মনুসংহিতায় নারীর মর্যাদা

স্বপন দাস ১৯ জুন ২০১৪, বৃহস্পতিবার, ০৪:৫৪:০৮পূর্বাহ্ন বিবিধ ১৬ মন্তব্য

মনুসংহিতায় নারীর অধিকার :
————————-
বিশীলঃ কামবৃত্তো বা গুণৈর্বা পরিবর্জিতঃ
উপচর্যঃ স্ত্রিয়া সাধ্ব্যা সততং দেববৎ পতিঃ ||

অর্থ : স্বামী দুশ্চরিত্র, কামুক বা নির্গুণ হলেও তিনি সাধ্বী স্ত্রী কর্তৃক দেবতার ন্যায় সেব্য ।। ( ৫-১৫৪)

স্বামীর মৃত্যু হলে তার স্ত্রীর জন্য বিধান :

” কামন্তু ক্ষপয়েদ্দেহং পুস্পমূলফলৈঃ শুভঃ
ন তু নামাপি গৃহ্নীয়াৎ পতৌ প্রেতে পরস্য তু ||

অর্থ : বিধবা স্ত্রী সারাজীবন ফলমূলাদি খেয়ে দেহ ক্ষয় করবেন কিন্তু অন্য পুরুষের নামোচ্চারণ করবেন না ।।

এবারে দেখি স্ত্রী মারা গেলে স্বামীর জন্য কি বিধান —

” ভার্যায়ে পূর্বমরিণৈ দত্ত্বাগ্নীনন্ত্যকর্মণি
পুনর্দার ক্রিয়াং কুর্যাৎ পুনরাধানমেব চ ||

অর্থ : দাহ ও অন্তেষ্টিক্রিয়া শেষ করে স্বামী আবার বিয়ে ও অগ্নাধ্যান করবেন ।।

তবে নারীকে পতিতারও নীচে নামিয়ে এনেছেন স্বায়ম্ভুব মুনি নীচের শ্লোকটিতে । কোন স্ত্রী যদি সন্তান, বিশেষত পুত্রসন্তান জন্ম দিতে না পারেন অথবা স্বামীর যদি সন্তান জন্মানোর ক্ষমতা না থাকে সেটার বিধান ——

দেবরাদ্বা সপিন্ডাদ্বা স্ত্রিয়া সম্যং নিযুক্তয়া
প্রজেপ্সিতাধি গন্তব্যা সন্তানস্য পরিক্ষয়ে ||

অর্থ : সন্তান পরিক্ষয়ে অর্থাৎ সন্তান উৎপাদন না হওয়ায় বা সন্তান জন্মানোর পর তার মৃত্যু হলে অথবা শুধু কন্যাসন্তান জন্মালে এবং উক্ত নারী তার গুরুজন ( শ্বশুর, শ্বাশুরী, পতি) দের দ্বারা সম্যক ভাবে নিযুক্ত হয়ে – দেবর ( স্বামীর বড় বা ছোট ভাই) অথবা স্বপিন্ডের ( স্বামীর বংশের কোন পুরুষের সাহায্যে অভিলাষিত সন্তান লাভ করবে । ( ৯-৫৯ )

এর পরের শ্লোকে উক্ত সংগমের নিয়মও বলা আছে —
৯-৬০ : এক্ষেত্রে উক্ত ব্যক্তি শরীরে ঘৃত মর্দন পূর্বক মৌন অবস্থায় অন্ধকার কক্ষে একটি মাত্র পুত্র সন্তান উৎপাদন করবে — দ্বিতীয় পুত্র উৎপাদন করবে না।
অবশ্য সন্তান উৎপাদন না হওয়া পর্যন্ত এ ক্রিয়া চলবে ।।
——————————————–
আশার কথা সনাতন ধর্মাবলম্বীরা এই জঘন্যতম নিয়মাদি এমনিতেই পরিত্যাগ করেছে ।।

তবে এই নিয়মটি বেশ ভালভাবেই পালন করেছিলেন মহাভারতের শ্রেষ্ঠ চরিত্র পান্ডু — যিনি ছিলেন নপুংসক । তাই সন্তান লাভের জন্য নিজের দুই স্ত্রী — কুন্তী ও মাদ্রী কে তিনি পরপুরুষদের সাথে যৌনমিলনের অনুমতি দেন।
** কুন্তী – ধর্ম, বায়ু ও ইন্দ্রের সাথে মিলিত হয়ে জন্ম দেন — যুথিষ্ঠির, ভীম ও অর্জুন কে।
** মাদ্রী – অশ্বিনী কুমার এর সাথে মিলিত হয়ে জন্ম দেন নকুল ও সহদেব কে।

—– এরাই সেই পঞ্চপাণ্ডব —–

***★***★***★***★***★***

৫৮৫জন ৫৮৫জন
0 Shares

১৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ