পোকামাকড়ের ভালোবাসাবাসি

মিথুন ১৩ জুলাই ২০১৫, সোমবার, ০১:০৪:১৯অপরাহ্ন পরিবেশ ৩৫ মন্তব্য

গুগল মামার জন্য পৃথিবীর সব অজানা হাতে এসে ধরা দিচ্ছে। অজানাগুলো জানায় রূপ নিলে বিষ্ময় আরো বাড়ছে। সুন্দর, অদ্ভূত কতো সৃষ্টি আমাদের চারপাশে, শুধু একটু দেখে নিতে জানা। জীব বৈচিত্রের ৯৫% ই দখল করে আছে পোকামাকড়। ভাগ্যিস মানুষের ঘটে কিছু বুদ্ধি ছিল, তাই সর্বেসর্বা হয়ে আছি। নইলে ওরাই আমাদের পোকামাকড় বলতো। সে যাক, ছোটদের পোকামাকড় নিয়ে একটা বই হাতে আসায় ইন্টারেস্ট বাড়লো, কতো যে অদ্ভূত সব পোকামাকড়। কিছু ভিন্ন ধরনের পোকামাকড়ের ছবি শেয়ার করছি প্রথমে। এরপর মূল পয়েন্ট, ভালোবাসাবাসি। হুম, ওটাই আসল পয়েন্ট। কেনো গান শোনেন নি? ভালোবাসা ছাড়া আর আছে কি?

কিছু সুন্দর পোকামাকড়ঃ—-

Pink-Orchid-Mantis [] পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর ইনসেক্ট
pink orchid mantis
insect-elvis-presley []
insect elvis presley
Devil's flower Mantids  []
Devil’s flower mantids

নাম না জানা
নাম না জানা

leaf_insect-640x360 []
leaf insect
Brazilan tree hopper  []
Brazilan tree hopper

স্টিক
long stick insect

hemeroplanes-triptolemus-snake-mimicking-caterpillar-1.jpg.662x0_q100_crop-scale []
hemeroplanes-triptolemus-snake-mimicking-caterpillar-
incredible-insect-photographs-by-igor-siwanowicz-20-600x401 []
নাম না জানা
 

পোকামাকড় কিভাবে তাদের পছন্দের জনকে বেছে নেয়? তাদের মধ্যে এরেঞ্জড মেরেজের কোন চল নেই। ভাগ্যিস, আমিতো ভাবতেই পারিনা চেনা জানা ছাড়া বিয়ে!! এরেঞ্জড মেরেজ হওয়া কেউ আবার আমার দিকে তেড়ে না আসলেই হয়, জলদি টপিক্স পাল্টাই। তো যা বলছিলাম, তাহলে পোকামাকড় কি করে তাদের পার্টনার বেছে নেয়? তাদের মধ্যেও ঘটক পাখি ভাই, কিংবা ইন্টারনেট ম্যারেজ আবির্ভূত হয়েছে কিনা বলতে পারিনা, সবই সম্ভব। তাদের প্রেমের কিছু কায়দা কানুন দেখি চলুন।
**প্রথম দর্শনেই প্রেম। শুধুমাত্র একবার দেখেই কিছু পুরুষ পোকা আকৃষ্ট হয়ে যায় নারীর প্রতি। তবে নারীকে সে ক্ষেত্রে রুচিবান হতেই হবে। রঙ এবং প্যাটার্ন দেখে তবেই আকৃষ্ট হয়ে এগিয়ে যায় তারা এবং নৃত্য করে। ইভটিজিং এর বুদ্ধি কি ছেলেরা এভাবেই পেয়েছে? আমার তো তাই-ই মনে হয়।
**এই রাত ডাকে ঐ চাঁদ ডাকে আজ তুমি কোথায়??
গান গেয়ে গেয়ে প্রেমিকা কে ডেকে বেড়াচ্ছে প্রেমিক। আর প্রেমিকা ঘর বাড়ি স্বজন ছেড়ে ছুটে আসছে, এমন করে ডাকো যদি আমার ঘরে থাকা দায় 🙂
হুম এমনি করে কিছু পোকামাকড় গান গেয়ে গেয়ে সিগন্যাল পাঠায় তার প্রেমিকা কে। তবে প্রেমিকা পোকার জন্য কিন্তু ব্যাপারটা এতো সহজ নয়। কারন বেশির ভাগ সময় দেখা যায় অনেক প্রেমিক পোকারা একসাথে কোরাস গান গাইতে থাকে। এবং প্রেমিকা ঘুরে ঘুরে তার পছন্দের টিকে বেছে নেয়। রাজার আমলে রাজকুমারির জন্য পাত্র দেখার মতো অনেকটা। নারীর ডিমান্ড সবজায়গায়।
???????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????
কিছু ঝিঁঝিঁ পোকা আছে উচ্চ স্বরে গান গাইতে শুরু করে, কিন্তু যেইমাত্র কোন মেয়ে পোকা তার ডাকে সারা দিয়ে কাছাকাছি চলে আসে তার কন্ঠস্বর নীচু হয়ে সফট মিউজিকে রূপ নেয়। প্রেমিকা মনে হয় বেজায় দজ্জাল 🙂
তবে যারা গান গাইতে পারেনা, তাদের কি হবে? তারা কি প্রেম করবেনা? কিছু পোকা আছে শক্ত কোনকিছুতে ট্যাপিং সাউন্ড করে ডাক দেয় প্রেমিকাকে। আবার কেউবা আছে তাদের স্ট্রিং গুলো এমনভাবে ভাইব্রেট করে ঠিক গিটার বাজানোর মতো করে।
8310949_orig []
ভালোবাসাই আসল, তাই গায়ক না হলেও ভয়ের কিছু নাই। তবে গুন তো কিছু থাকতেই হবে। বেগুন প্রেমিক দিয়া ফায়দা কি? 🙂

**প্রেমিকার চুলে শ্যাম্পুর সুগন্ধ কে চুলের গন্ধ বর্ননা করে অনেক কবিতা গান নিশ্চয়ই শুনেছেন। কিংবা পারফিউমের গন্ধটাই প্রেমিকের কাছে যেন নারীর বুকের সুবাস। সে যাই হোক, আমাদের নারী পোকারাও কিন্তু বুদ্ধিসুদ্ধিতে একটুও পিছিয়ে নেই। বাতাসে সুগন্ধ ছড়িয়ে দিয়ে কিছু পোকারা পুরুষ পোকাদের আকর্ষন করে থাকে। তবে এজন্য কিন্তু তাকে অনেক ঝক্কিও পোহাতে হয়। কারন মাঝে মাঝে দেখা একই সময় অনেক পুরুষ পোকা এসে হাজির হয়েছে। পুরুষ পোকাদের এই ভিড়ভাট্টাকে bettle ball বলা হয়। রীতিমত রেসলিং করে সবাইকে পরাজিত করতে হয় বীর প্রেমিক কে। সেই বীরকে বলা হয় তখন হটেস্ট মেল কন্টেসটেন্ট। সিনেমাতে কি এমনি এমনি দেখায় ছেলে একসাথে ১০০ টাকে কুপোকাত করে ফেলছে, আর নারী তা দেখে প্রেমে গদগদ।

**আলো ভেবে যারে আমি জীবনে জড়াতে চাই, সেতো আলো নয় যেন আলেয়া। ব্যাটা তপন চৌধুরী, নারী তো আর জোনাকি পোকা নয় যে তুমি তারে আলো ভেবে নিবা। অন্যের দোষ না দিয়ে নিজের দোষ স্বীকার করো।
জোনাকি পোকা আলো জ্বালে আমরা সবাই জানি। তবে এটাও কিন্তু ভালোবাসাবাসির এক উপায়। আলোর সাথে একটা স্পেসিফিক কোড পাঠিয়ে তারা দৃস্টি আকর্ষন করে অপোজিট সেক্স কে। বেশির ভাগ ক্ষেত্রে এখানে নারীই এগ্রেসিভ। নারীরাও পিছিয়ে থাকবেনা, এ তত্ত্ব শুধু আমাদের বেলাতেই নয় দেখা যাচ্ছে।
ছলনাময়ী নারীর মতো ছলনাময়ী নারী পোকাও আছে কিন্তু। (এইটা আবার কি কইলাম, নারী ছলনাময়ী? ইম্পসিবল) কিছু নারী জোনাকি ইচ্ছেকৃত অন্য স্পিসিসের মতো করে আলো জ্বালিয়ে পুরুষ জোনাকিকে আকর্ষন করে এবং কাছে আসামাত্র তাদের খেয়ে ফেলে। আইডিয়াটা পছন্দ হইছে।

**ব্যাকগ্রাউন্ডে পিয়ানো মিউজিক চলছে। হাতে সুদৃশ্য র‍্যাপিং এ মোড়া উপহার নিয়ে প্রেমিক পৌঁছালো ডিম মোমবাতির আলোয় মাখা ডিনার টেবিলে। প্রেমিকা এলো লম্বা লাল রঙের অপরূপা ড্রেসে। কিছু আদর, সোহাগ, ভালোবাসাবাসি হলো। এরপর র‍্যাপিং খুলতেই মেজাজ খারাপ প্রেমিকার। এইটা কোন গিফট হইলো? অবশেষে প্রেমিক কে পেটে চালান করেই তার ডিনার সমাপ্ত হলো। অতএব গিফট সিলেকশানে সাবধান হোন। আমাদের মধ্যেও এই নিয়ম চালু থাকলে তো গ্যায়া না কাম সে। ভয়ে তো কোন ছেলে প্রপোজই করতো না।

যাহাই হোক, যে নিয়মেই হোক, ভালোবাসা সুন্দর। সুন্দর এই পৃথিবীর ভারসাম্যকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া। শুধু আমরাই মানতে নারাজ, এখানে সবকিছু সিগনেচারে চলে। জয় হোক পবিত্র ভালোবাসার, বেঁচে থাকার……………

১৫৫৩জন ১৫৪৯জন
0 Shares

৩৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ