একটা সময় ছিলো যখন আমি ছোটবেলায় দেখতাম
মুমুর্ষ রোগীর রক্তের প্রয়োজন হলে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দেয়া হতো , পরের দিন মানুষ সেই পত্রিকা পড়ার সময় রক্ত প্রত্যাশি নিউজটি দেখতো এবং রক্ত দিতে যেতো কিন্তু এমনও হতো তত সময়ে রোগী মরে ভুত ।
বর্তমানে রক্তের প্রয়োজন হলে মানুষ ফেসবুকে শেয়ার করে এবং কিছু সময়ের মধ্যে রক্ত জোগার হয়ে যায় , অনেক সময় এমনও হয় সকালের পোস্ট একাধীক বার শেয়ার করার পরেও রক্তদাতার কাছে খবরটি পৌছালো রাতের বেলা , কারন সারাদিন কাজ কর্ম শেষ করে রাতে সে ফেসবুকে লগিং করেছে ।
তবুও অন্তত তথ্য পৌছানোর সময়টা অনেক কমে এসেছে ।

এবার বলছি সময়কে হাতের মুঠোয় এনে রক্ত প্রত্যাশি মুমুর্ষ রোগীর তথ্য কিভাবে একজন ডোনারের কাছে দ্রুত পৌছানো যায় ।
* ব্লাড এলার্ট * এমনই এক প্রযুক্তি যা খুব দ্রুত একজন রোগীর মেডিকেল ঠিকানা ও রক্তের গ্রুপ এর তথ্য সকল ডোনারদের মাঝে পৌছে দিতে সক্ষম ।

নিচের লিংকটি ব্লাড এলার্ট এর ফেসবুক পেইজের :
https://www.facebook.com/bloodalertbd

রক্ত নিয়ে কাজ করা রক্ত সৈনিক বা স্বেচ্ছাসেবকগন এই পেইজে মেসেজ দিয়ে প্রত্যাশিত রক্তের গ্রুপ ও রোগীর মেডিকেল ঠিকানা সহ যাবতীয় তথ্য ব্লাড এলার্ট কে সরবরাহ করে আর কিছু সময় পরই ব্লাড এলার্ট স্বয়ংক্রিয় প্রযুক্তিটি সকল ডোনারদের মোবাইলে ক্ষুদে বার্তা প্রেরন করার মাধ্যমে উল্লেখীত রোগীর তথ্যটি অবহিত করে ।
এভাবে সময় নস্ট না করে খুব দ্রুত একজন রোগীর তথ্য ডোনারদের মাঝে সরবরাহ হয়ে যায় ।
এখানে একটা বিষয় বলে রাখি শুধু মাত্র ফেসবুক পেইজে মেসেজ দেয়া ছারাও একজন স্বেচ্ছাসেবক নিচের লিংকে ক্লিক করে তথ্য সরবরাহ করতে পারবে :
http://goo.gl/lq7sxW
ব্লাড এলার্ট কিভাবে কাজ করে ?

ব্লাড এলার্ট প্রযুক্তিটি একটি কম্পিউটার সার্ভার এর মাধ্যমে চলমান থাকে , এই প্রযুক্তিটি দেখাশোনা করার জন্য একজন অপারেটর সার্বক্ষনিক নিয়োজিত রয়েছেন ।
যখনই কোন ফেসবুক মেসেজ বা এলার্ট পোস্ট এর মাধ্যমে কোন তথ্য আমাদের কাছে আসে তখনই অপারেট সেটাকে একটি কম্পিউটার প্রসেস পরিচালনার মাধ্যমে আমাদের তৈরী ব্লাড এলার্ট প্রযুক্তির সফ্টওয়্যারে ইনপুট করে ।
বুদ্ধিমান সফ্টওয়্যার প্রথমে রোগীর রক্তের গ্রুপ চেক করে , এর সে রোগীর মেডিকেল ঠিকানা অনুযায়ী রোগীর কাছে ধারে অবস্থানরত ডোনার খূঁজে বের করে তার মোবাইলে ১৬০ অক্ষরের একটি ক্ষুদে বার্তা প্রেরন করে যাতে রোগীর যাবতী তথ্য সহ রক্তের গ্রুপের কথা উল্লেখ থাকে । এখানে এটা বলাটা জরুরী যে , ডোনারদের রক্তের গ্রুপ ও মোবাইল নং আগে হতেই ব্লাড এলার্ট এর শক্তিশালী ডাটাবেজে সংরক্ষন থাকে এই ডাটাবেজে আপ্নার রক্তের গ্রুপ ও মোবাইল নং প্রদান করে নিবন্ধিত হতে চাইলে এই লিংকে ক্লিক করুন ।
http://goo.gl/Lz1Mwf

প্রাথমিক পর্জায়ে আমরা সকল গ্রুপের রক্তের তথ্য সকল গ্রুপের ডোনারদের মাঝে প্রেরন করছি কারন প্রযুক্তিটি নতুন হওয়ায় এর ব্যবহার বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে সকলের কাছে মেসেজ যাওয়া উচিত বলে আমরা মনে করি । একসময় আমরা শুধু মাত্র নির্দিস্ট রক্তের গ্রুপ ও রোগীর মেডিকেল ঠিকানার কাছে অবস্থানরত ডোনারদের মাঝে ক্ষুদ্রে বার্তা প্রেরন করবো ।

একটা প্রশ্নের সন্মুখীন হচ্ছি নিয়মিত
আমাদের নিজস্ব কোন সাইট নেই কেন ? আর নিজস্ব সাইটে নিবন্ধন বা এলার্ট পোস্ট ফর্ম না রেখে কেন গুগল ডক ব্যবহার করা হলো ! আমাদের উত্তরটি হলো , বর্তমানে যে কোন মানুষ অনলাইন বা ইন্টারনেট বিষয়ে আগের চেয়ে বেশি সচেতন , আমাদের নিজস্ব সাইটের লিংকের চেয়ে গুগলের লিংক তাদের কাছে বেশি নিরাপদ ও গ্রহনযোগ্য বলে মনে হবে তাই গুগল ডক ব্যবহার করা হচ্ছে ।
তবে খুব দ্রুত আমরা নিজস্ব সাইট হতেও নিবন্ধন ও এলার্ট পোস্ট গ্রহন করা শুরু করবো ।

এবার পরিচয় করিয়ে দিচ্ছি আমাদের * ব্লাড এলার্ট * এর লোগোর সাথে :

এই লোগোটির একটি সুন্দর ব্যাখ্যা আছে :
• লোগোতে 16 দিয়ে স্বাধীন বাংলার গৌরব ঘোষনা করা হচ্ছে প্রথমেই ,
• রক্তের ফোটার মাধ্যমে রক্ত বিষয়ক কর্মসুচী ঘোষনা ,
• পরিশেষে 16 এবং রক্তের ফোটার মাধ্যমে 0 দৃশ্যমান ১৬০ যা কিনা ক্ষুদে বার্তার মাধ্যমকে ব্যবহারের প্রকাশ করা হচ্ছে , ( একটি ক্ষুদে বার্তা ১৬০ অক্ষরে সমাপ্ত হয় )
• বিভিন্য ইংরেজী অক্ষর সমুহ সকল গ্রুপের রক্তের প্রতিক ও সকল মানুষের সেবায় কাজ করে যাওয়ার প্রতিজ্ঞ্যা করছে ,
• সবুজ অক্ষরগুলো ও লাল অক্ষরগুলো দিয়ে জাতীয় পতাকার একটি প্রতিচ্ছবি ফুটিয়ে তুলে প্রযুক্তিটি বাংলাদেশের মানুষের জন্য কাজ করে যাবার অঙ্গিকার করছে ।
• নিচে ** Blood Alert ** শব্দটি দিয়ে পদ্ধতিটিকে পরিচয় করিয়ে দেয়া হচ্ছে ,
লোগোর আইডিয়া এবং ডিজাইন : নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ছোট ভাই উল্লেখ্য এটাই তার প্রথম ফটোশপ কাজ যা কোথাও ব্যহৃত হচ্ছে ।

আমাদের তৈরী এই প্রযুক্তিটি সম্পুর্ন বীনামুল্যে ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে । রক্ত নিয়ে কাজ করা যে কোন স্বেচ্ছাসেবক বা রক্তসৈনিক সংগঠন এই প্রযুক্তিটি ব্যবহার করতে পারবে ।
উল্লেখ্য প্রযুক্তিটি বর্তমানে রক্ত নিয়ে কাজ করে যাওয়া সংগঠন গুলোর বিকল্প বা প্রতিদ্বন্দি নয় । মুলত বর্তমানে রক্ত নিয়ে কাজ করে যাওয়া সংগঠন গুলোেএকটি শক্তিশালী হাতিয়ার হিসাবে কাজ করে যাওয়ার জন্যই তৈরী করা হয়েছে ।
তাই আমি আহবান করছি সকল সংগঠন ও স্বেচ্ছাসেবকদের প্রতি আপ্নারা এই প্রযুক্তিটি ব্যবহার করুন এবং আপ্নাদের কাজকে আর গতীময় করে তুলতে এর বেশি বেশি প্রচার করুন ।
আমাদের প্রযুক্তিটির সুবিধা পেতে বীনামুল্যে নিবন্ধন করুন এই ঠিকানায় :
http://goo.gl/Lz1Mwf

সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে ব্লাড এলার্ট বিষয়ক ছোট্ট এই তথ্যমুলক লেখাটি শেষ করছি ।
ঈদ মোবারক 🙂

0 Shares

৩৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ