বস্তি আবিস্কার

নিতাই বাবু ২৩ নভেম্বর ২০১৯, শনিবার, ০৬:৪২:৫২অপরাহ্ন কবিতা ২৩ মন্তব্য

দিন শেষে রাত। চাঁদের সাথে তারাগুলো হাসে। পাখিরা ঘুমে থাকে বিভোর।
জেগে থাকে চিরদুখী। দুখীর চোখে ঘুম নেই! ভাবে কখন হবে রাত ভোর।
পুরো ঘর অন্ধকার আলোহীন। কোনও সাড়াশব্দ নেই। শব্দ শুধু ঝিঁঝিঁপোকার।
গ্রাম পুলিশের হাক ডাক। শিয়ালের হুয়াক্কা হুয়া। সাথে ঘেউঘেউ পালিত কুকুরটার।
অশান্ত মন, করে বনবন। রাত পোহাবে কখন। সকালে কর্মে জুটবে আহার।
পেটে ক্ষুধা, ঘুম নেই চোখে। ছটফটানি রাত হয়না শেষ! অপেক্ষা রাত পোহাবার।
উঠিলে সূর্য ছড়াবে আলো। ঘুম ভাঙিবে সবার। পাখিরাও উড়বে আকাশ পানে।
কর্মমুখী মানুষ ছুটবে কর্মে। দুখী যাবে ঘাটে। কর্মে দিবে যোগ পেটের টানে।
দিনের কর্মে যাকিছু জুটে। তা-ই দিয়ে আনে খাবার। অভাব অনটনে চলে সংসার।
দিনে আনে দিনে খায়। ঋণে যোগায় বাড়তি খরচ। সংসারে থাকে বারোমাস হাহাকার!
ঋণের ভারে কুঁজো দুখী। পেটের ক্ষুধায় বুদ্ধিহীন। রাস্তায় ঘুরে ভিক্ষা করে।
ঋণ শোধে ভিটে বিক্রি। গ্রাম ছেড়ে শহরে ছুটে। রাস্তার পাশে বস্তি গড়ে।
শহরের রাস্তার পাশে বস্তি। সবার চোখে বস্তিবাসী। এঁদের সবাই করে তিরস্কার!
এঁরা ছিল না দুখী! ছিল ঘর, ছিল বাড়ি। বাস্তহারা হয়ে করেছে বস্তি আবিস্কার।

৪০৩জন ২৬৭জন
6 Shares

২৩টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য