মতিন মিয়া (০১)

রাফি আরাফাত ৩০ এপ্রিল ২০১৯, মঙ্গলবার, ১২:১০:২৫পূর্বাহ্ন গল্প ২২ মন্তব্য

বেশ গরম পরছে। তাপমাত্রা ৩৫° ডিগ্রি পার হয়ে গেছে বুঝি। কাঠফাটা রোদে কোথাও জনমানব নেই। সব বিরান ভূমি মনে হচ্ছে। কিন্তু মতিন মিয়া কি যেন ভেবেই যাচ্ছে। তার কাছে গরম নেই,নেই কোন ক্লান্তি,নেই দুনিয়ার চিন্তা। সে কি ভাবে তা সে নিজেই জানে না। পাগলের থেকেও বড় পাগল সে। এই মাঝ দুপুরে এতো গরমে সে কি ভাবতে পারে? আর যেখানে শান্তিতে বসে থাকা দায় হয়ে গেছে,সেখানে সে চিন্তায় নিমগ্ন। কি এমন চলে তার মনের মধ্যে? চলেন শুনে আসি তার কাছে।


মতিন মিয়া কি করেন? দেখতে পাচ্ছোই তো কি করছি আমি,আবার প্রশ্ন করার কি আছে? না আমারতো মনে হচ্ছে আপনি কিছু একটা ভাবছেন। মনে হওয়ার কি আছে, আমি তো ভাবতিছেই। কেন আমার চেহারা দেখে কি মনে হয় আমি এখন চুরি করছি? না তা অবশ্য ঠিক বলেছেন। হুম এখানে ভুল বলার কোন কারন নেই।

আচ্ছা এতো গরমে যেখানে শান্তিতে থাকা যাচ্ছে না, আর সেখানে আপনি চুপচাপ বসে ভাবছেন। কেন? কেন মানে? গরম পরলে কি ভাবা যাবে না? না যাবেনা কেন মতিন মিয়া,যাবে তো। কিন্তু একটা মানসিক ব্যাপার আছেনা। আচ্ছা যাই হোক আপনি এখন কি নিয়ে ভাবছেন? কেন তোমার কি মনে হয় আমি এই গরমে কিভাবে অনেক টাকা আয় করা যায় তা নিয়ে ভাববো? না তা তো না। তাহলে বলছো কেন? তুমি যা ভাবছো আমিও তাই ভাবছি।

আমি তো কিভাবে একটু শান্তিতে থাকা যায় তা ভাবছি মতিন মিয়া। আমিও তো তাই ভাবছি সাজু ভাই। আচ্ছা মতিন মিয়া আপনি সবসময় বিভোর থাকেন কেন? কই আমি বিভোর থাকি? ভাবনা গুলোই আমার উপর বিভোর থাকে। ওহ তাই নাকি? আচ্ছা মতিন মিয়া আপনি নিজেকে কি ভাবেন? আমি একজন অসাধারণ মানুষ ভাবি। অসাধারণ কেন? কেন আপনি জানেন না? না। সবাই নিজেকে সাধারণ বলে দাবি করে,কিন্তু কেউ অসাধারণ বলে দাবি করতে চায় না। আমি নিজেকে অসাধারণ বলে দাবি করতে চাই,যা অন্যরা পারে না,তাই আমি অসাধারণ।

আচ্ছা মতিন মিয়া তুমি কি জানো মানুষ তোমাকে পাগল বলে? মতিন মিয়া চুপ করে থাকে কিছু বলেনা। কি হলো কিছু বলছো না যে? সাজু ভাই আপনিও পাগল। কেন? পাগল কি কখনো যানে যে সে পাগল? তাহলে আমি পাগল হলে আমি কিভাবে জানবো? আপনি নিজেই তো পাগলের মতো প্রশ্ন করছেন। ( সাজু লজ্জায় মাথা নিচু করলো)

আচ্ছা মতিন মিয়া আপনি এখন কি ভাবছেন? আমি ভাবছি আজ রাতে বৃষ্টি হবে কিন্তু তার সাথে কি ঝরও হবে? আপনি কিভাবে জানলেন যে আজ রাতে বষ্টি হবে। এখন দিনে খুব গরম তাই রাতে খুব বৃষ্টি হবে। কিন্তু মতিন মিয়া দিনে গরম হওয়ার সাথে রাতে বৃষ্টি হওয়ার কি সম্পর্ক? হাসিও না বেশি,হাসির পরে কান্না আসে। হাসির পরে কান্না আসার কি সম্পর্ক?

মতিন মিয়া উঠে সামনে হাটতে থাকে। হয়তো আবার নতুন কিছু ভাবনায় মগ্ন। আজ যাই, আবার দেখা হবে তার সাথে একদিন। সেদিন যদি তার রহস্যের কারন জানতে পারি!

চলবে–

২৮৪জন ১১৫জন
1 Shares

২২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য