মুক্তিযুদ্ধকালীন গান

সাবিনা ইয়াসমিন ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, সোমবার, ১২:০১:৩৩পূর্বাহ্ন এদেশ ৩৪ মন্তব্য

১৯৭১ সনের মুক্তিযুদ্ধ আরম্ভ হলে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের সমস্ত পেশা এবং শ্রেনীর মানুষ এদেশের স্বাধীনতার জন্য মুক্তিযুদ্ধে যোগদান করেন। কৃষক, শ্রমিক, ছাত্র, চাকুরীজীবী, পুলিশ, আনসার, সেনাবাহিনীর সদস্য, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, সরকারী আমলা, সাহিত্যিক,  কন্ঠ শিল্পী, নাট্যকর্মী, সিনেমা সংশ্লিষ্ট শিল্পী, খেলোয়ার, সংবাদ কর্মী, রেডিও কর্মী, সংবাদ পাঠক ইত্যাদি পেশার মানুষ যার যেমন ক্ষেত্র, সেসমস্ত ক্ষেত্রে অবদান রাখার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা চালান।

শিল্পীদের একটি বড় অংশ স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র এর মাধ্যমে গান পরিবেশন করে মুক্তিযোদ্ধাদের এবং আশ্রয়হীন বাঙ্গালীদের মনোবল বৃদ্ধিতে ভুমিকা রাখেন। স্বাধীন বাংলা বেতারকেন্দ্র হয়ে ওঠে মুক্তিপাগল বাঙ্গালীদের মনের জোর প্রতিষ্ঠার প্রিয় এবং প্রধান মাধ্যম। প্রায় সমস্ত বাঙ্গালীরা চুপি চুপি এই স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের অনুষ্ঠান শুনতেন। এম আর আখতার মুকুল উপস্থাপিত চরমপত্র অনুষ্ঠানটি অত্যন্ত জনপ্রিয় ছিল।

মুক্তিযুদ্ধকালীন স্বাধীন বাংলা বেতারকেন্দ্র থেকে যে সমস্ত গান বাঙ্গালীদের প্রেরনার উৎস হয়ে উঠেছিল তার কিছু তালিকা এবং গানের লিংক নীচে দেয়া হলো।

১। জয় বাংলা বাংলার জয়, হবে হবে হবে নিশ্চয় 

২। বিচারপতি তোমার বিচার করবে যারা, আজ জেগেছে এই জনতা 

৩। তীর হারা সেই ঢেউ এর সাগর পাড়ি দেব রে 

৪। মা গো ভাবনা কেনো, আমরা তোমার শান্তি প্রিয় শান্ত ছেলে 

৫। ছালাম ছালাম হাজার ছালাম, লাখো শহীদের স্মরণে 

৬। মোরা একটি ফুলকে বাঁচাবো বলে যুদ্ধ করি 

৭। মুজিব বাইয়া যাও রে……নির্যাতিত দেশের মাঝে জনগনের নাও 

৮। শোনো একটি মুজিবরের থেকে লক্ষ মুজিবরের কণ্ঠস্বরের ধ্বনি 

৯। আজি বাংলাদেশের হৃদয় হতে 

১০। কারার ঐ লৌহ কপাট 

১১। এই শিকল পরা ছল মোদের এই 

১২। বিজয় নিশান উড়ছে ঐ বাংলার ঘরে ঘরে 

১৩। চাষাদের মুটেদের মজুরের, গরীবের, নিঃস্বের, ফকিরের 

১৪। পূর্ব দিগন্তে সূর্য উঠেছে, রক্ত লাল রক্ত লাল রক্ত লাল 

১৫। নোঙ্গর তোলো তোলো সময় যে হোলো হোলো 

১৬। গেরিলা আমরা আমরা গেরিলা 

১৭। জনতার সংগ্রাম চলবে, আমাদের সংগ্রাম চলবেই চলবে  

এই সমস্ত গানগুলো ১৯৭১ সনে মুক্তিযোদ্ধা সহ সকল মুক্তিকামী জনতার মাঝে অসীম প্রেরণা জুগিয়েছিল। স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের সংগীত শিল্পী গন ট্রাকে করে প্রতিদিন শরনার্থী শিবির গুলোতে গান পরিবেশন করে শরনার্থীদের প্রেরণা যোগাতেন।


গান যে একটি যুদ্ধের জন্য কত বড় ভুমিকা পালন করতে পারে তার প্রমাণ পাওয়া যায় জর্জ হ্যারিশন এবং রবি শংকর আয়োজিত আমেরিকার নিউইয়র্কের রেডিসন স্কয়ার গার্ডেনে ১ আগষ্টে অনুষ্ঠিত ‘ কনসার্ট ফর বাংলাদেশ ‘ এর মাধ্যমে। প্রায় চল্লিশ হাজার শ্রোতার সামনে জর্জ হ্যারিসন এবং তার বন্ধুদের আহুত কনসার্টে জর্জ হ্যারিসন গেয়ে ওঠেন তার ঐতিহাসিক গান বাংলাদেশে বাংলাদেশ   
একঘন্টা বত্রিশ মিনিটের এই কনসার্ট সমগ্র বিশ্ব বিবেককে নাড়া দিয়ে যায়। ভারতে আশ্রিত শরণার্থীদের সাহায্যার্থে অনুষ্ঠিত কনসার্টে প্রাপ্ত সমস্ত অর্থ শরনার্থী তহবিলে জমা হয়। বাঙ্গালীদের উপর পাকিস্থানীদের নির্মম হত্যাকান্ড, ধর্ষন, অগ্নিকান্ডের ঘটনা বিশ্ববাসীর নজরে আসে।

ঐ কনসার্টে জোয়ান বয়েজ নামক এক মার্কিন গায়িকা “স্টোরি অফ বাংলাদেশ” গানটি পরিবেশন করেন। গানটিতে বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধ, পাকিস্তানের গণহত্যা, বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্ত্রহীন ছাত্রদের হত্যার কথা উঠে আসে।

আমেরিকার বিখ্যাত কবি এলান গিন্সবার্গ সেপ্টেম্বর ৭১ এ যশোরের বনগা সিমান্ত দেখতে আসেন। তার সাথে ছিলেন সাহিত্যিক সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়। তিনি শরণার্থীদের দুর্দশা দেখে লেখেন একটি ঐতিহাসিক কবিতা, যে কবিতাটি পরবর্তীতে গান হিসেবে প্রচার হয়েছিল সারা বিশ্বে।  সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড নামের ঐতিহাসিক কবিতার কিছু লাইন- গানের লিংক

Millions of souls nineteenseventyone
homeless on Jessore road under grey sun
A million are dead, the million who can
Walk toward Calcutta from East Pakistan

Taxi September along Jessore Road
Oxcart skeletons drag charcoal load
past watery fields thru rain flood ruts
Dung cakes on treetrunks, plastic-roof huts

Wet processions Families walk
Stunted boys big heads don’t talk
Look bony skulls & silent round eyes
Starving black angels in human disguise

এই কবিতাটিই গান হিসেবে পরবর্তীতে পরিবেশন করেন মৌসুমী ভৌমিক বাংলায় 

সংগীত কিভাবে একটি জাতিকে উদ্দীপ্ত করতে পারে তা স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রে প্রচারিত গান এবং জর্জ হ্যারিসন, রবিশংকর, বব ডিলান, জোয়ান বয়েজ এবং অন্যান্যদের সম্মিলিত কনসার্ট থেকে প্রমাণ পাওয়া যায়।

১৯৭১ সনে নিহত ত্রিশ লক্ষ মানুষ এবং সম্ভ্রম হারান তিন লাখ নারীকে আমার এই পোষ্ট উৎসর্গ করলাম।

৪৬৮জন ১১৪জন
116 Shares

৩৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য