ভাঁওতাবাজি-১

আকাশনীলা ৩০ মার্চ ২০২০, সোমবার, ০১:১৮:১০অপরাহ্ন সমসাময়িক ২০ মন্তব্য

পড়ন্ত বিকেলে দুয়ারে বসে আনমনে কতো কিছুই ভাবছি। অনেকটা ঘোরের মধ্যেই ছিলাম। কখনো যেনো দাদি এসে পাশে বসেছে খেয়াল করিনি। কয়েকবার নাকি ডেকেছে আমাকে শুনতে পাইনি। শেষে বিরক্ত হয়ে গা ঠেলা দিয়ে বললো ঐ ছুড়িটা কখন থেকে ডাকছি শুনতে পাসনা। বুঝলাম বেচারী বেশ বিরক্ত।

আমিও বেশ বিরক্তি নিয়ে বললাম
-ধুর ছাতা! কী হয়েছে এতো চিৎকার চেঁচামেচি কেনো?
আমার বিরক্তির তোয়াক্কা না করে বললো
-কী হয়েছে জানি?
দাদীর চোখে মুখে বিস্ময়! আমি গুরুত্ব না দিয়েই বললাম কী হলো আবার
-কুরআন শরিফে চুল পাওয়া গেছে।
-তো! চুল পাওয়া যেতেই পারে। এতে এতো আশ্চর্যের কী হলো?
-আরে ওটা এমনি এমনি চুল নয়।
-এমনি এমনি নয় মানে!
-ওটা গায়েবি চুল! কুরআন শরিফ থেকে বের হয়েছে।ঐ চুল ধোয়া পানি খেলে করোনা হবে না।

মুহূর্তে সমস্ত বিরক্তি উবে গেল। এবার সিরিয়াসলি জিজ্ঞেস করলাম
-কী?
-হয় হয় । সবাই চুল ধোয়া পানি খাচ্ছে আর বলছে কী স্বাদ!
-তারপর
তারপর আর কি বলে চুপ করে গেলো। একটু পর বললো
-জানিস আমি অনেক বড় ভুল করেছি
এবার দাদীর চোখে মুখে বিস্ময় নয় অপরাধ বোধের ছাপ।

-আমার এতো দিনের আমল সব বিফলে গেলো।
বুঝলাম আসল ব্যাপার। তবুও জানতে চাইলাম কেনো?
-সবার কথা‌ শুনে মুই ও ঐ পানি খাইচু। কিন্তু একটু স্বাদ টাদ কিছুই নয়।
-সবাই বললো বলে খেয়ে নিলে! তা আমল সব মাটি হলো এই বোধদয় কী করে হলো?
বললো কেউ একজন বলেছে এই কুসংস্কারে বিশ্বাস করে ভুল করেছে।

সত্যিই তাই এই কুসংস্কারে বিশ্বাস করে মস্ত বড় ভুল করেছে। কুরআন শরিফ এ চুল পাওয়া অলৌকিক কোনো ঘটনা নয়। কুরআন শরিফ পাঠের সময় যে কারো মাথা থেকে একটা দু’টো চুল পড়তেই পারে। আর ভণ্ড অসাধুর দল সেটা নিয়ে কুসংস্কার ছড়িয়ে মানুষের মনে ভীতি সঞ্চার করতে তৎপর।

বেচারী দাদী আমার পুরাই থ।

৪১২জন ১৯৭জন
17 Shares

২০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য