পতাকায় বর্ণমালা

সন্তান :- বেশীরভাগ মানুষই আসে বিদেশে সুখ-সাচ্ছন্দ্যের জন্যে। কিন্তু কতোজন পেয়ে থাকে? তারপরেও প্রত্যেকেই দেশের বাইরে যেতে চায়। কেউ কেউ দেশে খুব ভালো অবস্থানে থেকেও দেশের বাইরে চলে আসে শুধুমাত্র সন্তানের জন্য। কারণ তাদের মতে, দেশে নিরাপত্তা নেই, শিক্ষাব্যবস্থার করুণ পরিণতি, চাকরী বাজারে মন্দা ইত্যাদি। দেশের বাইরে এসে সেই সন্তানরা দেশে না-পাওয়া সুবিধাগুলো পেয়ে যায়। আর সব মা-বাবার তো এটাই চাওয়া। কিন্তু যখন সেইসব সন্তানরা স্বার্থপর আচরণ করে, তখন আফসোস করা ছাড়া আর কিছুই থাকেনা। হয়তো সেই সন্তানদের মা-বাবা প্রবাস জীবনে তেমন কিছুই করতে পারেনি(ঘর, অর্থ ইত্যাদি), শুধুই সন্তানদের কথা ভেবে গেছে। আমার সেইসব পিতা-মাতার কথা ভাবলে কষ্ট হয়। শেকড় উপড়ে আরেক মাটিতে সেই শেকড় লাগানো খুবই কষ্টসাধ্য। যা কেবল প্রবাসীরাই বোঝে।

ভাষা :- প্রবাসে বসবাসরত বাঙ্গালীরা প্রায়ই বলে থাকেন, তাদের সন্তানেরা বাংলা বলতে পারেন না মোটেও। কেউ কেউ গর্ব করেন, আর কেউবা আফসোস। অথচ আমরা এটা জানি বাচ্চারা দারুণ মেধাবী হয়। যে কোনো ভাষাকে আয়ত্ত করার ক্ষমতা খুব বেশী। আমার মতে ওদের সাথে যদি বাসার ভেতর নিজেদের মাতৃভাষায় কথা বলা হয়, কখনোই তারা নিজেদের ভাষা ভুলবেনা। অনেকে এও বলে থাকেন, বাংলা না বললেও ক্ষতি কি? আমি বলি আমরা দেশে যখন বেড়াতে যাই, তখন সকলে কিন্তু ইংরেজী বোঝেন না। হয়তো এটাও বলতে পারেন দেশে যাওয়া হয় ৫/৭ বছরে একবার, তার জন্য শেখাবার কি দরকার? আমি বলি একদিন তো পৃথিবী থেকে চলেই যেতে হবে, ভালোভাবে থাকার জন্য এতো আয়োজনেরই বা কি দরকার?

উপসংহার :- আমি এই লেখাটি মাত্রই লিখলাম ফেসবুকে একটা পোস্ট দেখে। একজন লিখেছেন তার সন্তান বাংলা বলতে পারেনা। তাই উনি বাচ্চাকে বাংলা শেখাবার জন্য শিক্ষক খুঁজছেন। কিন্তু আমার মতে ভাষা শেখানোর জন্য মা-বাবাই তো যথেষ্ট। বাসার ভেতরে যদি নিজেদের ভাষায় কথা বলেন উনারা, ছেলে-মেয়েরাও সেটাই করবে। কতো সহজ ব্যাপারটিকে জটিল করে তুলছেন কিছু প্রবাসী মা-বাবারা! সবশেষে বলতে চাই, যে দেশেরই নাগরিকত্ব গ্রহণ করুন না কেন, দিনশেষে সকলেই জানতে চাইবে, “Where is your back home?”

হ্যামিল্টন, কানাডা
৩ জুলাই, ২০১৮ ইং।

৪০৯জন ৪০৮জন
2 Shares

১৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ