বিভৎস মৃত্যু

সুরাইয়া পারভীন ১৩ অক্টোবর ২০২০, মঙ্গলবার, ০৫:৩১:৫৮অপরাহ্ন অণুগল্প ২০ মন্তব্য

 

অফিসের কাজে দূরে কোথাও যাওয়ার কথা হলে এম ডি আসিফ সাহেবের সবচেয়ে প্রিয় মুখ শায়নের কথায় আগে মনে পড়ে। এবারও এর ব্যতিক্রম হয়নি। আসিফ সাহেব তার সবচেয়ে প্রিয় আর বিশ্বস্ত কর্মচারী শায়নকে সমস্ত কাজ বুঝে দিয়ে গাড়ির চাবি দিয়ে দিল। এম ডি সাহেবের ব্যক্তিগত গাড়ি অফিসের কর্মচারীদের মধ্যে একমাত্র শায়নই ব্যবহার করতে পারে।

 

দিনটি ছিল শনিবার। শায়ন গাড়িতে পেট্রোল ভরে নিয়েছে সাথে সব কিছু ঠিকঠাক আছে কিনা দেখে নিয়েছে। অনেক দূরের পথ অতিক্রম করে, কাজ শেষ করে আবার ফিরে আসতে হবে ভেবেই শায়ন খুব ভোরে ঘুম থেকে উঠে ফ্রেশ হয়ে বেড়িয়ে পড়েছে। ভোরের রাস্তা বেশ নির্জন। দু একটা দূরপাল্লার বাস ছাড়া আর কিছুই চলছে না রাস্তায়। শায়ন মিউজিক চালিয়ে ফুল স্পিডে গাড়ি চালাচ্ছে। একটু একটু করে ভোরে অন্ধকার কেটে গিয়ে সকালের আলো ফুটেছে। রীতিমতো বেশ কিছু প্রাইভেট কার, বাস ট্রাক চলতে শুরু করেছে। একটার পর একটা গান বাজচ্ছে। হঠাৎ কানে ভেসে এলো তার খুব প্রিয় একটি গান।

‘দূরে দূরে মেঘ যাচ্ছে সরে

মন মেললো স্মৃতির দু ডানা’

গানটা যখনই শোনে অন্যমনস্ক হয়ে যায় শায়ন। গানের কথা গুলোর মধ্যে নিজের জীবনে ঘটে যাওয়া ঘটনা খুঁজে পায়। খুঁজে পায় ফেলে আসা অতীতের কিছু মুহূর্ত। গানটা কানে পড়লেই বাস্তবতা ভুলে যায়। আজও এর ব্যতিক্রম হলো না। ঠিক এমন সময় দূর থেকে এক ট্রাক এসে শায়নের গাড়িকে ধাক্কা দিয়ে চলে গেলো। গাড়ির সামনের অংশ চূর্ণ বিচূর্ণ হয়ে গেলো। শায়নের মাথা সহ সমস্ত শরীর থেতলে গেলো। এমন সময় এলাম ঘড়ি বেজে উঠলো। ধড়ফড় করে উঠে বিছানায় বসলো শায়ন। পুরো শরীর ঘামে ভেজা।

১৩২জন ৪জন
0 Shares

২০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য