ভাষা-আন্দোলন

সুপর্ণা ফাল্গুনী ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২০, শুক্রবার, ১২:০১:২৭পূর্বাহ্ন কবিতা ২৬ মন্তব্য

বায়ান্নর একুশে ফেব্রুয়ারি সালাম,বরকত,
রফিক, শফিকের বুকের তাজা রক্তে
রঞ্জিত ঢাকার রাজপথ।
ঝরে গেলো এক একটি লাল পলাশের পাপড়ি।
বন্দুকের গুলিতে ক্ষতবিক্ষত শবগুলো-
আচ্ছাদিত লাল রক্তের চাদরে।
পাখিদের কলকাকলি থেমে গেলো,
অমাবস্যার শ্নশানের ভূতুড়ে নিরবতা সঙ্গী করে।
শোকের মাতমে সিক্ত প্রতিটি বাঙালি।
মায়ের আঁচল সজ্জিত হলো সন্তানের রক্তকালিতে।
কপোল ভিজলো অগ্নিজলের ধারায়।
বিখ্যাত কোনো চিত্রশিল্পী বা আনাড়ি কোনো শিল্পীর
হাতের ছোঁয়ায় নয়-
রাজপথের ক্যানভাস অঙ্কিত সালাম,
বরকতের বুকের তাজা রক্তে।

বধূর কাঁকন ভাঙ্গলো গগনবিদারী আর্তনাদে।
বোন খুঁজে বেড়ায় ভাইয়ের আদর-শাসন।
অবুঝ সন্তানের চোখে এ এক অচিনপুরীর গল্প।
সে বোঝেনা কিছুই,
ফ্যালফ্যাল চোখে দেখে-
তার চারপাশের শোকবিধুর মুখগুলো ।
হারিয়ে যাওয়া সন্তানের রক্তেভেজা শার্ট,
দেয়ালে টাঙ্গানো ছবিটি যেন কথা বলে-
মায়ের অবচেতন মনের দ্বারে।
এক অনাকাঙ্খিত ভবিষ্যৎ-
অশনি সংকেতের বেড়াজালে আবিষ্ট পিতার মন।
সন্তানের লাশ আজ পিতার কাঁধে,
এ ভার যেন এভারেস্টকেও হার মানায়।

সালাম, বরকত হারিয়ে গেছে চিরতরে-
বাঙালিকে মায়ের ভাষা দান করে।
যে ভাষাকে আর কোনো বিদেশী শাসকগণ,
শক্তির বিনিময়ে কেড়ে নিতে পারবেনা।
আর কোনো যুবক তাদের যৌবন বিলাবেনা-
এই মাতৃভাষার চরণতলে ।
শফিক, রফিকের রক্ত বৃথা যায়নি।
বাঙালির ২১শে ফেব্রুয়ারীর ভাষা-আন্দোলন –
আজ আন্তর্জাতিক দরবারে স্বীকৃতি পেয়েছে।
ভাষা-সৈনিকেরা হয়তো আজ আনন্দ-অশ্রুতে সিক্ত।
এইতো বাঙালির ২১শে ফেব্রুয়ারী-
মহান ভাষা-দিবস।

মা-বাবা হারিয়েছে সন্তানকে,
বোন হারিয়েছে ভাইকে;
পত্নী হারালো জীবনসঙ্গীকে,
সন্তান হারালো পিতার স্নেহকে।
তবুও তাদের বুক ভরা অহংকার-
তারা হারিয়েছে বলেই বাঙালি আজ
বিশ্বের দরবারে মাথা উঁচু করে বলতে পারে-
বাঙালি ভাষার জন্য যুদ্ধ করেছে,
রাজপথ ভিজেছে রক্তের বন্যায়।
তোমরা ধন্য- যে হারিয়েছো বাবাকে
অথবা ভাইকে অথবা আদরের সন্তানকে।
তোমাদের প্রতি রইল বাঙালির-
অগাধ ভালোবাসা আর অসীম শ্রদ্ধাঞ্জলি।

২০৩জন ২৯জন
3 Shares

২৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য