প্রিয়তমা

আসিফ ইকবাল ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, ১১:০৮:১৫অপরাহ্ন কবিতা ১৬ মন্তব্য

প্রিয়তমা কাছে এস, ভালোবাস।

তোমার উপমারহিত ঠোঁটের ধুম্রহীন অগ্নি

স্পর্শ করুক আমার অবদমনের নিদারুণ বরফ।

প্রিয়তমা তুমি আমাজান অরণ্যের সেই শামান হও

পনিরের চাকার মত চাঁদ থেকে গলে পড়া আয়াহুয়াস্কা

মন্ত্রের প্রলাপের মত পান করি তোমার চোখ থেকে, ঠোঁট থেকে,

বর্ষার বন্যার জল নেমে যাবার পর প্রমত্তা নদীর বুকে জেগে ওঠা

প্রশান্ত পাললিক চরের মত শ্বেত-শুভ্র, কোমল

দুধে আর্দ্র তোমার পীনোদ্ধত নয়ানজুলি

পয়োধর থেকে।

 

প্রিয়তমা কাছে এস, ভালোবাস।

মোমের প্রতিমার মত তুমি, নবীনা

তোমার ত্বকের রেশমে পিছলে যায় আলো

নীলচে-ধূসর চোখের পুঁতিতে ভূমধ্যসাগরের ঢেউ

হেলেনের শুভ্র উচ্ছাসের ফেনার মত ভেঙ্গে পড়া রূপ

আফ্রোদিতির চোখের ইশারায় একসহস্র যুদ্ধজাহাজ

এক হাজার এক রাত বিস্তীর্ণ সমুদ্র পাড়ি দিয়ে

ট্রয়ের বন্দরে ভিড়েছিল যেদিন,

ভূমধ্যসাগরের বুকে জেগে ওঠা ভোরের নীলচে আলোয়

নারী, তোমাকে দেখে সহস্র যুবকের, পুরুষের, যোদ্ধার বুকে

যুদ্ধ নয়, জিঘাংসা নয়, রিরংসা নয় –

অতি দূর উপকুলের পাথুরে দেয়ালে জেগে থাকা

বাতিঘরের অলিন্দে, বারান্দায় আদিম উচ্ছ্বাসে আছড়ে পড়া

বাতাসের হুহু স্রোতের মত হাহাকারের জন্ম হয়।

 

প্রিয়তমা কাছে এস, ভালোবাস।

এক অগ্নিস্ফুলিঙ্গের মত জীবন তোমার

এক অগ্নিপতঙ্গের মত জীবন আমার

বাতিঘরের উঁচু বারান্দা থেকে চুরুট ধরিয়ে ছুঁড়ে ফেলা

কত দেশলাই কাঠি নিভে যায় সমুদ্রের জলে আর ফেনায়;

তবু যে কাঠি, যে স্ফুলিঙ্গ নিভে যেতে যেতে

আঘাত করে যায় সোরা গন্ধক ঠাসা বারুদাগারে –

শতাব্দীর ঘুম ভেঙ্গে মরিয়ম ফুলের মত

জেগে ওঠে যেই আগ্নেয়গিরি ভিসুবিয়াসের আকাঙ্ক্ষা নিয়ে

তোমার একফোঁটা জলের মত স্ফুলিঙ্গের ঘষায় –

প্রিয়তমা বল তো কে, কাকে জ্বালায়? –

সেখানে তোমার, আমার অমরত্ব লেখা রয়।

১৮৭জন ৮৩জন
8 Shares

১৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য