সোনেলা দিগন্তে জলসিড়ির ধারে

নীলাভ আলোর ঝলকানিতে গোধূলি রঙিন- 

আমার বিমুক্ত বুকের জমিনে স্যাঁৎস্যাতে শৈবালের চাষ

পাথুরে দেয়ালে বাজে ঠক-ঠক এই অবেলায় 

অস্তমিত সূর্য্যের ঈষৎ আলোয় – উড়ে যায় বুনো বালিহাঁস ।

নীলাকাশ সমুদ্রের ছাউনী হয়ে নেমে গেছে দূরের দিগন্তে

উত্তাল ঢেউয়ের খেলায় মেতেছে যে বুক,

পানকৌড়ির ডানায় ভর করে স্বপ্ন উড়ে যায়- ডুবে যায়;

ক্ষণে ক্ষণে, আবছায়া আলোয় দেবীর মায়াবী সে মুখ ।

কখনো দেখেছি তারে পৌষের খুব ভোরে সোনালী সে –

ঊষার আলোয়,

কখনো দেখেছি তারে রূপালী জোছনা মেখে 

বাসন্তী সে রাতের কালোয় 

চঞ্চলা মুখখানি আবছায়া অন্ধকারে-

দেখিনি কখনো সে কতখানি ভার

শত মাইল দূরে থেকে কেন জানি মনে হলো- 

হাসির আড়ালে তার ভীষণ অন্ধকার।

 

অনন্য অর্ণব

ধর্মপুর, সদর, নোয়াখালী।

১৭৩জন ১১জন
0 Shares

১১টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য