দিন দিন আমাদের ব্যস্ততা বৃদ্ধি পাচ্ছে।দেশ ও জাতির কল্যাণার্থে আমাদের শুধু একটি ব্লগ সাইটে লেখা প্রকাশ করলে চলে না।একই লেখা কমপক্ষে দশটি ব্লগে কপি পেষ্ট করে প্রকাশ না করলে এই অভাগা জাতি আমাদের মুল্যবান লেখনি হতে বঞ্চিত হবে। অতি ব্যাস্ত ব্লগারগণ মন্তব্য লিখতেও সময় পান না।বিভিন্ন দিক বিবেচনায় এই রেডিমেট কমেন্ট এর পোষ্ট দিলাম। অনলাইনে গত কয়েকবছর বিভিন্ন ব্লগে বিচরন করে কিছু কমেন্ট অসাধারন লেগেছে,যা এখানে সবার মাঝে শেয়ার করছি। পোষ্টের প্রায় সব মন্তব্যই বিভিন্ন ব্লগ থেকে নেয়া।

এই পোষ্ট বুকমার্ক করে রাখবেন।ব্লগে লগিণ হবার পূর্বেই এই পোষ্ট ওপেন করবেন।এরপর পোষ্ট বুঝে, কমেন্ট কপি করে পোষ্টে পেষ্ট।এতে আপনার সময়ের অপচয় হবেনা। সময় বড় সম্পদ।মনে রাখতে হবে, টাইম এন্ড টাইড ওয়েট ফর নান। আসুন তাহলে শুরু করা যাক…………

অতি ব্যস্ত ব্লগারদের জন্য (যাদের সময় নষ্ট করার মতও টাইম নেই):
কোন পোষ্ট পড়তেও হবেনা আপনাকে,নিম্নের কমেন্ট গুলো করতে থাকুন
++++++
*৫ ( পাঁচ তারকা আর কি )
(y)
-{@
(-3
(3

ব্যস্ত ব্লগারদের জন্য(ব্যাস্ত তবে অতি ব্যস্ত না:
জাষ্ট চোখ বুলিয়ে যাবেন লেখায়,শিরোনাম এবং পোষ্টের শেষ লাইন পড়তে পারেন,যদি কিছুটা সময় থাকে।
এপিক পোষ্ট
হুমমমমম
গুড পোষ্ট
(যে সব পোষ্টে পর্ব আছে,কিছুই দেখার প্রয়োজন নেই) চলুক,পরের পর্বের অপেক্ষা।
দারুন
সুন্দর
পিলাচ
হাহাপগে :D)
ফাটাফাটি!
ফাটিয়ে দিয়েছেন

অব্যস্ত,আলসে,বেকার ব্লগারদের জন্য: (এনাদের যথেষ্ঠ সময় আছে,এই একটি ব্লগ নিয়েই সন্তষ্ট,যেহেতু এনারা প্রতিটি পোষ্টেই মন্তব্য করেন।কত আর টাইপ করবেন,হাত তো ব্যাথা হয়ে যেতে পারে)
গল্প,কবিতা,প্রবন্ধ,রাজনৈতিক,মুভি রিভিউ ইত্যাদি পোষ্টে যখন যেই কমেন্ট মানানসই হবে।

* বেশ চমৎকার বুনোন

অসাধারণ শব্দ চয়ন!

* ভালোলাগা রেখে গেলাম

* অসম্ভব ভালো লিখেছেন। এক কথায় অনবদ্য। বহুদিন পরে একটা ভালো লেখা পড়লাম। রবীন্দ্র পরবর্তী যুগে এধরনের লেখা আর আগে আসে নি। অনবদ্য…অসাধারণ… শুধু যে প্রাসঙ্গিক ও সময়উপযোগী লেখা তাই নয় একেবারে সমস্যার মূলে কুঠারাঘাত করেছেন। লেখকের বক্তবের সাথে পুরোপুরি একমত। এই পোস্টটিকে স্টিকি করা হৌক। 

* কবিতাটি কেমন যেন অন্যরকম ভালো লাগলো। কবিতার গভীরে যে সুর আপনি এনেছেন, তা অনবদ্য। কবিতার কাঠামোটা অনেক আকর্ষনীয় হয়েছে।

* সমকালীন বঙ্গীয় সাহিত্যাকাশের উদীয়মান নক্ষত্রসম লেখকের এই প্রতিবেদন খানা সাহিত্য পিয়াসীদের মনে নিগূড় যে বেদনার সৃষ্টি করিয়াছে তাহা কেবলমাত্র নব্য একবিংশীয় ধারার তত্ত্বীয় দর্শনের সহিতে প্রাচীন চন্ডী মঙ্গলীয় রোমান্টিসজমের সামঞ্জস্যপূর্ণতার ব্যাখ্যাই নয়, বর্তমান পেটি বুর্জোয়াদের জলশুন্য অন্ন ভক্ষণের তীব্র ক্ষুধাও প্রকাশ করিয়াছে…

* তৃতীয় বিশ্বের একটি উন্নয়নশীল দেশ হিসাবে আমরা যখন সম্রাজ্যবাদীদের চোখ রাঙ্গানো আর আমলাতান্ত্রীক জটিলতার শিকার হয়ে ক্রমশ এগিয়ে যাচ্ছি একটি অনিশ্চিত ভবিষ্যতের দিকে; ঠিক তখনি, ঠিক সেই মুহূর্তে দাঁড়িয়ে আপনার এই পোস্টের মাঝে আমি খোজে পাচ্ছি অন্ধকার ঠেলে সামনে এগিয়ে যাওয়ার একটি সম্ভবনা আর বিদেশী বেনিয়াদের কাছে বুদ্ধিবৃত্তিক দাসত্ব গ্রহন করার বিপক্ষে একটি সুক্ষ বার্তা যা আমার মনে মুড়ি খাওয়ার বাসনা জাগিয়ে তুলেছে।
যাই, মুড়ি খেয়ে আসি।

* আপনার এ ধরনের উদ্যোগ আমাদের জাতীয় জীবনে সে অভ্যাস তৈরীর ক্ষেত্রে একটি দিক নিশানা হতে চলেছে বলেই প্রতিভাত হয়। স্বাধীনতার চল্লিশ বছর পর আপনিই প্রথম ব্লগ জগতে এমন একটি প্রয়াস নিয়েছেন যা একই সাথে ডিসকোর্স এবং তার কাউন্টার ন্যারেটিভে বাইনারী অপোজিটসের উদাহরণ সৃষ্টি করবে। এর মধ্য থেকেই আমরা বের করে নিতে পারবো আমাদের পরিবর্তনের পথ।

* আজকের বিশ্বে নারীর প্রতি সকল বৈষম্য-বঞ্চণা-শোষণ দূর করে পুরুষের সম-অধিকার ভোগ করা ও সুযোগ-সুবিধার নিশ্চিত করার জন্য আপনার এই মহান উদ্যোগকে আমরা স্বাগত জানাই।

যুগ যুগ ধরে আমাদের মেয়েরা ধর্মান্ধতা, ধর্মীয় অপব্যাখ্যা ও নানা কুসংস্কারের শিকার হয়ে শোষিত, বঞ্চিত নির্যাতিত, অবহেলিত পশ্চাৎপদ থেকেছে, তাদের প্রতি মানবিক দৃষ্টিভঙ্গী নিয়ে কেউ তাকায়নি। আপনি সেই মহান পুরুষ যিনি বাঙ্গালী ভাগ্যাহত নারীদের পাশে দাঃড়িয়েছেন এবং বাংলাদেশের নারীদের উন্নয়ন কাংখিত মাত্রায় পৌঁছেনোর জন্য এই রকম একটি অভাবনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। বাঙ্গালী ভাগ্যাহত নারীরা আপনাকে ফেভিকল দিয়ে ইডেনের গেটে “লটকিয়ে” রেখে চীরস্মরণীয় করে রাখবে।

* বান্ধাইয়া রাখার মত পোষ্ট। একটা ফুলের মালা থাকবে ফ্রেমের গায়ে।

* এই লেখাটিতে লেখক মনের অন্ধি সন্ধিতে যে মনস্তাত্বিক টানাপোড়েনের আভাস আমরা দেখতে পাই সেটা নিয়ে আসলে বিশদ আলোচনার অবকাশ রয়েছে। লেখাটিতে আমরা পাবলো পিকাসোর কিউবিজমের সাথে সালভাদর দালির স্যুরিয়ালিজমের একটি সম্মিলিত অভিক্ষেপের লিখিত রূপ দেখতে পাই। লেখককে সাধুবাদ তিনি খুবই মুনশিয়ানার সাথে এই দুটি বিপরীতমুখী চিত্রকলার ধারাকে একই লেখনীর মাধ্যমে প্রকাশ করতে পেরেছে। এ প্রসঙ্গেই স্বনামখ্যাত পরিচালক আকিরো কুরোশাওয়া হয়তো কখনো বলেছিলেন “দুটি বিপরীত ধারার মিলনে যেই লেখনী আমাদের সামনে প্রতিভাত হয়ে ওঠে সেটাই আসলে একটি ব্যবসা সফল চলচ্চিত্রের মূলকথা”। যাক, এই লেখা নিয়ে আলোচনা করার দুঃসাহস করলে পাতার পর পাতা আই মিন মেগাবাইটের পর মেগাবাইট শেষ হয়ে যাবে তবু আলোচনার সিদ্ধান্তে আসা কঠিন থেকে কঠিনতর হয়ে যাবে।

* জাতির ক্রান্তিলগ্নে এরুপ পোস্ট প্রসব করে জাতিকে আলোর পথ প্রদর্শন করার জন্য আপনাকে রত্নগর্ভা ব্লগার উপাধি দেয়া হউক !!! সাথে পোস্টসহ লেখককে স্টিকি করার আবেদন জানালাম !!

* শরৎবাবুর প্রয়ানের পর এহেন তাৎপর্যমন্ডিত লেখা আজ পর্যন্ত আমার চোখে পড়েনি।

* রবীন্দ্র পরবর্তী যুগে এমন এমন লেখা চোখে পরে নাই 

অনেক হয়েছে।এসব মন্তব্যই যথেষ্ট।যে কোন পোষ্ট উপযোগী মন্তব্য এখান থেকে বেঁছে নিন।হয়ে উঠুন সবার প্রিয় ব্লগার।
আপনারা যদি ইচ্ছে করেন,তবে এই পোষ্টের মন্তব্যে কিছু এপিক মন্তব্য যোগ করতে পারেন 😀

হ্যাপ্পি ব্লগিং……………

 

 

১৬৪৩২জন ৭৬২৩জন
24 Shares

১২১টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ