মন খারাপী প্রলাপ

খাদিজাতুল কুবরা ৩১ জুলাই ২০২২, রবিবার, ০৯:০৫:০৪অপরাহ্ন কবিতা ৭ মন্তব্য

এক পেয়ালা হেমলক দাও,

হাসতে হাসতে পান করি ওয়াইন ভেবে, ঢলে পড়ি মৃত্যুর সরোবরে!

সামনে থেকে সরবেনা কেউ , যতক্ষণ না চোখ বুঁজে আসে!

সাধের জনম পরাধীন ছিল আজ তাকে মুক্ত করে দিলাম।

হংসমিথুন হয়ে বাঁচতে না পারা মৃত্যুর চেয়ে নির্মম!

আজ আর পরোয়া নেই, আপসোস নেই কোন আর, রপ্ত করা হয়নি বলে জীবনের  যত সহজ পাঠ।

একজীবনে সবার সব হয়না, আমার ও না হয় হলোনা।

ছেড়ে দিতে চাই সব  প্রিয়মুখ, প্রিয় জামা, প্রিয় বই, প্রিয় দুঃখের কেবিনেট।

শোকের ছায়া নামাবে আপনজনের চোখ!

হতে পারে তিরস্কারের দৃষ্টিহানার সুযোগ হাতছাড়া হওয়ার প্রতীক।

কিছু বৃক্ষের ছাল ছাড়িয়ে নিতে হয় প্রয়োজনে, আমিত বৃক্ষ ও নই।

তোমাদের পৃথিবীতে আমি কেবল অযাচিত মেঘ,

আমাকে দাও এক পেয়ালা হেমলক!

আমি নিঃশব্দে নিঃসৃত হতে চাই মৃত্যুর স্রোতে।

অনাদিকাল প্রোথিত ভালো মানুষের সংজ্ঞা, বৈশিষ্ট্য তা আমি অর্জন করতে পারিনি,

আমার বাঁচা মরায় একচুল ভাটা পড়বেনা চলমান-চিত্রে।

স্রেফ উবে যেতে চাই কর্পূরের উদ্বায়ী হাওয়ায়।

ভালো থেকো তোমরা সব!

বলোনা আবার “মাছের মায়ের পুত্রশোক”!

আমি এবং আমার সব ভুলে ভরা পাপেট !

একটা সত্যি আছে মানো বা না মানো,

তোমাদের জন্য ছিল আমার ভালোবাসার প্রস্রবণ।

জানি কেউ হেমলকের পাত্র এগিয়ে দেবেনা,

আমি ও দিব্যি বেঁচে থাকব।

কেউ জানবেনা-

এ যে এক আত্মাহুতি দেওয়া প্রাণহীন দেহবয়ব।

১৮২জন ৩জন
0 Shares

৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ