মেলা, ফিরে এসো আবার ফুল-ঋতুতে

ছাইরাছ হেলাল ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২০, মঙ্গলবার, ০৭:৪৩:৪৯অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ২২ মন্তব্য

 

বই মেলা হেঁটে যায়, হেঁটে-হেঁটে যায় যুবক-যুবতি, বৃদ্ধ-বৃদ্ধা, শিশুরা,
কিশোর-কিশোরীরা, ঘন-বন্ধুত্বের আনন্দ চিত্তে, ব্যক্তিগত ভাবে,
আলাপচারিতায় মুখর হয়ে;
মজনুরা-ও;

দুজনকে দেখলাম, মনে হচ্ছে এই মাত্র ই খেয়ে টেয়ে এসেছে, সুস্থির ঢেকুর তুলছে-না,
বা দাঁত-ফাঁত! নাহ তাও খোঁচাচ্ছে না, শিওর আধ-পেটা!স্বীকার করবে-না,
সে আমি নিশ্চিত, শুধুই তিড়িং বিড়িং, নিরেট কিচ্ছু না; স্বচ্ছতায় প্রশ্নাতীত!
নেই এখানে কোন অনুঘটক-অনুপ্রাণনের অনুপ্রবেশ।

বলকাতে থাকা অস্থির কন-কনে ভাব মুখে, দুরন্ত-দুঃসাহস ধারালো মার্বেল চোখে,
আর চকচকে-ঝকঝকে দাঁতের জোরালো জোড়া-বন্ধুত্ব,
আপামর স্বচ্ছ-সুন্দরতায় প্রকট আনন্দ-দুষ্টতা লুকোতে পারে-না, পারেনি,
খরখরে গদ্যে; বন্ধুত্বে বন্ধুত্বতার পালন-পোষণ
প্রীতির-বাঁধন স্নেহ-শাসন এ এক অবিরাম সাধন-ব্যবস্থাপন।

হেঁটে যাচ্ছি,
অনবরত অবিরত কল-কল ছল-ছল, অগুনতিদের সাথে;
ঘোড়া কেন ডিমে তা দিচ্ছে না, শক্ত-বুটের গোড়ালি ঠুকে জানতে চাচ্ছে,
সেটি নিয়ে এখন-ও কেন কোন-ই গবেষণা হচ্ছে না,
এই সিরিজ ভাবনার বোঝা বয়ে চলছে মেলা-প্রাঙ্গনে;
সাক্ষাৎ খুলে রাখা এক গবেষণা-পত্র, সাথেই চলছি
মেলার পথে যেতে যেতে।

ঠিকরে আসা স্ফূর্তির আলোতে তাকিয়ে চলতে ভালোই লাগে/লাগছে;

এসো আবার ফিরে, মেলা,
এই বইয়ের প্রাঙ্গণে, প্রাণের-মেলায়, বেহুঁশের ফুরফুরে-মজনুদের সাথে,
সলজ্জ সান্ধ্য-বিকেলে, দুঃস্বপ্ন-বটিকা ছুঁড়ে ফেলে চিরতরে,
এ এক অক্ষর-স্রোত অগম্য দুষ্পাঠ্যতার ছলে;
আমি থাকি-বা-না –থাকি, আসি-বা-না-আসি।

ছবি……নেটের;

১৫৬জন ৩৫জন
3 Shares

২২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য