পক্ষী কন্যা

স্বপ্ন ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৫, বৃহস্পতিবার, ১২:৪৩:২৪পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৫০ মন্তব্য


অনেকেরই মৎস কন্যায় আগ্রহ থাকলেও আমার কখনোই তা ছিলনা।সমুদ্র বিশাল তবে আকাশের কাছে তা নিতান্তই ক্ষুদ্র।স্বপ্ন দেখি এক পক্ষী কন্যার।কোথা থেকে একদিন এসে বলে,এই যে স্বপ্ন দেখতো আমাকে চিনতে পারো কিনা?আমার সোনালী পক্ষী কন্যা 🙂 সেই যে উড়ে চলা  তাঁর ডানায় ভর করে এখনো উড়ে চলছি। সীমাহীন আমাদের সাম্রাজ্য।পক্ষী কন্যার ডানার নীচে,ডানার ওমে থাকি সারাক্ষণ। আকাশে ভেসে দেখি নীল সমুদ্র,সুউচ্চ পাহাড়-পর্বত,সবুজ অরণ্য।

আমার পক্ষী কন্যার কথাঃ
স্বপ্ন দেখো দেখো,এই গ্রামকে জানো তুমি?এই যে দেখো ছোট একটি খামার যেটি তুমি দিয়েছো আমাকে।খামার বাড়ির পাশেই রয়েছে ট্রাক্টর।তোমার কি মনে আছে,সেবারের সূর্যমুখি চাষের কথা?পাখি ডাকা ভোরে চলে যেতে চাষাবাদ করতে।ট্রাক্টরের শব্দে কেমন ঝিমুনি ভাব আমার।তুমি তো জানোই আমার একটু ঘুম বেশী।ঘুমিয়ে পরতাম আবার।ঘুমের মাঝেই রোজ তোমার ডাক শুনে দ্রুত নাস্তা বানিয়ে নিয়ে যেতাম খামার বাড়ি।ক্লান্ত তোমার মুখ,এত মায়া।খাবার মুখে দেবার আগে একটি ভিটামিন খেতে তুমি ( এখানে বলা যাবেনা ) ,আবার খাবার পরে একটি   :p   কোন ডাক্তার যে এই প্রেসকিপশনটা দিলো তোমাকে, খাবার পুর্বে এবং পরে একটি সেব্য প্রতিদিন চার বার ! 🙂  সেবার সূর্যমুখি হেসেছিলো খুব।যখনই সময় পেতাম দুজনে সূর্য মুখিদের সাথে লু্টোপটি আমরাও।

এই যে সেই পাহাড়টি, যেখানে প্রকৃতির সাথে মিতালী করে দুজনে কাটিয়েছি কত সময়।একদিন তো তুমি বায়না ধরলে রাতে পাহাড়েই থাকবে।আমিও খুশি,সারারাত গল্প করা যাবে।কত কথা আমরা বলেছি সে রাতে।যে তারিখ আমাদের আলাপ হয়েছিলো ফোনে,ঠিক এক বছর পরেই সেই একই তারিখে আমাদের বিয়ে এবং বাসর রাত। এটি আমাদের কাছে এখনো মিরাকল এর মত। গান গেয়েছি আমি,কবিতা আবৃত্তি করেছো তুমি। তোমার গলায় কবিতা আবৃত্তি তেমন ভালো না আসলেও আমি কিন্তু হাসিনি একটুও। হাসি অবশ্য এসেছিলো :p

স্বপ্ন এই যে দেখো সেই সমুদ্রের তীর।যেবার সমুদ্র সৈকতে গেলাম।তোমার ইচ্ছেয় সমস্ত দিন ঝিনুকের গয়না পরেছি আমি।আমারো খুব ভালো লেগেছিল।কিছুটা নির্জন সৈকতে ছোটা ছুটি,সমুদ্রের ঢেউ গায়ে নেয়া,আমার ইচ্ছেকৃত ডুবে যাবার অভিনয়,আমাকে উদ্ধার করার তোমার ব্যাকুলতা,দুহাতে পাজা কোলে নিতে আমাকে,ছোট্ট আমি তোমার বুকে লেপটে থেকেছি।
এই সমুদ্রের বালিতে কত কিছু লিখেছি তুমি আমি।আমাদের ভালোবাসার কথা,বিশাল বিশাল হৃদয় এঁকেছি, স্বপ্ন+মিথুন লিখেছি।জোয়ারের পানি এসে সেসব লেখা হয়ত মুছে দিয়েছে,কিন্তু স্মৃতি তো মুছতে পারেনি।এখনো তো সব দেখতে পাচ্ছি আমরা।ভালোবাসাকে কিভাবে মুছে দেবে সামান্য সমুদ্রের পানি?

ভালোবাসা কি মুছে ফেলা যায় বলো?কেউ কি পেরেছে?

৮৬১জন ৮৫৮জন
0 Shares

৫০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ