ফটোশপ আর ইলাস্ট্রেটর শিখবেন?

জাকিয়া জেসমিন যূথী ১৯ ডিসেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ০৭:৪৬:৪০অপরাহ্ন সমসাময়িক ২২ মন্তব্য

 

ফটোশপ আর ইলাস্ট্রেটর শিখবেন?
শেখার পরে কী করবেন?
ডেস্ক জব নাকি ফ্রিল্যান্সিং?
যাই করতে চান, সফটওয়্যার এর টুলস দিয়ে অফিস বা ক্লায়েন্টের ডিজাইন করতে জানতে হবে। জানতে হলে শিখতে হবে। শেখার সাথে সাথে লাগবে প্রাকটিস, দক্ষতার জন্য।
.
তারপর?
কাজ শিখলেন, দক্ষ হলেন কিন্তু সিভি লিখতে হবে না? চাকরিদাতাদের কাছে জানাতে হবে না আপনার ব্যাপারে? কিভাবে জানাবেন? সেই মান্ধাতা আমলের ডক ফাইলে লেখা রিজিউম বানাবেন? জ্বী নাহ! আপনি গ্রাফিক ডিজাইন প্রশিক্ষণ নিলেন, কাজে দক্ষ হলেন, অনেক ডিজাইন বানিয়ে পিসি ভরে ফেললেন। তাতে লাভ নেই। আপনার একটা ডিজাইন পোর্টফলিও লাগবে। সেই পোর্টফলিও সাজাবেন বিহান্সে, সাজাবেন ড্রিবল, টুইটার, লিংকডিন, পিন্টারেস্ট, ইন্সটাগ্রাম, ফ্লিকারে। সেখানে আপনার ডিজাইন গুলো সুন্দর করে প্রেজেন্টেশন করবেন। ডিজাইন প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমকে বলে মক আপ। এই মক আপ কিভাবে করে? এরও নিয়ম কানুন আছে।
.
এতো একদিকে গেলো অফিসের চাকরির বিষয়। ৯ টা -৫ টা, ১০ টা – ৬ টার অফিস ছাড়াও বর্তমানে তুমুল জনপ্রিয় পেশা ফ্রিল্যান্সিং। এই ফ্রিল্যান্সিং কোথায় করতে হয়? দেশে নাকি বিদেশে? কিভাবে? কিভাবে কাজ পেতে হয়? কিভাবে কাজ সাবমিট করতে হয়? কিভাবে পেমেন্ট হাতে আসবে?
.
এই সমস্ত কিছু শেখানো হয় আইটি ইন্সটিটিউটে কোর্সের মাধ্যমে। এই এত সব কিছু শেখার জন্য একটা সিলেবাস নির্ধারণ করা হয়। সেই সিলেবাস ফলো করে নির্দিষ্ট কিছু সময়ের রুটিনে ধাপে ধাপে শিখতে পারা যায় পুরো বিষয়টা। আর প্রফেশনাল হয়ে উঠে ঘরে ও বাইরে কাজ করা যায়। ইনকাম করা যায়।
.
ঘরে বসে ইনকামের ব্যাপারটা অনেক মজার।
নির্দিষ্ট সময়ের রুটিনে প্রতিদিন তাড়াহুড়ো করে সারাদিনের রান্না টা আগের রাতে অথবা ভোর বেলায় ঘুম থেকে জেগে উঠে করতে হচ্ছে না।
.
সারাদিনের অফিসের কাজের পরে ভিড়, জ্যাম সব সয়ে বাসায় ফেরার কষ্টে জর্জরিত হতে হচ্ছে না।
.
প্রতিদিনের ভিন্ন ভিন্ন ড্রেস আপ, পরের দিনের অফিসের ড্রেস রেডি করে রাখা, অর্নামেন্ট, গেট আপ সেট আপের ঝামেলা থাকছে না।
.
আরাম মতো ঘুম, আরাম মতন রান্নাবান্না, আরাম মতন সংসার যাপন, বন্ধু আড্ডা, শপিং, ট্যুর, কলেজ-ভার্সিটি অথবা হাসপাতাল, দৈনিক জীবনের সব হাসি আনন্দ হৈ হুল্লোড়ের এক ফাঁকে করে ফেলা সম্ভব ইন্টারনেটের মাধ্যমে অর্ডার আসা কাজগুলো।
.
আর ইন্টারনেট বা অনলাইন ক্লাস? সেটা আবার কী?
ইন্টারনেটে সরাসরি কথা বলা এবং একই সাথে চেহারা দেখা যাওয়ার যতগুলো মাধ্যম আছে সেই মাধ্যমগুলোতে ক্লাস কেই বলে অনলাইন ক্লাস। মানে, ইন্টারনেট সংযোগ ব্যবহার করে দেশ বিদেশ যেকোন স্থানের স্টুডেন্টকে নিজের জায়গা থেকে বসে ক্লাস নেয়া।
ফেসবুক লাইভ, ইউটিউব, জি হ্যাঙ্গাউট, স্কাইপে মাধ্যমে ভিডিও ক্লাশ নেয়া সম্ভব। যেই টিচারের কাছে যে মাধ্যমটি সহজবোধ্য, তিনি সেই মাধ্যমেই ক্লাশ করান।
.
আমি ক্লাস নেই স্কাইপে ভিডিও চ্যাটিং এর মাধ্যমে। এখানে প্রতিটি ভিডিও রেকর্ডিং এর অপশন আছে। স্ক্রিন শেয়ার এবং লাইভ চ্যাটের সুযোগ আছে। ক্লাস চলাকালীন সময়ে টিচার ও স্টুডেন্ট কথা বলতে পারে।
ক্লাস টি স্টুডেন্ট রা নিজেরাই ডাউনলোড করে নিতে পারে। তবু আমি প্রতিটি ক্লাসের ভিডিও নিজে ডাউনলোড করে ইমেইলে সব স্টুডেন্টদের পাঠিয়ে দেই।
.
আর হ্যাঁ, এই কোর্স করার জন্য কোন নির্দিষ্ট ক্লাসের স্টুডেন্ট হতে হয় না বা উচ্চশিক্ষার সার্টিফিকেটের প্রয়োজন নেই। ‍
.
এছাড়া কি করি? এছাড়া আছে ক্লাসের স্টুডেন্ট দের জন্য ফেসবুক মেসেঞ্জারে গ্রুপ চ্যাট। সেখানে যতক্ষণ জেগে থাকি সাপোর্ট দেই। এর বাইরেও পার্সোনাল মেসেঞ্জারেও কথা বলি।
.
আমাদের কথোপকথনের বিষয়বস্তু কী? শালীনতা ও ভদ্রতার আংগিকে ব্যক্তিগত জীবনের দুঃখ, হতাশা, রোগ, শোক, ভালোবাসা, ক্যারিয়ার, কনফিডেন্স, পড়াশোনা সমস্ত বিষয়েই ব্যক্তি বিভাজনে কথা বলা হয়। কাউন্সিলিং করা হয়। কে করে? আমিই। হ্যাঁ, এখানে মেন্টর আমি একাই।
.
আমি শুরু করেছি একটি আইটি ইন্সটিটিউট। নাম দিয়েছি MAX Learn IT Institute. এই নামকরণের উদ্দেশ্য হচ্ছে, সর্বোচ্চ পরিমাণ শেখানো। বিভিন্ন আইটি ইন্সটিটিউটের কোর্স মোডিউল কে একত্র করে যোজন বিয়োজনের মাধ্যমে সর্বোচ্চ কিছু শেখানো সম্ভব এমন একটি কড়ড়শ মোডিউল আমি বানিয়েছি যেখানে আপনি ফটোশপ-ইলাস্ট্রেটরের টুলস তো শিখবেন, টুলস দিয়ে বেসিক যা যা করা যায় তা শিখবেন। এর সাথে শিখবেন অফিস ও মার্কেটপ্লেসের কাজের আইটেম গুলো। এর সাথে কাজ ও ক্লাসের ফাঁকে ফাঁকেই শিখিয়ে দেয়া হবে Social Media Marketing.

তাহলে একটি কোর্সেই পাচ্ছেন আপনি তিন সুবিধা; গ্রাফিক্স+ফ্রিল্যান্সিং +মার্কেটিং!
.
আর কোর্স ফী টা? কোর্স ফী টা, আপনাদের সুবিধায় মাত্র ২২০০/, কোর্সটি ৬ মাসের।
ক্লাস সংখ্যা সপ্তাহে ২ দিন করে।
চাকরিজীবি, স্টুডেন্ট, গৃহিনী সবার সুবিধার কথা মাথায় রেখেই ক্লাস টাইম রাখা হয়েছে রাতে;
রাত ৯টা হতে ১০টার মধ্যে ক্লাস শুরু হবে। ক্লাস এর সময় নির্ধারণ হবে আপনার ব্যাচের সবার সাথে উন্মুক্ত কথাবার্তার মাধ্যমে।
ক্লাস ডিউরেশন দুই ঘন্টা। টপিক অনুযায়ী কম বেশি হবে।
ও হ্যাঁ, আরেকটা কথা, ক্লাসের হোমওয়ার্ক জমা দেয়ার জন্য থাকবে ফেসবুক সিক্রেট গ্রুপ। এডমিশন ফী দেয়ার পরে আপনাকে যোগ করে নেয়া হবে সেই গ্রুপে।
.
আর আমার সম্পর্কে জানেন না? জেনে নিন আমার ফেসবুক আইডিতে ক্লিক করে। এখানে আমার শিক্ষাগত যোগ্যতা, ডিজাইনার পোর্টফোলিও সমস্ত কিছুই দেয়া আছে।
.
তো আর কি? আসুন আমার কাছে, শেখাই গ্রাফিক ডিজাইন। এবং হোক বন্ধুত্ব সারাজীবনের।
//
জাকিয়া জেসমিন যূথী
Course Mentor & Owner
MAX Learn IT Institute

২২৫জন ১২১জন
10 Shares

২২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য