বিষণ্ণ বিষাদিত বসন্ত

সুরাইয়া পারভীন ৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০, রবিবার, ০৪:৫৩:৫৯অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৩২ মন্তব্য

আমায় আর কেউ বলেনি এমন করে,
তোমার তরে পুরো পৃথিবীর দ্বার বন্ধ হলে-
তুমি চলে এসো প্রিয়া আমার দ্বারে।
অট্টালিকার না হোক কুঁড়ে ঘরের রাণী করে  রাখবো !
বুকের উপর আসন পেতে বসিয়ে রাখবো।
ভালোবাসার আদর সোহাগে ভরিয়ে রাখবো।
প্রেমের ঘুড়ি করে হৃদয় আকাশে উড়াবো।

আমায় আর কেউ বলেনি এমন করে,
প্রিয়দর্শিনী তোমাকে দেখার পরে-
আর কাউকে দেখতে ইচ্ছে করেনি।
প্রিয়ভাষিণী তোমার কথা শোনার পর-
আর কারো কথা শুনতে ইচ্ছে করেনি।
সুহাসিনী তোমাকে ভালোবাসার পর-
আর কাউকে ভালোবাসতে ইচ্ছে করেনি।
নন্দিনী তোমাকে ছোঁয়ার পর-
আর কাউকে ছুঁতে ইচ্ছে করেনি।

আমায় আর কেউ এভাবে বলেনি বলেই বুঝি আমি তোমাতে হারিয়েছি আমাকে। তোমায় নিয়ে স্বপ্ন দেখেছি দুচোখ ভরে। প্রেমের ছবি এঁকেছি হৃদয়ের ক্যানভাসে। শুভ্র মেঘের ভেলায় ভেসে ভেসে চাঁদের দেশে গিয়ে ঘর বেঁধেছি। এতো দিন যা পাইনি তাই চেয়েছি। খুব করে চেয়েছি। কিন্তু ভাগ্য কখনোই আমাকে সঙ্গ দেয়নি। কল্পনায় যা যা চেয়েছি বাস্তবে তার ছিটেফোঁটাও পাইনি। না পাওয়া নিয়েও তো আছি। ভালোই আছি। কিন্তু কী জানো?
মনটা না বড্ড অবুঝ। লাজ লজ্জাহীন বড্ড বেহায়া।  তাই তো সে সবুজের আমন্ত্রণ কখনো করতে পারেনি অবজ্ঞা। অবুঝ মন সবসময় চেয়েছে সবুজে সবুজে জড়িয়ে থাকতে। বিবর্ণ ধূসর জীবনে যে সবুজের শোভা বড্ড বেমানান তা অবুঝ মন কিছুতেই মানতে চায় না।

আজন্ম বিষণ্ণ বিষাদিত জীবনকে ফাল্গুনের মাতাল হাওয়া কখনোই করেনি স্পর্শ। রক্ত রাঙ্গা পলাশের রঙে মন হয়নি আনমন। কোকিলের সুমধুর ডাকে একটুও হয়নি রোমাঞ্চিত । কোকিলের সুরেলা কন্ঠে কন্ঠ মিলিয়ে তাই কখনোই গাওয়া হয়নি বসন্তের গান। জানি বসন্তের বাসন্তী বাতাস কখনোই দোলা দেবে না হৃদয়ে আমার। তবুও বড্ড সাধ জাগে

ফাল্গুনের দখিনা বাতাস হয়ে-
উন্মত্ত মাতাল করো আমাকে।
শিহরণ জাগাও আমার  অস্তিত্বে।
উত্তাল তরঙ্গিণীকে-
ভাসিয়ে দাও প্রেমের জোয়ারে।
বসন্তের বাসন্তী বাতাস হয়ে-
ছুঁয়ে দাও গাত্রের প্রতিটি খাঁজ।

৩৪৮জন ১৪৪জন
5 Shares

৩২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য