমরা যে কোন ভাল কাজে তোমাদের সহায়তা করব।যা মানবতার ধারক ও বাহক ইসলাম ও নবী মুহাম্মদ (স) শিক্ষা। যতক্ষণ পর্যন্ত তোমরা ইসলাম কে টার্গেট করে কিছু না করবে বা বলবে আমরা তোমাদের স্বাগত জানব।

আমার তো মনে হয় তোমরা ক্ষণিকের পার্থিব লোভে পড়ে প্রচারনার আসায় মিডিয়ার সেলিব্রেটি হবার জন্য সবচেয়ে সহজ পথটাকে বেছে নিয়েছ। কারন বর্তমান সময়ে মিডিয়ায় আলোচিত হতে বা সেলিব্রেটি হতে শুধু দরকার ইসলামের সমালোচনা করা বা ইসলাম সম্পর্কে কটু কথা বলা।
তোমরা ইসলামকে জানলেনা , কোরআন কি বলছে তা বুজলেনা, না বুজে না যেনে লেগেছ ইসলামের বিরুদ্ধে।
তোমরা ইসলাম কে বুঝ , কোরআন পড়, হাদিস পড় এবং প্রচার কর দেখ শুধু আমাদের দেশ না বিশ্ব জোড়া সেলিব্রেটি তে পরিণত হয়েছ তোমরা।
সব শেষ কথাঃ যুগে যুগে বিশ্বের সবদেশে সব আমলেই বাতিল শক্তি ছিল এবং বাতিলের লম্ফঝম্প ও চমকানি সব সময় ভাল হয়। তবে এই চমকানিতে কোন কাজ হবে না। কারণ চৌদ্দশ’ বছর ধরে বাতিল শক্তি চেষ্টা করেও ইসলামকে ধ্বংস করতে পারেনি; এখনও পারবে না ইনশাআল্লাহ।#

২৪৫জন ২৪৫জন
0 Shares

৩টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ