বিদায় বাংলাদেশ বিদায় ————–

আলমগীর হোসাইন ২৮ জানুয়ারী ২০১৫, বুধবার, ০৩:৪৩:৪৬অপরাহ্ন বিবিধ ৫ মন্তব্য

বিদায় বাংলাদেশ বিদায় ————–

(ফেইসবুকের পাতা থেকে পুরানো একটি লিখা)

 

কি লিখব !! কিবোর্ড যেন ফেইসবুকের নীল বোতমকে আর পছন্দ করছে না | নিজের দেশ ছেড়ে যাওয়ার অভিজ্ঞতা আছে আমার। কিন্তু এবার যেন ব্যাথা একটু বেশিই।

এই মুহুর্তে ঢাকা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে, সাড়ে ৯ টায় ফ্লাইট ছিল ; কিন্তু দুর্ভাগ্য ১১.৩০মিনিটে এখন ফ্লাইট হবে !! সিলেট থেকে দীর্ঘ যাত্রা পথে … খুবই ক্লান্ত ফিল করছি !!

নিঃস্বার্থ ভালোবাসার অপর নাম ‘‘মা কিংবা বাবা “। সন্তান তো মায়ের শরীরের একটি অংশ। মায়ের চোখে তার সন্তান কখনো কি বড় হয়?

গত কয়েক দিন ধরে ,মা একদিকে কাদছেন আর অন্য দিকে আমি লাগিজ গুছা ছিলাম | রক্তের সাথে রক্তের টান স্বার্থের অনেক উর্ধ্বে !!নিজের অজান্তেই আমার চোখদিয়েও টল-টল করে পানি পড়ছিল অনেক বার !!কি যে কষ্টের অনুভুতি বুঝানো যাবে না !!!

আমরা যারা দেশের বাহিরে থাকি ,তারা আসলে দেশকে অনেক মিস করি |যে যাই বলুক, যে ভাবেই দেখুক দেশের প্রতি ভালবাসাটা তো সব সময় সমান !!

আমরা যারা স্থায়ী ভাবে বিদেশ থাকি | দেশে আসার জন্য একটা প্লান তৈরী করি |কারণ :বিলেতে কত নিষ্টুর ব্যস্ত জীবন | মাস শেষে বাড়ির মর্গেজ ,কারেন্ট,ওয়াটার,গ্যাস, কাউন্সেল ট্যাক্স,, গাড়ির ইন্সুরেনস, রোড ট্যাক্স, ক্রেডিট কার্ড এর বিল ,বাই নাউ পে লেইটার এর বিল, চাকুরীর পাশা পাশি ছুট খাটো ব্যবসা বাণিজ্য নিয়ে মহা ব্যস্ততার মাঝে বেছে থাকা |

কিন্তু এবার দেশে আসি হঠাৎ আব্বার অসুস্থ হবার খবর পেয়ে |বিলেতের জগত -সংসারের মহা ব্যস্ততা রেখে শুধু বাবার সুস্থতার জন্য দেশে আসা !!

আমরা তিন ভাই, দুই বোন্ !! ভাগ্য বিরম্বনায় ৫ শহরে থাকি ৫ জন !! আমি ম্যানচেস্টার , মেজটা নিউওয়ার্ক(আমেরিকা ),ছোট ভাই বার্মিংহামে,বোন্ এক জন লন্ডনে আরেক জন বার্মিংহামে | আর মমতাময়ী মা – বাবা দেশে একা | অনেক কষ্ট করে বাবা- মা আমাদের সব ভাই বোনদের উচ্চ শিক্ষিত করলেন আর এই বৃদ্ধ বয়সে -উনারা একা !! যখনই মনে হয় এই সব, নিজেকে তখন খুব অসহায় লাগে !!অবশঃ প্রায়ই আমরা একেক ভাই আব্বা- আম্মার জন্য দেশে যাই |গত চার মাস আগে আমার আমেরিকান প্রবাসী মেজ ভাইটা দেশ থেকে ঘুরে এসেছে !!!আমাদের সকল ভাই -বোনদের অনুউপস্থিতি আব্বা- আম্মার কষ্টের অনেক বড় কারণ !!

পৃথিবীর সব সুখ – শান্তি এক দিকে আর আমার কাছে আমার মা-বাবা একদিকে | “জি আব্বা এখন আপনাদের দোয়ায় অনেক সুস্থ ” !!

প্রিয় দেশ প্রিয় বাবা—-

আমার কাছে দেশটা আমার বাবার মত !!আমার বাবা মুক্তিযুদ্ধের এক জন সংগঠক ছিলেন | তার কাছ থেকেই দেশের প্রতি মানুষেরে প্রতি শ্রদ্বা- ভালবাসা শিখা |

এখনও বাবা মনে করেন আমি সেই ৫ -৬ বছরের খোকা | এই তো তর ভাত খাওয়া হয়েছে , কোথায় থাকিস , তাড়া-তাড়ি ঘুমিয়ে পর !! এই কথা গুলো যখনি ফোনে আলাপ হত প্রতি দিনই আমাকে শুনতে হয় !!

বাবা…
আমায় শিক্ষা দিতেন জীবনবোধ, দেশের প্রতি, মানুষের প্রতি ভালোবাসা। মোটকথা, একজন ভাল মানুষ হিসেবে গড়ে ওঠার যাবতীয় গুনাবলী সব বাবার কাছ থেকেই পাওয়া। জানিনা তাঁর আশা আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটাতে পেরেছি কিনা, তবে বাবার শেখানো পথে চলার চেষ্টা অব্যাহত আছে এখনো।বাবার ব্যক্তিত্ব অসাধারণ। বাবার সব স্বপ্ন আমি হয়ত পূরণ করতে পারি নাই !! কিন্তু আজকের বাস্তবতায় আমি বলছি বাবা —“বাবার ভালবাসা মাপার যদি কোন যন্ত্র থাকতো, তাহলে আমি নিশ্চিত করে বলতে পারি সবার প্রতি তাঁর ভালবাসার চেয়ে আমার প্রতি ভালবাসার পরিমান অবশ্যই বেশী | ”

হে আল্লাহ হাজার হাজার শুকরিয়া আমার আব্বা আগের চেয়ে এখন অনেক ভাল আছেন !!

আজ শুক্র বারে (২২ অগাস্ট -২০১৪ ইং )আমি রওয়ানা হব ম্যানচেস্টারের পথে ~~~~~~~~~

হয়তো  কিছুক্ষণ পর ( ২২ অগাস্ট -২০১৪ ইং ) আমি থাকব কোন এক উড়োজাহাজের পেটের মধ্যে। তখন হয় তো নেটওয়ার্কের বাহিরে চলে যাব !! পিছনে রেখে যাব দীর্ঘদিনের সহকর্মীদের অসংখ্য প্রিয় মানুষগুলোর মায়াবী মুখ,স্মৃতি আর ভালবাসার বিন্দু বিন্দু কণা আর যাপিত জীবনের বৈচিত্রহীন পৌনঃপুনিকতায় আবদ্ধ পিছেনে ফেলে যাওয়া কতগুলো সুখস্মৃতি !!!

ভার্চুয়াল বন্ধুরা …
দোয়া করবেন ! ভাল ভাবে যাতে গন্তব্যে পৌছতে পারি এটাই সবার কাছে কামনা !! প্লিজ সবাই আমার আব্বার জন্য একটু বেশি করে দোয়া করবেন !!

লিখাটা অনেক কষ্ট করে লিখতে হয়েছে  …..কারণ সময় কম !! সাথে ল্যাপটপ না থাকায়, বাংলা টাইপ আইফোন থেকে করতে হয়েছে !! যা খানিকটা সময় সাপেক্ষ !!

আশা করি ,গন্তব্যে পৌছে …আর নিয়মিত স্ট্যাটারস  লিখব  ফেইসবুকে  ইনশাআল্লাহ .. | …ভাল থাকেন সবাই নিজের মত করে !!..সবার জন্য অনেক অনেক ভালবাসা রইল … প্রতিদিন হোক আনন্দময় …..
ব্যস্ত জীবনের যান্ত্রিকতায় — ভার্চুয়াল জগতে আবার দেখা হবে …..

ব্যক্তিগত অনেক কৃতজ্ঞতা :
দেশে থেকে ৩০ হাজার ৫০০ টাকা দিয়ে ২৮ কেজি ওজনের খুব সৌখিন একটি ঝাড় বাতি কিনেছিলাম … অনেক কষ্টকরে কাস্টম শেষ করলাম .. যারা ঢাকা বিমান বন্দরে আন্তরিক সহযোগিতা করেছেন .. বিমানবন্দর শ্রমিকলীগের নেতা ছোবহান ভাই , স্থানীয় প্রশাসনিক কর্মকর্তা ইজাজ ভাই .. আমার কলেজ জীবনের বন্ধু কাস্টমস এর বড় কর্মকর্তা তপন, বন্ধু জাহাঙ্গীর হোসেন লিমন, শ্রদ্ধদেয় আব্দুল হাই ভাই , জাফর ভাই !! আপনাদের আন্তরিক সহযোগিতায় আমি খুবই আনন্দিত !! অনেক অনেক ধন্যবাদ !!
বিদায় বাংলাদেশ বিদায় !
আলমগীর হোসাইন
শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর , ঢাকা , বাংলাদেশ !!..
২২অগাস্ট ,২০১৪ ইং |||
🙁 🙁

 

 

৮৭০৪জন ৮৭০৬জন
0 Shares

৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ