প্রশ্নের উত্তর নেই!!!

মনির হোসেন মমি ৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৫, বুধবার, ১০:৩৩:১২অপরাহ্ন এদেশ, কবিতা, সমসাময়িক ১৭ মন্তব্য

বাবা ও মেয়ে এক সাথে
দগ্ধ
হিংস্র রাজনিতীর শিকারে
ছুড়া পেট্ট্রোল বোমার আগুনে,
কাদে আকাশঁ কাদে বাতাস
আতংকে দেশ বাসী জনতা।

ছোট্র শিশু যার এখনও
রঙ্গীন ক্ষণস্হায়ী পৃথিবীর
রূপ-রস কিছুই চেখে দেখা হয়নি
অথচ মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে সে,
দগ্ধ হয়ে হাসপাতালের বেডে।

দগ্ধ শিশুটির চোখে মুখে প্রশ্ন
কে হবে তাদের আলোর দিশারী
কে হবে নতুন প্রজন্মের কান্ডারী
আমাদের হিংস্রতা তাদেরকে ভাবিয়ে তোলে,
এ কেমন রাজনিতীর জননেত্রী জননেতা!….

দগ্ধ শিশুর ছল ছল চোখের জল
ব্যাথায় কাতর চিৎকারের ভাষায়
ঘৃণা ভরা অভিশাপে জ্বলবে তোমরাও
যারা আজ আমাদের অভিবাবক।

দগ্ধ পিতাকে খুজেঁ অনাথ শিশুটি
পরিবারে উপার্জন ক্ষম ব্যাক্তিটি
হিংস্র রাজনিতীর বলিতে,
আজ পরপারে অকালে ।

‘৫২,’৬৯,’৭১, এ করে ছিলো
দাবী আদায় আন্দোলন,
আমাদের পূর্ব পূরুষ,তখনও
ছিল হরতাল ছিল প্রতিবাদ
ছিলনা হিংস্রতায় স্ব-দেশী স্ব-জাতী
পুড়িয়ে চিতায় জ্বালিয়ে মারা।

দগ্ধে প্রান চলে যাওয়া
শিশুটির সীমাহীন যন্ত্রনার অনুভব
কে পারে বুঝিতে?
ভূক্ত ভোগী যিনি তিনিই পারেন কহিতে।

দগ্ধের পিতা আমি দগ্ধের মাতা আমি
দেখেছি শাসন তোমাদের, সেই
‘৯০ থেকে আজ অব্দি
ক্ষমতার মোহে অন্ধ,
ক্ষমতার অর্জনে দৃঢ় কল্প,
যাক না প্রান শত হাজার
আমার আমিরা, নেই
ভিকটিমের ধারে কাছেও
সকলি আম জনতা,
রাষ্ট্রের যত আগাছা।

কে স্বাধীনতার পক্ষে
কে বিপক্ষ,
বুঝি না,কিচ্ছু বুঝিতে চাই না
চাই ঐক্যতায় স্বাধীনতা রক্ষায়
আমাদের স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টি,
যদি ভাঙ্গতে হয় সংবিধান,ভাঙ্গো বার বার
তবুও তাড়াতে হবে শত্রু,
দেশকে স্বাধীনতার মন্ত্রে গড়বার। :v

অনুপ্রেরনায়:
সঞ্চয় দা এর  পোষ্ট “বোধদয়”
প্রজন্ম ৭১ এর :পেট্রল বোমায় নিহত এক কিশোরীর চিঠি
নুসরাত মৌরির:এই লেখাটির শিরোনাম নেই
এবং নওসীন মিশু আপুর
কেমন আছো প্রিয় দেশ আমার

৩৫৫জন ৩৫৫জন
0 Shares

১৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ