বন-বিড়ালের ছায়া-মায়া

ছাইরাছ হেলাল ১১ ডিসেম্বর ২০১৮, মঙ্গলবার, ১০:২৫:৫৩পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৮ মন্তব্য

ঘরের থেকে বেরুলেই রোদ পিছু নেয়,
নিচ্ছে/নেবে ক্রমাগত তা-ও আড়ে-ঠাড়ে বুঝিয়ে-ও দেয়,
দিনে ও রাতে নিরন্তর
ত্যাঁদড় এক নাছর বান্দার মত।
পিছু নেয়, ছায়া ফেলে, ছায়ার বেশে
যখন যেদিকে যেমন করে মন চায়, মনে চায়;

সে কী কোন ছায়া-বেশি কঠিন গুপ্তচর?
সে কী কোন বিষ-মাখা-ছুরি-হাতের নির্মম গুপ্তঘাতক?
নাকি
অসভ্য-সভ্যতার নহবতে লেপ্টে থাকা কোন প্রেমিক/প্রেমিকা?
ছায়ার সাথে উপচ্ছায়াদের নিয়ে মিলে-মিশে-থাকা অকাট্য ক্লীবতা?

আচানক গভীর ঘুম ভেঙ্গে যায়,
কিছু-একটা কেমন-যেন-একটা
অস্বস্তি ঘিরে ধরে ঘিরে রাখে,
টেনে খুলে ফেলি শীতনিদ্রা,
রগড়ানো বিষম-বিস্ময়-চোখ মেলে দেখি
শিয়রে বসে আছে অবগুণ্ঠিত-ছায়া!
বিমূর্ত-আধাবিমূর্ত নান্দনিক-প্রকাশে বলে ওঠে
‘ঘুমোও তো, উঠলে কেন আবার!!
পুরোটায় বসিয়েছি অগুনতি কড়া পাহারা।’

একাকীর ঘুমন্তকে কড়া পাহারায়!!
ভয়ে/অভয়ে উড়ন্ত প্রতিবন্ধকতার পাতাল-জল নিয়ে ভাবি,
সে কী কোন পাহাড়ি বন-বিড়াল/বিড়ালি?

নিকুচি করা ঘুম-অঘুম-ভাবনার রেশ কাটে
‘হাইয়া লাচ্ছালা, হাইয়া লাল ফালা’ ডাক শুনে।

৩৩৭জন ৩৩৬জন
0 Shares

১৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ