বিয়ে এবং কিছু কথা ।

ইমন ৪ জানুয়ারী ২০১৬, সোমবার, ০৬:৫২:৫৫অপরাহ্ন বিবিধ ২৫ মন্তব্য

“কেও বলে, প্রাপ্ত বয়ষ্ক দুজন নর-নারীর একসাথে বসবাসের সামাজীক এবং ধর্মীয় রীতি-নীতি”। “কেও বলে, প্রাপ্ত বয়ষ্কদের যৌন সঙ্গমের মাধ্যমে সন্তান-সন্ততি লালন পালনের মাধ্যম”।
আমাদের সাব-কন্টিনেন্টে বিয়েটা যতটা না ধর্মীয় উৎসব তাঁর চেয়ে বেশি সামাজিক উৎসব হিসাবে পালন করা হয়। এখানে, বিয়েটা হয় একটা পরিবারের সাথে আরেকটা পরিবারের নতুন একটা আত্ত্বীয়তা তৈরীর মাধ্যম ,নতুন একটা কমিনিউটি তৈরীর মাধ্যম।
বিয়ে সব সমাজে সবখানে সব সময়ই দুটি মানুষের মাঝে একটা অঙ্গিকার হিসাবে গ্রহণ করা হয়।
বর-কনে দুজনেই সমান ভাবে দুজনকে বিশ্বাস করার, ভালবাসার, সন্মান করার ,সাড়া জীবন পাশে থাকার অঙ্গীকার করে।
এই অঙ্গীকার কোথাও কোথাও দালিলিক বা আইনী ভাবে বা ধর্মীয় ভাবে সংরক্ষিত থাকে।
কিন্তু দিনিশেষে এর বাইরেও বর-কনে অলিখিত কিছু অঙ্গীকারে আবদ্ধ হয়। যদি তারা পারিবারিক ভাবে, ধর্মিয় এবং আইনী ভাবে বিয়ে না করে,তবে সেখানে থাকে ভালবাসা নামক অলিখিত একটি অঙ্গীকার।
এই ভালবাসা নামক অঙ্গীকারে থাকে-
প্রতিটা মুহূর্ত পাশে থাকার অঙ্গীকার,
প্রতিটা বর্ষায় কদম দেয়ার অঙ্গীকার
প্রতিটা বিরহে পাশে থাকার অঙ্গীকার
প্রতিটা জোতসনায় একসাথে কফি-পানের অঙ্গীকার
প্রতিটা শীৎকারে পাশে থাকার অঙ্গীকার
প্রতিটা প্রসব বেদনায় প্রেয়সীর হাত খামচে ধরার অঙ্গীকার। 🙂

এই বিংশ শতাব্দিতে এসে বিয়ের রূপ-রঙ্গে এসেছে ব্যাপক পরিবর্তন।

এখন বিয়ে শুধুই চৌধুরী বা খান বংশের সাথে হয়না!
এখন বিয়ে হয় কনে ইঞ্জিঃ এবং বর কবি’র সাথে।
এখন বিয়ে মানে, গুটি গুটি পায়ে এগিয়ে আসা গাভী/ষাড় দর্শন নয়!
এখন বিয়ে মানে, “তোমরা একে অপরকে জেনে নাও”।:)
এখন বিয়েতে কনের বাবা হাজার বর যাত্রীর ভুড়ি-ভোজ,সিকু-ফাইভ ঘড়ি বা মোটর বাইক যৌতুক দেয় না!
এখন সাথে দেয় মেয়ের মাস্টার্স সার্টিফিকেট। 🙂
এখন বিয়ে মানে সাদা চাদরে রক্ত বা সঙ্গীর বুকে মাংসের গন্ধ খুজা নয়!
এখন বিয়ে মানে, সঙ্গীর বুকে বিশ্বাস আর ভালবাসার সুভাষ খুজা 🙂
বিয়ে এখন আর জনতার সামনে ‘এগ্রি এগ্রি এগ্রি’, ‘কবুল কবুল কবুল’ বা সাত পাকে ঘুরা না!
এখন বিয়ে মানে সামিয়ানায় শত মানুষের হুল্লুর,মেজবানি,আর শুভ-কামনায় হাতে হাত রেখে অনন্তকাল পথ চলার প্রত্যয়। 🙂
এখন নর-নারীর মাঝে বিয়ে মানে শুধুই লিখিত যৌন-সঙ্গম বা সন্তান উৎপাদন নয়!
এখন বিয়ে মানে, সব সমান ভাবে ভোগের অঙ্গীকার। 🙂
এখন বিয়ে মানে কাউকে শৃংখলে আবদ্ধ করে তার উড়তে চাওয়ার স্বপ্নকে ধামা-চাপা দেয়া না!
এখন বিয়ে মানে সঙ্গিনীকে উড়তে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়া।:)
কবিতা লিখতে তাকে কাগজ-কলম এগিয়ে দেয়া। 🙂
এখন বিয়ে মানে, শুধুই নারীর কোমর-কাছা দিয়ে রান্না-বান্না না!
এখন বিয়ে মানে “ বৌ মা চলো, বাইরে থেকে হেটে আসি” বলে শ্বাসুরীর আহ্ববান। 🙂
এখন বিয়ে মানে শুধুই একাকী টুকিটাকি কেনাকাটা নয়
এখন বিয়ে মানে দুজনে একসাথে মলে গিয়ে শপিং।
এখন বিয়ে মানে শুধু রাজা কনডমে পরিবার পরিকল্পনা নয়!
এখন বিয়ে মানে ‘ একটি হলে ভাল হয় দুটির বেশি সন্তান নয়, প্রত্যেকে যেনো মাশরাফি-ওয়াস্ফিয়া হয়’। 🙂
তাই বিয়ে আর এখন শুধুই আইনী বা ধর্মীয় শপথ নয়, এখন বিয়ে মানে আগামীর মহানায়ক-মহানায়ীকার আতুড় ঘর। 🙂
একেকটি রুপকথার প্লট।
এখন বিয়ের পবিত্রতা শুধুই সিদূর বা ঘোমটায় বিচার্য্য নয়, এখন বিয়ের পবিত্রতা মানে,ভালবেসে যুগের পর যুগ একসাথে সিঙ্গেল বেডে কাটিয়ে দেয়া।
বিয়ে মানে তুমি-আমি টুনা-টুনি
জীবন-যাপনের মধুর ফিলোসফি।…………
[বিঃদ্রঃ এক কথায় বিয়ে মানে, একটি কোলবালিশের হঠাৎ একা হয়ে যাওয়া ;( ]]

৯০৫জন ৯০৪জন
0 Shares

২৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ