অপেক্ষা করি বৃষ্টির,
অপেক্ষারা থাকে নিত্ত-সহচর
আক্ষেপের;

নিশি-ডাকা রাতে সমুদ্র-মন্থন-মুক্তো
সে আমি তুলবোই, বিনা অবদমনে,
ঘুম-অঘুম উন্মাতাল সুরা-শাসনে প্রতীক্ষার ক্ষণ গুনবো
অপেক্ষা-প্রহরের অনুতাপহীনতায়;

মুহুর্মুহু রজনীগন্ধার সুবাসে ইতিউতি তাকিয়ে,
গাছগাছালির নির্জন সবুজ প্রান্তরে
কুসুম উষ্ণতায় অব্রক্ষ্মচর্চার অজস্র ভৌতিক-আধিভৌতিক
ভালোবাসায় নাইয়ে দেবে;

পাখির রঙিন ডানার উড়ালে আসবে
চনমনে জ্যোৎস্না ভেদে, আয়েশি আলস্যে;

শীতের খিদে লাগা লম্বা-রাত পেরিয়ে ইয়ার্কির ছলে হলেও
বিষণ্ণতার মিষ্টি উষ্ণতা ফিকে হয়ে হওয়ার আগেই আসবে;
উপুড় হয়ে শুয়ে থাকা অলোকসুন্দরী-বৃষ্টি-জ্যোৎস্নার গা বেয়ে বেয়ে-ই
বৃষ্টি আসবে।

কোন এক স্বর্গ-দেব/দেবী সর্বান্বয়ী অনুভবে
বুকে টেনে নিয়ে ভালোবাসা দেবে-নেবে,
অপেক্ষার শেষে।

৩৪৮জন ৩৪৭জন
0 Shares

১৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ