যাতনা কাহাকে বলে….

বন্যা লিপি ৫ মে ২০২১, বুধবার, ১২:৩০:৫১পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৮ মন্তব্য

কীযে দিনকাল যাচ্ছে!সে কেবল আমি টের পাচ্ছি হাড়ে হাড়ে। সেই আট বছর আগে একখানা বাটন ফোন নিয়ে নিশ্চিন্তে যাচ্ছিলো কেটে দিনকাল। শখের ঘোরে একখানা ফেসবুক আইডি খুললাম! তাও কী! তাও কোনোরকম দায় ছাড়াই নিরব নিরিহ প্রাণীর মত কেটে যাচ্ছিলাম। তারপর কী হলো? কোন সে মনে উঁকি দিলো….. আমি তো লিখতেও পারি!” শুরু হলো আগের ডিম, বগের ডিম লেখা।শখ গেলো বেড়ে, একটু একটু করে সাহস বাড়তে লাগল, নজরে পড়তে লাগলো অনেকের। তার মধ্যে একজন শিরিন হক। যিনি আমার সহপাঠি বন্ধুর সহধর্মিণী। তিনি আমার আগের ডিম বগের ডিম মার্কা লেখা উচ্চ মাত্রায়  ভাবতে দ্বিধা করছেন না।আমি জানিনা এত যোগ্যতা রাখে কিনা আমার লেখা! ধুর! এত ভাবলে কী চলে? আমার লেখার শখ,আমি লিখে যাই। জয়েন করিয়ে দিলো জাকপ নামক(জতীয় কবি পরিষদ) গ্রুপে। ২/১ টা লেখা দিয়েছি।  মন্তব্যের ধরন তখনো আমার বোধের বাইরে। ২/১ মাসের মধ্যে আমাকে তাঁদের প্যানেলে যুক্ত করে নিলো। আমি বিমূঢ়! বন্ধুপত্নীর জোড় জোড়াজুড়িতে একদিন ধৈর্যের মহা পরীক্ষা দিয়ে সেরা পাঠকের খেতাব হাসিল করতে হলো।তখনো বুঝিনি পেছনের কাহিনি কী?

এক ধাক্কায় পরিচালক পদে উপনিত করে দিলেন। অনলাইন ভিত্তিক এসব পরিচালকের দায়দায়িত্ব বুঝি তো না অষ্টরম্ভাও! বলে রেখেছি আগেই, আমারে দিয়া বেশি আশা করা চলবে না” ৬/৭ প্যানেলে প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক নিজেই এ্যাড করে নিয়েছেন! একেক সময় হুমকি ধমকি দেন পরিচালক সাহেব! নিষক্রিয় পরিচালকদের অব্যাহতি দেবেন🙂 আমি মহা খুশি হয়ে উঠি, এবার বুঝি আমারেও নিস্ক্রিতি দেবে! কিসের কী!! তাও আমারে বাদ দেয়না!!

এরপর কোনোনা কোনোভাবে টপকে পড়লাম এই আঙিনায়(সোনেলা)।  আমি ক্রমশ লেখায় ডুব দিতে শুরু করলাম নির্ভাবনায়। একে একে আমার শখ এখন নেশায় পরিনত। মোদ্দাকথা আমি লিখতে চাই। মাঝে মাঝে রাইটার ব্লক না কি বলে! খুব ভুগি ওতে। একটা শব্দও গোছাতে মনোকষ্টে ভুগি চরম রকম। সোনায় সোহাগা হয় তখন,যখন হাতের মোবাইল চরম নখরা করতে মুডঅন করে ফেলে।

ইতিমধ্যে জিসান ইকরাম ২ বছর আগে মোবাইল গিফট করে সহযোগিতা করেছেন লেখার জন্য।একরকম অভ্যস্থ্য হয়ে গেছি কি বোর্ড আর লেখার ঢংয়ে। দেদারসে নিশ্চিন্তে লিখছি।

সাংসারিক এবং নিজস্ব কিছু মানসিক বিষন্নতার খপ্পরে যখন পড়ি! লেখায় ধীরগতি আসে। তাও এতটাও নয়। যে মাসাধিক্যকাল অতিবাহিত হয়েছে।এবার কি হলো? মোবাইল এবার আমার উপর বেজায় নাখোশ হলো। পুরোরকম আমারে পাথারে ভাসালো।

একটু ভাবুন তো! আপনি লিখতে চাচ্ছেন যেভাবে, শব্দ আসছে মনের পৃষ্ঠায় যেমন করে, আপনি ঠিকঠাক তা ফুটিয়ে লিখতে পারছেন না, কেবল মাত্র কি বোর্ডের  অক্ষরের অপরিচিত ঘরবদলের কারনে। হয়ত কারো হয়না, আমার হচ্ছে এখন এমনটাই।

নতুন মোবাইল তো নিলাম! এখন সমস্যা কী? সবচে বড় সমস্যা আমি আমার ফেসবুক লগইন হতে পারছি না। পাস ভুলে গেছি! অন্য ডিভাইসে ফেসবুক লগইন করতে পারছি না। গুগল সার্চ করে সোনেলায় এলাম। এই এতখানি লেখা লিখলাম সম্পূর্ণ জিদ করে। কারন, শুরু তো করতে হবে!!!  না লিখলে অভ্যস্থ্যতায় অভ্যস্থ্য হব কি করে?

তবে এটাও সত্যি, আরো সময় লাগবে আমার, লেখায় ফিরতে,মন্তব্যে ফিরতে। আশা করি সাময়িক এই অসুবিধার জন্য সকলে আমাকে ক্ষমা করবেন।

 

২৮৫জন ১২৫জন
0 Shares

১৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য