আজ ১৬ জানুয়ারী ঢাকা এবং বরিশাল বিভাগের লটারি অনুষ্ঠিত হয়েছে । ১০০ ভাগ বিশুদ্ধ কম্পিউটারাইজড লটারি ।

প্রথম পর্যায়ে সরকারী উদ্যেগে সারা দেশ থেকে ইউনিয়ন এর জনসংখ্যার ভিত্তিতে কোটা নির্ধারণ করা আছে।
কোনো মন্ত্রী , এম.পি , চেয়ারম্যান বা অন্য কারো জন্যই কোন কোটা নাই।
এই মুহূর্তে খরচ মাত্র ৫০ টাকা।
নির্বাচিত হলে ৪২০০০/= টাকা প্লেন টিকেট সহ।
বেতন ৯০০ মালয়েশিয়ান ডলার। যা আমাদের দেশের টাকায় প্রায় ২৫০০০/= টাকা।

প্রতি ইউনিয়ন পরিষদে ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্র আছে। ওখানে গিয়ে ৫০ টাকায় একটি ফর্ম কিনে রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে। ইউনিয়ন থেকেই ঢাকা পাঠিয়ে দেয়া হবে ঐ মুহূর্তেই। আর কোন খরচ নেই। যেহেতু কৃষি কর্মী – তাই পৌরসভায় এটি জমা হবে না। সেক্ষেত্রে পৌরসভার ইচ্ছুক ব্যাক্তি গন আসে পাসের ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে করাতে পারবেন।

যেসব বিভাগে এখনো সুযোগ আছে
রাজশাহী , রংপুর , সিলেট বিভাগ : রেজিষ্ট্রেশন ১৬ থেকে ১৮ জানু: ফলাফল : ১৯ জানুয়ারী ।
চিটাগং , খুলনা বিভাগ : রেজিস্ট্রেশন ১৯ থেকে ২১ জানু: ফলাফল : ২২ জানুয়ারী ।
ফলাফলের দিন জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে যাওয়া যেতে পারে।মাইক লাগিয়ে ফলাফল ঘোষণা করা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।
১০০ ভাগ বিশুদ্ধ লটারি । দেখতেও ভালো লাগবে।
এ ব্যতীত তাৎক্ষণিক ভাবে সংশ্লিষ্ট জেলার তথ্য সাইটে ফলাফল দিয়ে দেয়া হচ্ছে , টিএনও অফিসে পাঠানো হবে , টিএনও পাঠাচ্ছেন ইউনিয়ন পরিষদে। বেশ ভালো একটা টিম ওয়ার্ক । সরকারের ডিজিটাল টিমের কাজ দেখে আমি ইমপ্রেসড হলাম বেশ।

আপনি যদি আরও একটু দেশ সেবা করতে চান , তাহলে আপনার ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কে পরামর্শ দিতে পারেন , একটি জেনারেটর রাখতে । বিদ্যুৎ না থাকলেও যাতে ল্যাপটপটি চালানো যায় এবং সার্বক্ষণিক তথ্য যোগাযোগটি বজায় থাকে।

আপনাদেরই পরিচিত একজন মানুষ শুধু এই পরামর্শটা দিয়েছিল কয়েকজন চেয়ারম্যান কে। যা অত্যন্ত কার্যকরী বলে প্রমাণিত হয়েছে।

আসুন ‘ শুধু আমি না , আমার আসে পাসের গরীব লোকজন নিয়ে ভালো থাকি ‘ – এই মনোভাব নিজের মাঝে ধারন করি

২০৪জন ২০৪জন
0 Shares

৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য