তৌহিদ, আমার ছোট ভাই। বেশ অনেকদিন ধরে আমার ফেসবুকের বন্ধুতালিকায় রয়েছেন। হঠাৎ একদিন মেসেজ দিয়ে সোনেলায় যোগ দেয়ার অনুরোধ করলেন। মহা ফাঁপরে পড়ে গেলাম আমি। গ্রুপ ট্রুপ এড়িয়েই চলি। জানি, সময় দিতে হয়তো পারবো না। জানালাম ভাইকে সেকথা। ভাই বললেন, “ব্লগে আসুন আপু, ভালো লাগবে আপনার।” ভাইয়ের কথা ফেলি কি করে? বললাম ঠিক আছে ভাই।

অতঃপর গত মে মাসের আটাশ তারিখ প্রিয় ছোট ভাইয়ের হাত ধরে গুটি গুটি পায়ে সোনেলা ব্লগে প্রবেশ করলাম। একখানা গল্প পোস্ট দিয়েও ফেললাম। কিন্তু ওই, না জানলে যা হয় আর কী! একই গল্প দুই দুইবার পোস্ট করে ফেললাম অজ্ঞানতাবশতঃ। একটা মুছে দিতে গিয়ে আর পারি না!
নক করলাম ভাইয়ের দরজায়। ভাই বোধহয় তখন অনলাইনে ছিলেন না। কড়া নাড়লাম শ্রদ্ধেয় জিসান ভাইয়ের দরজায়। ভাই বললেন দেখছি। মুছে দিলেন তিনি আমার ভুল করে করা দুটি পোস্টের একটি।

এ সবই আন্তরিকতার বহিঃপ্রকাশ। ব্লগ সম্পর্কে অজ্ঞ একজন নতুন ব্লগারের অপারগতাকে দ্রুত সমাধানের পথ দেখানো, শুধুমাত্র আপনজনরাই পারে। যেকোনো সমস্যার কথা বলার সাথে সাথে আন্তরিকভাবে পাশে দাঁড়ানো একটা অনেক বড় ব্যাপার। যা পেয়েছি সোনেলা ব্লগে। লেখায় দায়সারা মন্তব্য না করে, সবার সুচিন্তিত মন্তব্য মুগ্ধ করেছে আমাকে। অল্প সময়ে সবার ভালোবাসা পেয়েছি যথেষ্ট। বিনিময়ে আমি দিয়েছি খুব কমই। সে ব্যর্থতার দায় একান্তই আমার। আশাকরি, নিজের ব্যর্থতা কাটিয়ে উঠে আরও একটু বেশি সময় দিতে পারবো ব্লগে।

আমার ব্যর্থতা সত্ত্বেও মুখ ফিরিয়ে না নেয়া সোনেলা, তোমার জন্মমাসে তোমার সমস্ত পুত্র-কন্যাদের জানাই আন্তরিক শুভকামনা ও ভালোবাসা। আর তোমাকে জানাই অফুরান শুভেচ্ছা। ভালো থেকো তুমি। তোমার পুত্র-কন্যারা মুখর করে রাখুক তোমার উঠোন সবসময়। তাদের নাতি-নাতনি, তাদের সন্তান, তাদের সন্তানদের সন্তানরাও খেলা করুক তোমার উঠোনে, এই প্রত্যাশা নিরন্তর।

২৩৯জন ২৩জন
44 Shares

৩৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য