মা….. প্রথম পর্ব //

বন্যা লিপি ২৯ মার্চ ২০২০, রবিবার, ০৫:৩০:১১অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ২৯ মন্তব্য

ছোটোবেলা থেকে মেয়েটা খুব ভয়কাতুরে। অদ্ভূত টাইপের ভয়! কেন বলছি অদ্ভূত টাইপ ভয়? বলছি…..তার আগে আমার কথা বলি। খুব রাগি টাইপ মানুষ আমি। অল্পতেই বড্ড রেগে যাই। এই রাগ বংশগত বলা চলে, যাকে বলে জেনেটিক্যালি। যাইহোক সেদিকে যেতে গেলে পৃষ্ঠায় টান পরে যাবে। মেয়েটার জন্মের পর আম্মা পই পই করে বলতেন, এটা করা যাবে না, সেটা করা যাবে না। যুক্তি তর্কের ধারেকাছে না গিয়ে ঠোঁটের টুঁটি বন্ধ করে নির্ধিদ্ধায়, বিনা বাক্যব্যয়ে মেনে যাই সব। প্রথম সন্তান জন্ম দেবার জন্য সাধারনত আমাদের বাঙালী রিতী অনুযায়ী অথবা রিতীনিতী ছাড়াই হোক, মেয়েরা এসময়টা মা’য়ের কাছে থাকতে বেশি ভরসা বা স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে। আমিও তার ব্যতিক্রম নই। আমার পুরো পরিবারের মানুষজনের মাঝে আমি অনেকখানি ভরসা আর নির্ভরতায় থাকাটাই আমার স্বস্তি।
মেয়েটার জন্ম হলো আল্লাহ্ র অশেষ মেহেরবানিতে চাররাত আর তিনটা দিন কষ্টভোগ করার পর। জন্মের পরে ১০ থেকে ১৫ মিনিটে কান্নার আওয়াজ পাইনি।দেখতেও পরছিলাম না। একটা আর্তচিৎকার শুনেছিলাম শুধু আম্মা’র……এত কষ্টের পর এইয়া?” বুঝতে পারছিলাম না, ঘটনা কি? আমাকে বুঝতে দেয়া হয়নি। ১৫/২০ মিনিট পরে কান্নার আওয়াজ এবং আমার বুঝতে পারা… আমি কন্যা সন্তানের মা হয়ে জন্ম নিলাম নতুন করে আরেকবার এ পৃথিবীতে। প্রতিটি মেয়ে বা নারী’র জন্মই বোধ করি দ্বিতীয়বার হয়, এই মা হওয়ার মধ্য দিয়ে। সে অনুভূতি প্রকাশ করার মতো ভাষা বা শব্দেরা কখনোই প্রতুলতার পর্যায়ে পরে না বলে আমি মনে করি।

প্রায় দেড় দুই ঘন্টা পরে আমার কাছে নিয়ে এলেন আমার কন্যা সন্তানকে আম্মা। আমি বিস্ময়ে তাকিয়ে আছি কাঁথায় মোড়ানো কুট্টি কুট্টি হাত,মুখ,ভ্রু,বন্ধ একজোড়া চোখ,ঠোঁট,নাক।একটা মাংসপিন্ডের আদল নাকি আমার ভেতরের একটা রক্ত মাংসের অস্তিত্বের অংশ! মুহুর্তেই কি আমার অস্তিত্তের পরিবর্তন হয়ে গেলো? কোথায় থাকে মানবদেহের অনুভূতির মরমস্পর্শী এক ছোট্ট কুঠুরির মতো অনুভূতি? সমস্তটা ঝাঁপিয়ে নেমে আসে সেখান থেকে, চোখ হয়ে যায় মা’য়ের চোখ,ঠোঁট হয়ে যায় মা’য়ের ঠোঁট, বুকের কাছে দেবার পরই অনুভূতিগুলো ওলটপালট হয়ে যায় একটা কিশোরী অথবা কৈশোরত্তীর্ণ নারী’র। সমস্ত আবেগ এসে জড়ো হয় নিজের ভেতরের অস্তিত্বের অংশের কাছে…।
আমার আম্মা কি বুঝতে পেরেছিলেন আমাকে দেখে?
আমার মনে কি চলছে?

:এই….খবরদার মাইয়ার দিকে ওই রহম চাইয়া থাকপি না, ওতে মা’য়রও নজর লাগে।

চলবে….

১৭১জন ৪৪জন
6 Shares

২৯টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য