বনভোজন এর ইতিকথা

সুপর্ণা ফাল্গুনী ১৯ জুন ২০২১, শনিবার, ০৬:০৩:৩২অপরাহ্ন অন্যান্য ২২ মন্তব্য

পিকনিক বা বনভোজন নাম শুনলেই সবার মনেই আনন্দের ফোয়ারা ছুটে। খাবার দাবার, মজা মাস্তি , খেলাধূলা , গান-বাজনা সবই থাকে বনভোজনে। মনের প্রফুল্লতা, প্রশান্তি খুঁজে পাওয়া যায় এই পিকনিকে। বিনোদনের মাধ্যমের মধ্যে অন্যতম হলো এই বনভোজন।

প্রতি বছর ১৮ জুন পালিত হয় আন্তর্জাতিক পিকনিক ডে। বিগত এক দশকেরও বেশি সময় ধরে পালিত হয়ে আসছে এ দিবসটি। আন্তর্জাতিক বনভোজন দিবসটি কবে থেকে শুরু হলো বা কারা শুরু করলো- সেটা জানা যায়নি।

তবে কেউ কেউ মনে করেন, ফরাসিরাই এর উদ্যোক্তা। ফরাসি বিপ্লবের আগে বড় পার্কগুলোয় সাধারণ মানুষ ঢুকতে পারত না। ফরাসি বিপ্লবের পর সাধারণ মানুষের জন্য প্রথমবারের মতো পার্কগুলো খুলে দেওয়া হয়। আর মানুষজন তখন পার্কে গিয়ে খাওয়া দাওয়া করতো, মজা করত। ‘পিকনিক’ শব্দের উৎপত্তিও কিন্তু ফরাসি ভাষা থেকেই।

‘বনভোজন’ পরিবারের সদস্যদের নিয়ে করা হয়, আবার স্কুল-কলেজ, ভার্সিটি পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক-শিক্ষিকাদের নিয়ে ও করা হয়। প্রতিষ্ঠান ভিত্তিক ও বনভোজন অনুষ্ঠিত হয়। বনভোজন সাধারণত শীতকাল থেকে বসন্ত পর্যন্ত এক দিনেই তথা সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত হয়ে থাকে। দেশে এখন অনেক পিকনিক স্পট গড়ে উঠেছে। যার যার সুবিধা অনুযায়ী জায়গা ঠিক করে নেয়।

সবাইকে বনভোজন দিবসের শুভেচ্ছা।

বি.দ্র. ‘সোনেলার বনভোজন’ এর অপেক্ষায় রইলাম 🥰🥰🥰🥰।

 

ছবি-গুগল

২৪০জন ৯০জন
0 Shares

২২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ