পরিত্যক্ত যতিচিহ্ন

খাদিজাতুল কুবরা ১৯ ডিসেম্বর ২০২১, রবিবার, ১২:১৭:৩১পূর্বাহ্ন কবিতা ১৮ মন্তব্য

 

মানুষের প্রতি, এত বিতৃষ্ণা কেন তার?
অভিধান খুঁজে পায়না বলে, নাকি তারা মূলত নিজের নয়?
অনেক দিন পর দেখা হলে সিনা মিলিয়ে ও কেন বুকের আগল খুলতে পারেনা সে?
কেন স্পর্শগুলো বড় অসহ্য আর ভারি লাগে?
কেউ তার নয় সে-ও কারো নয়, এভাবেই তো বেশ চলে যাচ্ছে….
কী  দরকার  ভালোবাসা বাসির?
নিজের অতলান্তে এত রহস্যের জাল জালর টেনে রেখেছে,
সেসব জট খোলার সময় হয়েছে এই মধ্য বয়সে।
অত সাত-পাঁচ আর মেকি সমাজ, নিরীক্ষক পরিবার…
যাচ্চলে! ওসব বলে রোষানলে পড়তে হবে পরে।
কী হবে আর গুণের পাহাড় গড়ে?
থাক না যে যার মতো, কাজ কী অত ঘাঁটিয়ে?
সকলে ভালো থাকুক দূরে কোথাও কিংবা অনতিদূরে!
আজকাল তার কাছে ফুলের রেনু ও ভীবৎস লাগে,
এমন ও কিছু দিন গেছে, চারা গাছ পুষে, ফলজ হওয়ার আগেই স্বপ্ন বুনেছে।
স্বপ্ন সত্যি হতে হতে চোখে এখন ছাউনি পড়েছে,
ভালো দেখতে পায়না এখন আর সে,
গন্ধ আলাদা করার বোধ ও নেই প্রায়।
একলা বসে সে ভাবে, কবি বলেছিলেন __ “আমাদের গেছে যে দিন, একেবারেই কি গেছে “।
তেঁতে উঠে মন, ভূত্বকে ছড়িয়ে যায় বিষন্নতার প্রসাধন!
কি যায় আসে তাতে কোথায় বসল দাঁড়ি, কমা, ও সেমিকোলন?
যখন পান্ডুলিপির শুরুতে থাকে ভুল ব্যকরণ।
উপরোল্লিখিত সব চিহ্নই আজ পরিত্যক্ত, উত্তরগুলো ও থাকুক অনুক্ত।

৩৪৫জন ১৩৮জন
0 Shares

১৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ