ভালো হইয়া যাই

মনির হোসেন মমি ১২ নভেম্বর ২০২১, শুক্রবার, ০১:১৩:২৮পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১০ মন্তব্য
এখানে শেষ নয়, এখানে শুরু।করোনার কারনে স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করে অনলাইনে ক্লাশ নেয়ার উছিলায় এক জন ফাইভ ক্লাশের ছাত্রছাত্রীর হাতে তুলে দিয়েছেন অনলাইন ক্লাশ করতে এনড্রুয়েড ফোন!
যেটা দেখা গেছে, জোকের মত লেগে থাকা কিশোররা আসক্ত হয়৷৷সর্বোক্ষণ মাথা নীচু করে রাখে।
পাপজি বাপজির মত সব গেম বন্ধ করতে হয় সরকারকে।
শিক্ষক সন্তানের দ্বিতীয় অভিভাবক সেই হিসাবে আমরা যেমন শিক্ষককে মানতাম সন্মান করতাম।রাস্তায় চলার পথে মাথা উচু আর বুক ফুলিয়ে চলা আমরা শিক্ষকদের দেখলে মাথা নীচু করে সালাম দিয়ে কোন মতে পাশ কেটে যেতাম।শিক্ষকরাও আমাদের বাড়ী বাড়ী গিয়ে খোজ নিতেন৴যত্ন করে পড়াতেন৴সন্তানের মত আদর করত।আমাদের সময়টায় তেমনএকটা মোবাইলে ছড়াছড়ি ছিলো না ৴ছেলে মেয়ে মেট্রিক পর্যন্ত এক সাথে ক্লাশ করেছি।আড্ডাটাও কম দেইনি। ছেলে মেয়ে বলে কথা নেই যে কোন বাড়িতেই আমরা আড্ডা দিতাম।মেট্রিক এর বাইয়োলজিক্যাল প্রেট্ট্রিক্যাল খাতা আকঁতে পারতাম বলে আমার রুমে মেয়ে বন্ধু লেগেই থাকতো।কেউ কখনো বাধাও দেয়নি সন্দেহটাও করেনি।কারন তখন ছিলো সরলকাল আর এখন হলো গরমকাল।ইন্টানেটের খারাপ দিকটা এখন প্রকাশ্যে।কেউ কাউকে মানছে না৴জীবন চাহিদা মেটাতে গিয়ে স্বমী স্ত্রী উভয় সন্তানদের সময় দেয়াটা এখন প্রায় অসম্ভব।তাহলে সন্তান আদব কায়দা শিখবে কার কাছে?শিক্ষক৴৴ সেতো কুচিং নিয়ে মহা ব্যস্ত৴৴
তারপরও
এখন যে কোথাও ছাত্রশিক্ষক আমাদের মত ভালবাসার আত্মীয়তায় নজির নেই তা বলবো না ৴আছে তবে তা শতকরা অনেক কম।
বিদায় অনুষ্টান যখন রেগ ডে হয়ে যায় তখন আরো দেখার বাকী আছে।
অনেকাংশে শিক্ষক যেমন ছাত্র তেমন।
আমরা যা দিয়ে যাবো
ওরা তারই প্রতিনিধিত্ব করবে।
ওদের দোষ দিয়ে লাভ নেই
নিজের দিকে তাকান
জবাব পেয়ে যাবেন।
আসুন৴
আমরা ভালো হইয়া যাই🙏🙏
ছবিঃ সংগ্রীহিত
১২৮জন ৩০জন
0 Shares

১০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য