বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯ (পর্ব-০৫)

তৌহিদ ১১ জুলাই ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ০৯:৪১:০৮পূর্বাহ্ন খেলাধুলা ১৮ মন্তব্য

বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯ শুরু হয়ে গিয়েছে। এখন সেমিফাইনাল পর্ব চলছে। সোনেলার পাঠকদের জন্য এই টুর্নামেন্টের উল্যেখযোগ্য টুকিটাকি কিছু বিষয় “ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯” শিরোনামে ধারাবাহিকভাবে প্রকাশ করা হচ্ছে। আজ থাকছে পঞ্চম পর্ব।

রাউন্ড রবিন পদ্ধতিঃ

২০১৯ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপ প্রতিযোগিতার গ্রুপ পর্বের খেলাগুলো রাউন্ড-রবিন পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এ পর্বে অংশগ্রহণকারী দশ দলই একে-অপরের বিপক্ষে একই গ্রুপে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অবতীর্ণ হয়েছে। প্রত্যেক দলই সর্বমোট নয়টি খেলায় অংশ নিয়েছে। গ্রুপের শীর্ষ চার দল নক-আউট পর্বে উপনীত হয়েছে এবং সেমি-ফাইনাল ও ফাইনাল খেলবে। ১৯৯২ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপেও একই প্রক্রিয়া অবলম্বন করা হয়েছিল।

রাউন্ড-রবিন প্রতিযোগিতা (ইংরেজি: Round-robin tournament, All-play-all tournament) এক ধরনের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা পদ্ধতি ও ক্রীড়া পরিভাষা। এ পদ্ধতির মাধ্যমে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী প্রত্যেক প্রতিযোগী বা দল পর্যায়ক্রমে অন্যান্য প্রতিযোগী বা দলের বিরুদ্ধে খেলায় অংশগ্রহণ করে। রাউন্ড-রবিন পরিভাষাটি রুবানশব্দ থেকে উদ্ভূত, যার অর্থ হচ্ছে রিবন।

একক রাউন্ড-রবিন ক্রীড়া সময়সূচীতে একজন প্রতিযোগী কেবলমাত্র একবারই অংশগ্রহণকারী অন্যান্য প্রতিযোগীদের সাথে মোকাবেলা করবে। যদি একজন প্রতিযোগী অন্যান্য প্রতিযোগীদের সাথে দুইবার মোকাবেলা করে, তখন তা দ্বৈত রাউন্ড-রবিন প্রতিযোগিতা নামে পরিচিতি পাবে। দুইবারের বেশি এ ধরনের প্রতিযোগিতা পদ্ধতি বিরল ঘটনা হিসেবে আখ্যায়িত হয়। অজানাসংখ্যক খেলায় রাউন্ড-রবিন প্রতিযোগিতা পদ্ধতি কখনো ব্যবহার করা হয় না। ব্যতিক্রম হিসেবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পেশাদার ক্রীড়া লীগের আমেরিকান ফুটবল লীগ (১৯৪০) এবং অল-আমেরিকা ফুটবল কনফারেন্স রয়েছে।

বিভিন্ন দেশে নামকরনঃ

যুক্তরাজ্যে রাউন্ড-রবিন প্রতিযোগিতাকে প্রায়শঃই আমেরিকান প্রতিযোগিতা হিসেবে গণ্য করা হয়। টেনিসঅথবা বিলিয়ার্ডের ন্যায় ক্রীড়ায় সচরাচর নক-আউট প্রতিযোগিতা বা একক-বিদায় প্রতিযোগিতা নামে অভিহিত করা হয়। এটি ইতালিতেজিরোনি অল ইতালিয়ানানামে পরিচিত। সার্বিয়ায়এটি বার্গার পদ্ধতি যা জনপ্রিয় দাবাড়ু যোহন বার্গারেরনামানুসারে প্রণীত হয়েছে। চারজন খেলোয়াড়কেঘিরে রাউন্ড-রবিন প্রতিযোগিতাকে কখনোবা কোয়াড নামে ডাকা হয়।

ব্যবহারঃ

প্রতি মৌসুমে অনেকগুলো প্রতিযোগিতামূলক খেলার জন্য দ্বৈত রাউন্ড-রবিন পদ্ধতির প্রয়োগ একটি সাধারণ বিষয়। বিশ্বের অধিকাংশ ফুটবল লীগে দ্বৈত রাউন্ড-রবিন পদ্ধতির প্রচলন রয়েছে। এক্ষেত্রে প্রত্যেক দল নিজ মাঠ ও প্রতিপক্ষের মাঠে একে-অপরের বিরুদ্ধে একবার করে খেলবে। প্রধান প্রতিযোগিতা হিসেবে ফিফা বিশ্বকাপের যোগ্যতা নির্ধারণী খেলাসহ উয়েফা ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশীপ, কনকাকাফ গোল্ড কাপের ন্যায় মহাদেশীয় প্রতিযোগিতায় এর প্রয়োগ লক্ষ্য করা যায়। এছাড়াও, দাবা, গো এবং স্ক্র্যাবল প্রতিযোগিতায়ও এর প্রচল রয়েছে। ২০০৫ এবং ২০০৭ সালের বিশ্ব দাবা চ্যাম্পিয়নশীপে আটজন খেলোয়াড় একে-অপরের বিরুদ্ধে একবার সাদা ও একবার কালো গুটি নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছে।

গ্রুপভিত্তিক র‌্যাঙ্কিং প্রতিযোগিতায় সচরাচর দলের জয়, ড্র-সহ অন্য যে-কোন সিদ্ধান্তের মাধ্যমে শীর্ষস্থান নির্ধারণ করা হয়।

(চলবে…)

 

বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯ (পর্ব-০৪)

———–

“পাঠকের সুবিধার জন্য তথ্যসূত্রসমূহ নীল কালিতে হাইলাইটেড করা হয়েছে। তথ্য জানতে চাইলে শব্দগুলিতে ক্লিক করুন।”

আমার কথাঃ সোনেলার পাঠকদের জন্য বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯ শিরোনামে ধারাবাহিক এই লেখাটি আমি ইন্টারনেট ঘেঁটে তথ্যগুলি একত্রিত করে প্রকাশ করার চেষ্টা করেছি। মুল তথ্যগুলি উইকিপিডিয়া থেকে নেয়া হয়েছে। এর কারন উইকিপিডিয়া হচ্ছে একমাত্র নির্ভরযোগ্য সূত্রের ভান্ডার। যেখানে ভুল হবার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। আর সবচেয়ে বড় কথা কোন তথ্য তারা পরিবর্তন, পরিমার্জন কিংবা সংশোধন করলে সেটা এই লেখাতেও সয়ংক্রিয়ভাবে সংশোধন হয়ে যাবে এবং সোনেলার পাঠকগন তা নিয়মিত জানতে পারবেন। তাই লেখক এবং সোনেলাব্লগ তথ্যসূত্রের দ্বায়ভার থেকে সম্পূর্ণরূপে মুক্ত থাকবে।

পরের পর্ব পড়ার জন্য সোনেলার পাশেই থাকুন।

আপনার প্রিয় দলটির সর্বশেষ অবস্থান জানতে এই লেখার উপর ক্লিক করুন

বিশ্বকাপ ক্রিকেট লাইভ দেখতে এই লেখাটির উপর ক্লিক করুন

১৬৪জন ১৫৩জন
35 Shares

১৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য