মৌলবাদের শিকড় কোথায় ??

বায়রনিক শুভ্র ২০ এপ্রিল ২০১৩, শনিবার, ০৯:৪৯:৫৬পূর্বাহ্ন বিবিধ ১৪ মন্তব্য

অনেকেই বলেন কোন  ধর্মই যুদ্ধের পক্ষে না । যারা ধর্মের নামে যুদ্ধ করে বা জঙ্গি কার্জক্রম চালায় তারা ভন্ড, তারা ধর্ম ব্যাবসায়ি এই কথাটি এখন আস্তিক নাস্তিক সবারই মুখে । কিন্তু আসলেই কি তাই?? ধর্ম বা ধর্মিয় গ্রন্থের কি যুদ্ধবাদ বা উগ্র বাদের ক্ষেত্রে কোন ভুমিকা নেই???

 

মৌলবাদের সুত্রপাত কিন্তু ধর্ম গ্রন্থ থেকেই হয় । পৃথিবীতে মুসলিম, খৃস্টান এবং ইহুদি ধর্মের সাথেই ধর্ম যুদ্ধ কথাটি যুক্ত আছে । হিন্দু ধর্মে ধর্ম যুদ্ধ না থাকলেও ধর্মীয় চরিত্রগুলো যুদ্ধ করেছে । অন্য কোন ধর্মের সাথেই যুদ্ধ যুক্ত নেই । এখানে দেখার বিষয় হচ্ছে মুসলিমদের সরাসরি ধর্ম ভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন আছে, যারা মানুষ খুন করে (আমার জানা ও দেখা মতে) । আর খৃস্টান,ইহুদি ও হিন্দু ধর্মের ধর্মীয় উগ্র সংগঠন থাকলেও এরা সরাসরি কল্লা কাটার সাথে জড়িত নয় । সবচেয়ে অবাক করা বিষয় এই ধর্মগুলো ছাড়া অন্য কোন ধর্মের জঙ্গি সংগঠন তো দূরে থাক ধর্মীয় উগ্র বাদী সংগঠনও নেই । তাই বলা যায়,যে ধর্মে চরম পন্থা কে যতটা গুরুত্ব দেয়া হয়েছে সে ধর্মে জঙ্গি বাদ ততটা বেশি দেখা দিয়েছে । আর পৃথিবীতে একটা ধর্মই আছে যা প্রতিষ্ঠা করতে যুদ্ধের প্রয়োজন হয়েছিল (নাম বললাম না, কারণ কেস খাওয়ার সম্ভাবনা আছে ) ।

আমাদের প্রতিবেশী দেশ ভারতকে বলা যায় জঙ্গিবাদের পুন্যভুমি । এই একটা দেশেই প্রায় ২/৩ টি ধর্মের উগ্রবাদি সংগঠন আছে । হিন্দুদের শিব সেনা ,বিশ্ব হিন্দু পরিষদ, বিজেপি উগ্র সংগঠন হিসাবে সর্বজনবিদিত । আবার মুসলিমদের লস্কর ই তইয়েবা , তেহরিক ফেডারেশন , জামায়েতে ইসলাম সারা বিশ্বের মানুষের কাছেই হ্নিংস্র ও মানুষ হত্যাকারী প্রতিষ্ঠান হিসাবে পরিচিত । আবার শিখ ধর্মেরও জঙ্গি প্রতিষ্ঠান আছে(জদিও এখন প্রায় নিস্ক্রিয়) ।

বাংলাদেশের কথা আর কি বলব । বাংলাদেশের বর্তমান ধর্মীয় মৌলবাদের অবস্থা সবার জানা, এবং এর জন্য আস্তিক-নাস্তিক,মুক্তমনা-ছাগু সবাই দায়ী ।

১৮৬জন ১৮৬জন
0 Shares

১৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য