শীত কাঁতুরে মেঘষোড়শীর ঘাসের
ঠোঁটে আলতো চুমু!
ঘাসের শিহরনে-জাগরনে বনকূল জাগে !
বাঁকা চোখে! বনস্পতির কলঙ্ক পড়ে চাপা,
চাঁদের ঘোমটার ছাপে!
পোকার দল চিৎকার জুড়ে,
ক্ষনিকের ধন-যশের লোভের তোড়ে!
এই রে জাত গেল! কুল গেল!
ওদের অন্য-প্রান্তে তোলো!

সারা শরীর ভয় জুড়ে,
রাত-ভোর অপবাদে, ঘাসের চোখে অশ্রু ঝরে!
রাত্রি শেষে ঘুম চোখে বেশ সুর্য হাসে!
চোখ বাঁকিয়ে! কুয়াশা নামে! ভাষা নামে!
পক্ষীকুলে ঢি ঢি পড়ে চারিদিক জুডে!
দিন-দুপুরে একটু আবচ্ছা ঘোরে, ধরা পড়ে!
বনকূলের কলঙ্ক সারা শরীর জুড়ে!

ষড়যন্ত্র চলে বনকুলের সন্ধ্যা করে,
ভাতে-রসে না মেরে ,পোকায় মারো!
আজ ঘাস মরে!ঘাস পোড়ে!
সারা জঙ্গল জুড়ে!
এপার প্রান্ত থেকে অপার প্রান্ত ধরে!

ঊলঙ্গ দেহীতে বনকূলের রাতদুপুরে,
মাঝে সাঝে দাবানল চুমু কষে!
এ কথা শুধু আগাছাই বোঝে!
প্রান্তকালের শুরু থেকেই,
পাহাড়ের কোলে ঘাসের বংশ,
এখনও বসে!

@ বাড়ি
তারিখ-২৯/১০/১২
সময়-১ঃ১২ রাত

১৬৯জন ১৬৯জন
0 Shares

৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ