শুদ্ধতম আত্মার সন্ধান বন্ধুর
সেই কবে থেকে নিজকে পুড়িয়ে শুদ্ধ করার বাসনা ধারণ করে আছি
আলোর উৎসের কাছে ছুটে গিয়েছি বারবার অনেকবার
কাছাকাছি হয়েছি বা হয়ত বহুদুরেই থেকেছি তেমন শুদ্ধতা থেকে
নিজকে দহন স্পৃহা যেন আমার অন্য অস্তিত্বের যাতনা,আকাঙ্খা।

কেন গেলাম এই মহান সাধকের কাছে ? এখানে দেয়া গান তিনটির মাঝে উত্তর আছে আমার।

-{@

গুরুর দয়া যারে হয় সেই জানে

যে রূপে সাঁই বিরাজ করে দেহ ভুবনে
দয়া যারে হয় সেই জানে ।।

জলের বিম্ব জলের উপর
আখন্ড প্রলয়ক মাঝার
বিন্দুতে হয় সিন্ধু তাহার
ধারা বয় ত্রিগুণে
দয়া যারে হয় সেই জানে ।।

শহরে সহস্র পাড়া
তিনটি পথ তার এক মহড়া
আলেক ছায়ার পবন ঘোড়া
ফিরছে সে পথে
দয়া যারে হয় সেই জানে ।।

হাতের কাছে আলেক শহর
রঙবেরঙের রটছে লহর
সিরাজ সাঁই কয় লালন রে তোর
সদাই ঘোর মনে
দয়া যারে হয় সেই জানে ।।

-{@

আমার হয় না রে সে মনের মত মন

কিসে জানবো সেই রাগের করণ
আমি জানবো কি সে রাগের করণ
আমার হয় না রে সে মনের মত মন ।।

পোড়ে রিপু ইন্দ্রিয় ভোলে
মন বেড়ায় রে ডালে ডালে
দুই মনে এক মন হইলে
এড়া্য শমন
আমার হয় না রে সে মনের মত মন ।

রসিক ভক্ত যারা মনে মন মিশালো তারা
শাসন করে তিনটি ধারা
পেল রতন
আমার হয় না রে সে মনের মত মন ।।

কবে হবে নাগিনী বস সাধবো কবে অমৃত-রস
সিরাজ সাঁই কয়, নিষেধে নাশ
হলি লালন
আমার হয় না রে সে মনের মত মন ।।

কিসে জানবো সে রাগের করণ
ও কিসে জানবো সেই রাগের করণ
হয় না রে সে মনের মত মন
আমার হয় না রে সে মনের মত মন ।।

-{@

এলাহি আলমিন গো আল্লাহ বাদশা আলম পানাহ তুমি

তুমি ডুবাইয়া ভাসাইতে পার
ভাসায়ে কিনার দাও কারো
রাখ মার হাত তোমারো, তাইতো তোমায় ডাকি আমি।

নূহু নামে এক নবীরে, ভাসালে অকুল পাথারে
আবার তারে মেহের করে আপনি লাগাও কিনারে
জাহের আছে ত্রি-সংসারে, আমায় দয়া কর স্বামী।

নিজাম নামে (এক) বাটপাড় সে তো, পাপেতে ডুবিয়া রইত
তার মনে সুমতি দিলে, কুমতি তার গেল চলে
আউলিয়া নাম খাতায় লিখিল, জানা গেল এই রহমী।

নবী না মানে যারা, মোয়াহেদ কাফের তারা
সেই মোয়াহেদ দায়মাল হবে, বেহিসাব দোজখে যাবে
আবার তারে খালাস পাবে ,
লালন কয় মোর কী হয় জানি। ।

এই গানটি সহ লালনের মোট আটটি গান শুনুন এখানে 

গানগুলো শুনতে শুনতে আপনি আপনার গভীরে কতটা যেতে পারেন,তা আপনার উপর নির্ভর করবে।
আমরা যেন প্রকৃত মানুষ হতে পারি।

0 Shares

২৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ