প্রহেলিকা

শুভ্রনীল ১৮ অক্টোবর ২০২০, রবিবার, ০৮:০০:২০অপরাহ্ন ছোটগল্প ২৭ মন্তব্য

 

শ্রাবণ আহমেদ, বয়স চল্লিশের দোরগোড়ায়। বেশ লম্বা ফর্সা ও সুঠাম দেহের অধিকারী। এক কথায় সুদর্শন পুরুষ। হুটহাট বেড়িয়ে পড়েন লং ড্রাইভে। আজ যখন বেড়িয়ে পড়লেন তখনও রাত্রির মায়া কাটিয়ে প্রভাত আসেনি প্রকৃতির কোলে। বলা চলে অনেকটা রাত্রির শেষ প্রহর। রাস্তার চারপাশে নিয়ন বাতির আলো সাথে ঝিঁঝিঁ পোকার ডাক অন্যরকম ভালোলাগায় ভেসে যায় বলেই সে এমন সময়টাতেই বেড়িয়ে পড়ে। আজও তার ব্যতিক্রম হয়নি। গাড়ির জানালার গ্লাস খুলে দিয়ে উপভোগ করছে হেমন্তের শির শির হাওয়া। বেশ রোমাঞ্চকর মুহূর্ত। সফট মিউজিক চালিয়ে আস্তে আস্তে ড্রাইভ করছে শ্রাবণ।

 

সামনের দিকে চোখ পড়তেই দেখলো একটা মেয়ে হাত তুলে সংকেত দিল গাড়ি থামাতে। গাড়ির আলোতে স্পর্ষ্ট দেখা যাচ্ছিল মেয়েটিকে। আকাশী রঙের শাড়ি ছিল পরনে। সাথে একটা লাগেজও। শ্রাবণ কিছু বুঝে ওঠার আগেই মেয়েটি গাড়িতে উঠে সামনের সিটে ওর পাশে বসে বললো

~চলো

-কোথায়?

~তুমি যেখানে যাচ্ছো।

-মানে!

~লং ড্রাইভে।

 

শ্রাবণ মনে মনে ভাবছে, আমি লং ড্রাইভে যাচ্ছি তা এই মেয়েটি জানালো কী করে?

~কি হলো শ্রাবণ, কী এতো ভাবছো বলো তো?

শ্রাবণ এবার রীতিমতো ঘাবড়ে গেলো। মেয়েটি তার নামও জানে!

-না মানে কিছু ভাবছি না। আপনি কে বলুন তো, আমার নাম জানেন কী করে ?

~এটা কেমন প্রশ্ন শ্রাবণ! কি হয়েছে তোমার? তুমি আমাকে চিনতে পারছো না?

-না আমি সত্যিই আপনাকে চিনতে পারছিনা। দয়া করে বলুন কে আপনি?

~আমি তিলত্তোমা। এবার নিশ্চয়ই চিনতে পারছো! কেনো যে অমন অপরিচিতদের মতো আচরণ করছো বুঝতে পারছি না।

-তিলোত্তমা! এ নামে তো কাউকে চিনি না।

~মানে কি! এবার নিজের দেওয়া নামটাও ভুলে গেলে।

-কি বলছেন এসব বলুন তো? আমি তো আপনাকে আগে কখনো দেখিইনি। তাহলে নাম দিলাম কখন?

~শ্রাবণ এবার কিন্তু বাড়াবাড়ি হচ্ছে। কাল নিজেই ফোন করে বললে এবারের লং ড্রাইভে আমাকে সাথে নেবে। আমি যেনো তোমার পছন্দের তোমার দেওয়া আকাশী রঙের শাড়িটা পরে আসি। আর এখন বলছো আমাকে কখনো দেখোইনি। এবার বলবে শাড়িটাও তুমি আমাকে দাওনি!

 

মেয়েটি কী বলছে এসব, কিছুই তো মাথায় ঢুকছে না? মনে মনে ভাবছে শ্রাবণ। মেয়েটিকে কস্মিন কালেও দেখিনি অথচ সে বলছে আমি তাকে আমার প্রিয় রঙের শাড়ি দিয়েছি, গতকাল কথা হয়েছে। কী হচ্ছে এসব? কিছুতেই মনে করতে পারছি না আমি তাকে চিনি। আমার স্মৃতি শক্তি এতো দুর্বল নয় যে পরিচিত কাউকে মনেই থাকবে না।

~কী হলো শ্রাবণ? এমন অস্বাভাবিক আচরণ কেনো করছো আমার সাথে? ঠিক আছো তো তুমি

-এই আপনার মতলবটা কি বলেন তো! ছিনতাইকারী তাই না। সাথে আর কে কে আছে বলুন! চলুন আপনাকে পুলিশ স্টেশনে নিয়ে যাবো। তখন বুঝবেন এমন ফাজলামির মজা।

~হা হা হা

 

চারপাশ থেকে গাড়ির হর্ণ বাজতে শুরু করলো। একজন এসে বললেন কী মশাই কানে শোনেন না? এতোক্ষণ ধরে হর্ণ বাজানো হচ্ছে। কোন রাজ্যে বিচরণ করছেন?পুরো রাস্তা যানযট লেগে গেছে, রাস্তা ছাড়ুন তাড়াতাড়ি। শ্রাবণ লজ্জিত হয়ে সরি বলে গাড়ি স্টার্ট দিল।

১৬৯জন ৭জন
0 Shares

২৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য